• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • SITARAM YECHURI GETS FURIOUS AT BENGAL CPIM LEADERSHIP FOR ELECTION DEBACLE DMG

Sitaram Yechuri furious with Bengal CPIM: কেন্দ্রীয় কমিটির পরামর্শে কান না দিয়েই রাজ্যে শূন্য, ইয়েচুরির রোষের মুখে বঙ্গ সিপিএমের নেতারা

ইয়েচুরির রোষের মুখে বঙ্গ সিপিএমের নেতৃত্ব৷

রাজ্যে দলের বিপর্যয়ের পর্যালোচনা করতে গিয়ে সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির রিভিউ নোটেও কংগ্রেস এবং আইএসএফ-এর সঙ্গে জোট বেঁধে সংযুক্ত মোর্চা গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েও সরাসরি প্রশ্ন তোলা হয়েছে (Sitaram Yechuri furious with Bengal CPIM)৷

  • Share this:

    #কলকাতা: কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তৈরি করে দেওয়া রণনীতিকে গুরুত্ব না দিয়েই নির্বাচনী লড়াইতে নামায় বঙ্গ সিপিএম নেতৃত্বের উপরে ক্ষোভ উগরে দিলেন সীতারাম ইয়েচুরি৷ দলের রাজ্য কমিটির দু' দিনের বৈঠকে যোগ দিয়ে রাজ্য নেতাদের উপরে সিপিএম সাধারণ সম্পাদক নিজের অসন্তোষ স্পষ্ট করে দিয়েছেন বলেই খবর৷ এ দিন কলকাতায় সাংবাদিকদের সামনেও দলের রাজ্য নেতৃত্বের রণকৌশলের সমালোচনাই শোনা গিয়েছে ইয়েচুরির গলায়৷

    গোটা দেশেই বিজেপি-কে নিজেদের প্রধান শত্রু হিসেবে চিহ্নিত করেছে সিপিএম৷ ব্যতিক্রম নয় পশ্চিমবঙ্গও৷ বিজেপি-কে ক্ষমতা থেকে সরাতে তৃণমূল সহ বিরোধী দলগুলির সঙ্গেও হাত মেলানোয় আপত্তি নেই দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের৷ যদিও পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি-র মতোই তৃণমূলের বিরুদ্ধেও কঠিন লড়াই ছিল সিপিএম সহ বাম দলগুলির৷ কিন্তু এ রাজ্যের নেতারা বিজেপি এবং তৃণমূলকে একই পংক্তিতে বসিয়ে নির্বাচনের সময় আক্রমণ শানিয়েছিলেন৷ সেটাই ছিল এ রাজ্যে দলের রণকৌশল৷ কংগ্রেস এবং আইএসএফ-এর সঙ্গে জোট বাঁধলেও এই রণকৌশল থেকে সরে আসেনি সিপিএম৷ দলের কেন্দ্রীয় কমিটি মনে করছে, বিজেপি-র সঙ্গে তৃণমূলকে একই আসনে বসিয়ে আক্রমণ করাতেই পশ্চিমবঙ্গে বিপর্যয় ঘটেছে দলের৷ রাজ্য বিধানসভায় শূন্যে নেমে আসতে হয়েছে সিপিএম সহ বাম দলগুলিকে৷ আর সেই কারণেই দলের রাজ্য নেতাদের কাঠগড়ায় তুলছেন সিপিএমের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব৷ সূত্রের খবর, দলের কেন্দ্রীয় কমিটির পরামর্শ উপেক্ষা করে যেভাবে নিজেদের মতো করে দলের রাজ্য নেতারা রণকৌশল তৈরি করেছিলেন, এ দিন রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর বৈঠকে তা নিয়ে তীব্র অসন্তোষ প্রকাশ করেন সীতারাম ইয়েচুরি৷ দলের শেষ পার্টি কংগ্রেস রণকৌশলগত যে নীতি নির্ধারণ করা হয়েছিল, রাজ্য নেতারা তা অনুসরণ করেননি বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক৷

    রাজ্যে দলের বিপর্যয়ের পর্যালোচনা করতে গিয়ে সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির রিভিউ নোটেও কংগ্রেস এবং আইএসএফ-এর সঙ্গে জোট বেঁধে সংযুক্ত মোর্চা গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েও সরাসরি প্রশ্ন তোলা হয়েছে৷ লেখা হয়েছে, 'তৃণমূল এবং বিজেপি বিরোধী ভোটকে একত্রিত করতে অন্যদের সঙ্গে নির্বাচনী সমঝোতার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দল৷ কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে সংযুক্ত মোর্চার নামে কংগ্রেস এবং আইএসএফ-এর সঙ্গে আসন সমঝোতার করে বিকল্প সরকার গঠনের ডাক দিয়ে সংযুক্ত মোর্চা তৈরি করে প্রচার করা হয়৷ যা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সিদ্ধান্তের সঙ্গে মানানসই ছিল না এবং ভুল ছিল৷ '

    এ দিন কলকাতায় সীতারাম ইয়েচুরিও বুঝিয়ে দিয়েছেন, বিজেপি-কে হারানোই তাঁদের মূল লক্ষ্য৷ সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, 'পার্টি কংগ্রেসে গৃহীত দলের রাজনৈতিক লাইন অনুযায়ী আমাদের প্রথম লক্ষ্য বিজেপি-কে হারানো৷ এটা নিয়ে কোনও বিভ্রান্তির অবকাশ নেই৷ বিজেমূলের মতো শব্দবন্ধ ব্যবহার করে তৃণমূল এবং বিজেপি-কে সমান্তরাল ভাবে আক্রমণ করার নীতি যে ভুল ছিল, তা আমরা স্বীকার করেছি৷ কিন্তু একই সঙ্গে মনে রাখতে হবে, বিশেষ পরিস্থিতিতেই এই কৌশল নেওয়া হয়েছিল৷'

    রাজ্যে দলের বিপর্যয়ের জন্য যে রাজ্য নেতারা কেন্দ্রীয় কমিটির রোষের মুখে পড়বেন, তা প্রত্যাশিতই ছিল৷ এ দিন রাজ্য কমিটির বৈঠকের পর সিপিএমের রাজ্য নেতাদের উপরে চাপ আরও বাড়ল৷ কারণ কীভাবে রাজ্যে এই বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠা যায়, সেই পথ খুঁজে বের করার দায়ও এখন তাঁদের উপরেই৷

    সৌগত মুখোপাধ্যায়
    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: