শিশুকন্যাকে খুনের পর ঘুরতে বেরিয়েছিল দারোয়ান! জোড়াবাগান কাণ্ডে জালে অভিযুক্ত

প্রতীকী ছবি৷

পুলিশকে অভিযুক্ত জানিয়েছে, ভোরের দিকে এসে নিজের ঘরে ঘুমিয়েও পড়ে সে৷ সকালে এক পরিচারিকা বাড়ির ছাদে কাপড় শুকোতে দিতে যাওয়ার সময় সিঁড়িতে শিশুকন্যার দেহ পড়ে থাকতে দেখে৷

  • Share this:

    #কলকাতা: ৯ বছরের শিশুকন্যাকে বেহুঁশ করে যৌন নির্যাতন৷ তার পর তার শ্বাসরোধ করে গলা কেটে খুন করে দেহ ফেলে দিয়ে নিশ্চিন্তে ঘুরতে বেরিয়ে গিয়েছিল মূল অভিযুক্ত বাড়ির দারোয়ান৷ জোড়াবাগান হত্যাকাণ্ডে উঠে এল এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ যে বাড়িতে ওই শিশুটির দেহ উদ্ধার হয়, সেখানেই দারোয়ানের কাজ করত মূল অভিযুক্ত লম্বু৷

    গতকাল, বৃহস্পতিবার সকালে জোড়াবাগান এলাকায় একটি বাড়ি থেকে ৬ বছরের এক বালিকার মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়৷ বালিকাকে গলা কেটে খুন করা হয় বলে অভিযোগ৷ খুনের আগে তার উপর যৌন নির্যাতনও চালানো হয় বলে সন্দেহ করে পুলিশ৷ ঘটনায় তিন সন্দেহভাজনকে আটক করে জেরা করে পুলিশ৷ আটকদের মধ্য রয়েছে মূল অভিযুক্ত এবং ওই বাড়ির দীর্ঘদিনের দারোয়ান লম্বুও ছিল৷ জেরায় সে স্বীকার করেছে, শিশুটির উপরে একাই নির্যাতন চালিয়ে খুন করেছে সে৷

    এ দিন শিশুটির দেহের ময়নাতদন্ত রিপোর্টেও খুনের আগে যৌন নির্যাতনের প্রমাণ মেলে৷ শিশুটির পাকস্থলিতে বিরিয়ানি জাতীয় খাবার এবং চিপসও পাওয়া যায়৷ এতেই ওই দারোয়ানের উপরে পুলিশের সন্দেহ আরও দৃঢ় হয়৷ কারণ জেরায় সে পুলিশকে আগেই জানিয়েছিল, ঘটনার দিন বন্ধুদের সঙ্গে বিরিয়ানি এবং দেশি মদ খেয়েছিল সে৷ যদিও প্রথমে অভিযোগের কথা স্বীকার করেনি ওই দারোয়ান৷

    জেরায় পুলিশকে রাম ওরফে লম্বু জানিয়েছে, গত বুধবার রাতে নিজের ঘরেই মোবাইলে অশ্লীল ভিডিও দেখছিল সে৷ সেই সময় খেলতে খেলতে ওই শিশুকন্যা ওই বাড়িতে ঢুকে পড়ে৷ তখনই তাকে খাবারের লোভ দেখিয়ে ঘরে ডাকে অভিযুক্ত৷ মাদক মেশানো খাবার খাইয়ে শিশুিটকে অচেতন করে প্রথমে যৌন নির্যাতন চালায় অভিযুক্ত৷ তার পর শ্বাসরোধ করে তাকে খুন করে সে৷ ছুরি দিয়ে গলাও কেটে দেয়৷ এর পর একটু রাতের দিকে শিশুকন্যার দেহ ছাদের সিঁড়ির কাছে ফেলে দেয় লম্বু৷ এর পর নিজের ঘরে এসে ফের বিরিয়ানি এবং মদ খায় সে৷ তার পর নিয়ম মতো বাড়ির জল তোলার পাম্প চালিয়ে রাস্তায় ঘুরতে বেরিয়ে রাস্তায় ঘুরতে বেরিয়ে যায় সে৷

    পুলিশকে অভিযুক্ত জানিয়েছে, ভোরের দিকে এসে নিজের ঘরে ঘুমিয়েও পড়ে সে৷ সকালে এক পরিচারিকা বাড়ির ছাদে কাপড় শুকোতে দিতে যাওয়ার সময় সিঁড়িতে শিশুকন্যার দেহ পড়ে থাকতে দেখে৷

    পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত লম্বুর মোবাইলে প্রচুর পর্ন ভিডিও মিলেছে৷ তার মধ্যে অধিকাংশই শিশুদের নিয়ে৷ গোয়েন্দারা মনে করছেন, চিপসের সাথে কিছু খাইয়ে সংজ্ঞাহীন করে তারপর গোটা ঘটনা ঘটানো হয়েছে। বাড়ির দারোয়ানই যে মূল অভিযুক্ত তা জানার পর এ দিন এলাকায় ফের বিক্ষোভ দেখান স্থানীয় বাসিন্দারা৷ তাঁদের দাবি, অভিযুক্তকে তাঁদের হাতে তুলে দিতে হবে৷

    এ দিন স্থানীয় বিধায়ক এবং মন্ত্রী শশী পাঁজা ঘটনাস্থলে গেলে তাঁকে ঘিরেও বিক্ষোভ দেখায় জনতা৷ যদিও অভিযুক্তের দ্রুত শাস্তির আশ্বাস দিয়েছেন মন্ত্রী৷

    Sukanta Mukherjee

    Published by:Debamoy Ghosh
    First published: