• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • RACKET BEHIND MAKING FAKE WATER PURIFIER MACHINE UNDER REPUTED BRAND NAME GET CAUGHT ARC

Fake Water Purifier : জলশোধনের নকল যন্ত্র বরাত দিয়ে লাগানো হয় খোদ পুলিশকর্তার অফিসেই ! ধরা পড়ল জালিয়াতির বড় চক্র

প্রখ্যাত সংস্থার নামে তৈরি নকল জলশোধন যন্ত্র

পরে ওই ওয়াটার পিউরিফায়ার কোম্পানির অভিযোগে তদন্তে নামে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ (Kolkata Police)

  • Share this:

কলকাতা : খোদ পুলিশকর্তার অফিসে বরাত দিয়ে লাগানো হয়েছিল পানীয় জল পরিস্রুত করার নকল যন্ত্র ! বিষয়টি কোম্পানির নজরে আসার পরে,পুলিশ জানতে পারে ওই পিউরিফায়ার মেশিনটি নকল। পরে ওই ওয়াটার পিউরিফায়ার কোম্পানির অভিযোগে তদন্তে নামে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ (Kolkata Police)। তদন্তে নেমে কলকাতা থেকে রাজু ঘোষ এবং অভীক রায়চৌধুরী নামে দুজনকে গ্রেপ্তার করে,পরে অবশ্য আরও একজন গ্রেফতার হয়।

সে সময় তাদের দেওয়া তথ্যের সূত্র ধরে গড়ফা থানা ও মুচি পাড়া থানা এলাকা থেকে প্রচুর পরিমাণে আর ও সিস্টেম, পাম্পিং কল, ফিল্টার থেকে আরম্ভ করে নকল জিনিস বাজেয়াপ্ত করেছিল পুলিশ। সঙ্গে ওই তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়।

 ওই তিনজনকে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার পর ওদের দেওয়া সূত্র মারফত এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিক যুগলকিশোর দাঁ, তাঁর টিম নিয়ে দিল্লি পৌঁছন। দিল্লির সুভাষ প্লেস থানা এলাকা থেকে বিনয় শ্রীবাস্তব নামে এক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ। ২৫ আগস্ট বিনয়ের গোডাউনে তল্লাশি করে এক লক্ষ ত্রিশ হাজার টাকার নকল ওয়াটার ফিল্টারের মালপত্র পায় পুলিশ। বিনয়কে ট্রানজিট রিমান্ডে কলকাতায় নিয়ে আসে পুলিশ।তাকে আদালতে তোলা হলে আদালত তাকে জামিন দেয়।

ওদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে, ওই ওয়াটার পিউরিফায়ার মেশিনের প্রকৃত দাম ১৮ হাজার টাকা । কলকাতার ব্যবসায়ীরা সেটা কিনত ৬০০-৭০০ টাকায় । যারা আগে ওই কোম্পানিতে কাজ করত, তারা ওই কোম্পানি ছেড়ে দিয়ে, এই নকল সামগ্রী বিক্রি করছে । সাধারণ মানুষ ওদের পূর্ব পরিচিত হিসাবে বিশ্বাস করে ঠকছেন । যেমন ঠকেছেন পুলিশকর্তারা।

অভিযোগ, তিন থেকে চার বছর ধরে এই ব্যবসা চালাচ্ছে ওই অসৎ ব্যবসায়ীরা। জলবাহিত রোগ আটকাতে যেখানে সঠিক ওয়াটার পিউরিফায়ার মানুষ খুঁজছেন, সেখানে এই ভাবে হুবহু নকল জিনিস বাজারে বিক্রি হতে দেখে, গোয়েন্দাদের চোখ কপালে উঠেছে।

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: