Home /News /kolkata /
Blood selling racket in Kolkata: বাড়ির ফ্রিজে জীবনদায়ী প্লাজমার প্যাকেট! জাল নথি দেখিয়ে প্রতারণার পর্দা ফাঁস

Blood selling racket in Kolkata: বাড়ির ফ্রিজে জীবনদায়ী প্লাজমার প্যাকেট! জাল নথি দেখিয়ে প্রতারণার পর্দা ফাঁস

প্রতীকী ছবি৷

প্রতীকী ছবি৷

পুলিশ জানতে পারে বেশ কিছু ভুয়ো ডোনার কার্ড, রিক্যুইজিশন স্লিপ জোগাড় করেছিলেন অভিযুক্ত।

  • Share this:

#কলকাতা: মানিকতলা থানার কাছে মাঝে মধ্যেই অভিযোগ আসত রক্ত ও প্লাজমা বিক্রি হচ্ছে মোটা টাকায়, অভিযোগ পেতেই তদন্তে নেমে উঠে এলো বিস্ফোরক তথ্য। গত ৬ জুলাই মানিকতলা ব্লাড ব্যাঙ্কের অধিকর্তা স্বপন সোরেন থানায় প্রতারণার অভিযোগ করেন। অভিযোগ পেয়েই তদন্তে নামে মানিকতলা থানার তদন্তকারী আধিকারিক।

প্রতারণার অভিযোগ নিয়ে  তদন্ত করতে গিয়ে অফিসার প্রথমে জানতে পারেন, রক্ত ও প্লাজমা বিক্রি হচ্ছে মোটা টাকায়। যারা বিপদে পড়ে সেই ফাঁদে পা দিয়েছেন, তাঁদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায় এক ব্যক্তির কথা। অনুপম ভট্টাচার্য নামে এক ব্যাক্তির নাম জানতে পারেন মানিকতলা থানার তদন্তকারী আধিকারিক।

আরও পড়ুন: আগুন সবজি, আগুন ডাল! অন্য রাজ্যের তুলনায় কলকাতায় কত দামে বিকোচ্ছে আলু, টমেটো ডাল?

বিভিন্ন সূত্র মারফত শ্যামপুকুর থানা এলাকার শ্যামবাজার চত্বরে তার বাড়ির ঠিকানা আসে পুলিশরর হাতে। সেই ঠিকানায় গিয়ে অনুপম ভট্টাচার্যের সন্ধান মিললেও প্রতারণার প্রমাণ মেলেনি তদন্তকারীদের হাতে। তাকে দীর্ঘ সময় জিজ্ঞাসাবাদ করে ও গোপন সূত্রে আরও একটি ঠিকানার খোঁজ পান তদন্তকারীরা। পুলিশ সূত্রে খবর, পাতিপুকুরের এক ঠিকানায় তল্লাশি অভিযান চালিয়ে পুলিশের হাতে উঠে আসে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। পুলিশ জানতে পারে বেশ কিছু ভুয়ো ডোনার কার্ড, রিক্যুইজিশন স্লিপ জোগাড় করেছিলেন অভিযুক্ত। তা দেখিয়ে মানিকতলা ব্লাড ব্যাঙ্ক থেকে রক্ত নিতেন তিনি।

আরও পড়ুন: সাত মাসের শিশুর হৃদযন্ত্রে জটিল বাইপাস সার্জারি! সুস্থ শরীরে একরত্তিকে বাড়ি ফিরিয়ে নজির গড়ল কলকাতা

সেই রক্ত রোগীর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়ার বিনিময়ে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করতেন, যা একেবারেই বেআইনি। অসহায় রোগীর পরিবারগুলি বাধ্য হয়েই টাকা দিত। পুলিশ জানতে পারে, অনুপম একা নন, প্রতারণার কাজে তাঁর সঙ্গী রয়েছেন আরও অনেকে। মানিকতলা থানার পুলিশ উদ্ধার করে চার প্যাকেট প্লাজমা ও বিভিন্ন সংস্থার জাল রবার স্ট্যাম্প। পুলিশ পাতিপুকুরে গিয়ে দেখে মাইনাস একান্ন ডিগ্রি সেলসিয়াসে যে প্লাজমা রাখার নিয়ম, সেই প্লাজমা রাখা হচ্ছে বাড়ির সাধারণ ফ্রিজে। আবার সেটাই বিক্রি হচ্ছে মোটা টাকায়।

পুলিশ সূত্রে খবর, বিনামূল্যে পাওয়া রক্ত ১৫০০ টাকায় বিক্রি করত অভিযুক্ত। অভিযুক্তকে পুলিশ আগামী ১৪ তারিখ পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে পেয়েছে মানিকতলা থানা। অভিযুক্তের সঙ্গে কার কার যোগাযোগ আছে, কার সূত্র ধরে এই চক্র চলত, সবই জানতে চায় পুলিশ।

Published by:Debamoy Ghosh
First published:

Tags: Blood Donation

পরবর্তী খবর