corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘গোলি মারো’ স্লোগানে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের পুলিশের, রাতেই গ্রেফতার ৩

‘গোলি মারো’ স্লোগানে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের পুলিশের, রাতেই গ্রেফতার ৩

গোলি মারো স্লোগান বির্তকে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু পুলিশের। জামিন অযোগ্য ধারা দায়ের করেই গ্রেফতার তিন।

  • Share this:

Susovan Bhattacharjee

#কলকাতা: রবিবার দিল্লি থেকে শহিদ মিনারে সভা করেছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ওই দিন সকাল থেকেই ছিল টানটান পুলিশি তৎপরতা । শহরের বিভিন্ন রাস্তা দিয়ে বিজেপির সমর্থকদের জন্য পুলিশের নিরাপত্তা ছিল আঁটোসাটো। শহরের বেশ কিছু রাস্তায় এদিন অমিত শাহ গো ব্যাক স্লোগানও দেওয়া হয়। তবে সভা শুরু হবার তাল কাটল একটি স্লোগানে। যে স্লোগান শহরের বুকে সব স্লোগানকে স্তব্ধ করে দিল রবিবার। একটি মিছিলে সমর্থকদের একটি নতুন স্লোগান কানে এল অনেক সমর্থককারীসহ পুলিশের।  হঠাৎই কলকাতার রাজপথে শোনা গেল "গোলি মারো...."। দিল্লি থেকে বিতর্কিত স্লোগান এবার খোদ বাংলার রাজধানীর বুকে এসে আছড়ে পড়ল ৷ এই স্লোগান প্রথমে অবাক না কররেও পরে বোঝা যায় এটি আদতে একটি বিতর্কিত স্লোগান ৷ মিছিল শুরুর সময় স্লোগান শোনা গেলেও শেষের সময় আর কানে আসেনি বিতর্ক।

যদিও সমর্থকদের সেই মিছিলেই বারংবার স্লোগান ওঠে ‘গোলি মারো...’ ৷ তারপর থেকেই এই বিতর্কিত স্লোগান নিয়ে রাজ্য রাজনীতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ৷ স্লোগানের একাধিক ভিডিও ফুটেজও ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ৷ এমনকি প্রশ্ন ওঠে, পুলিশের সামনেই কলকাতার রাজপথে বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা কীভাবে প্রকাশ্যে গুলি মারার কথা বলল? কেন এরপরেও কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি পুলিশ ৷ এমনকি পুলিশ কোনও ব্যবস্থা না নিলে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারিও দিয়েছিল সিপিএম ৷ সেই স্লোগান নিয়ে এরপরেই শুরু হয়ে যায় তরজা ৷ রাতের মধ্যেই স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করার পদক্ষেপও নেয় পুলিশ।  সোমবারই সেই মামলা করা হয়। জামিন অযোগ্য ধারা যুক্ত করে ১৫৩এ- (কোন সম্প্রদায়ের মধ্যে বিভেদ ছড়ানোয় উষ্কানি দেওয়া) ৫০৫- (কোন সম্প্রদায়েরকে হুমকি দেওয়া) ৫০৬- (হুমকি) ও ৩৪- (সমবেত হয়ে কাজ করা) এই ধারা গুলি যুক্ত করে নিউ মার্কেট থানা তদন্ত শুরু করে। বেশকিছু ভিডিও ফুটেজ হাতে আসে কলকাতা পুলিশের। সেগুলি শনাক্ত করে বিতর্কিত স্লোগানে অংশগ্রহণকারীদেরও গ্রেফতারের কাজও শুরু করেছে পুলিশ। ইতিমধ্যেই তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে ৷ অভিযুক্ত তিনজনের নাম সুরেন্দ্র কুমার তিওয়ারি, ধ্রুব বসু ও পঙ্কজ প্রসাদ ৷ তিনজনেই বিজেপির সক্রিয় কর্মী বলে জানা যাচ্ছে ৷

Published by: Simli Raha
First published: March 2, 2020, 8:47 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर