আবেদনেই এক ডজন ভুল, সুপ্রিম কোর্টে জোর ধাক্কা খেল সিবিআই

সুপ্রিম কোর্টে খারিজ সিবিআই-এর আবেদন৷

গত শুক্রবার নারদ কাণ্ডে (Narada Case) ধৃত চার নেতাকে জেল হেফাজত থেকে বের করে গৃহবন্দি করে রাখার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট৷ কিন্তু সিবিআই চার নেতাকে গৃহবন্দি করে রাখার বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে যায়৷

  • Share this:

    #কলকাতা: চার হেভিওয়েট নেতাকে গৃহবন্দি করার বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টে গিয়ে জোর ধাক্কা খেল সিবিআই৷ কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সুপ্রিম কোর্টে যে আবেদন করেছিল, তাতে অন্তত এক ডজন ত্রুটি রয়েছে বলে খবর৷ ফলে, সুপ্রিম কোর্টে করা সিবিআই-এর স্পেশ্যাল লিভ পিটিশন খারিজ হয়ে গিয়েছে৷

    গত শুক্রবার নারদ কাণ্ডে ধৃত চার নেতাকে জেল হেফাজত থেকে বের করে গৃহবন্দি করে রাখার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট৷ কিন্তু সিবিআই চার নেতাকে গৃহবন্দি করে রাখার বিরোধিতা করে৷ ফলে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ খারিজ করার আবেদন নিয়ে রবিবার রাতেই সুপ্রিম কোর্টে স্পেশ্যাল লিভ পিটিশন করে সিবিআই৷ নিয়ম মতো, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রারের অফিসে স্পেশ্যাল লিভ পিটিশন জমা করে সিবিআই৷ কিন্তু তড়িঘড়ি করা সেই আবেদন পরীক্ষা করতে গিয়েই তাতে একগুচ্ছ ভুল ধরা পড়ে৷ সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় তদন্তাকারী সংস্থার আবেদনে অন্তত এক ডজন ভুল পাওয়া গিয়েছে৷ ফলে রেজিস্ট্রারের অফিস থেকেই ওই আবেদন খারিজ করে দেওয়া হয়৷ যার ফলে সুপ্রিম কোর্টে ফের নতুন করে আবেদন করতে হবে সিবিআই-কে৷

    এ দিন কলকাতা হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে মামলার শুনানি শুরু হতেই সুপ্রিম কোর্টে সিবিআই-এর করা আবেদনের কথা উল্লেখ করেন সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা৷ তখনও সুপ্রিম কোর্টে সিবিআই-এর আবেদন খারিজ হওয়ার খবর আসেনি৷ তুষার মেহতা আর্জি জানান, যেহেতু সুপ্রিম কোর্টে মামলার আবেদন করা হয়েছে, তাই কলকাতা হাইকোর্টে শুনানি স্থগিত রাখা হোক৷ যদিও সেই আবেদন খারিজ করে দেয় কলকাতা হাইকোর্ট৷ তারউপর সুপ্রিম কোর্টে তুষার মেহতার আবেদন খারিজ হয়ে যাওয়ার পর সলিসিটর জেনারেলের যুক্তি আরও দুর্বল হয়ে যায়৷

    সিবিআই যেভাবে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছে, তাকে দুঃখজনক বলে মন্তব্য করেন তৃণমূল নেতাদের হয় সওয়াল করা অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি৷ কলকাতা হাইকোর্টে শুনানি চলাকালীন তিনি অভিযোগ করেন, শুনানি প্রক্রিয়ায় দেরি করতেই ইচ্ছাকৃত ভাবে জটিলতা তৈরি করছে সিবিআই৷

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: