হোম /খবর /কলকাতা /
নেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়, বেহালার বিজয়া সম্মিলনীতে অন্য চমক! অবাক এলাকাবাসীও

নেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়, বেহালার বিজয়া সম্মিলনীতে অন্য চমক! অবাক এলাকাবাসীও

বর্তমানে জেলবন্দি পার্থ চট্টোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি)

বর্তমানে জেলবন্দি পার্থ চট্টোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি)

দলের নির্দেশ পালন করে, রাজনৈতিক লড়াইয়ে থাকার বার্তা দিলেন তৃণমূলের নেতা-কাউন্সিলরেরা।

  • Share this:

#কলকাতা: দলের নির্দেশ মেনেই বিজয়া সম্মিলনী পালন করা হল বেহালা পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রে৷ রাজনৈতিক ভাবে নজরে এই বিধানসভা কেন্দ্র। কারণ শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি কান্ডে এই অঞ্চলের বিধায়ক তিনি জেলবন্দি। বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায় নেই তো কী হয়েছে, তা বলে দলীয় কর্মসূচী তো বন্ধ রাখা যায় না। বেহালা পশ্চিমের বিজয়া সম্মিলনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দেবাশিস কুমার, রত্না চট্টোপাধ্যায়, তারক সিং-এর মতো নেতা-নেত্রীরা।

শুধু তাই নয়, দেখা মিলল বেহালা পূর্বের সব কাউন্সিলরদেরও। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং মিষ্টি মুখের মধ্য দিয়ে আয়োজিত হয় বিজয়া সম্মিলনীর অনুষ্ঠান। দলের পুরানো কর্মীদের সংবর্ধনা দেওয়া হয় মঞ্চ থেকে। দেবাশিস কুমার, রত্না চট্টোপাধ্যায় সবাই নিজের নিজের মতো করে বক্তব্য রেখেছেন। দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের মনোবল চাঙ্গা করার চেষ্টা করেছেন। বিজেপিকে আক্রমণ করা হয়েছে এই সভা থেকে। একই সঙ্গে রাজনৈতিক আক্রমণ থেকে বাদ যায়নি বামেরাও।

বেহালা পশ্চিমে বিজয়া সম্মিলনী বেহালা পশ্চিমে বিজয়া সম্মিলনী

আরও পড়ুন: ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়, কোথায় অবস্থান করছে সিত্রাং? সকাল থেকে কলকাতার আকাশে মেঘ

বিধায়ক পার্থ চট্টোপাধ্যায় থাকলেন কি থাকলেন না, সেটিকে আপাতত বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে না দল। দল যে সবার ঊর্ধ্বে সেই কথাটিই যেন বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে এই বিজয়া সম্মিলনীর মঞ্চ থেকে৷ দেবাশিস কুমার যেমন সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে জানিয়েছেন, “কে আছেন বা কে নেই, সেটি বড় কথা নয়। তৃণমূল কংগ্রেস আছে। তৃণমূল আছে বলেই এত কর্মী ও সমর্থক আজ এখানে এসেছেন। তৃণমূলের আসল শক্তিই হল দলের সহকর্মীরা। সেটাই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বার বার বলেছেন। আজ বেহালা পশ্চিমে এত কর্মী আমাদের আছে, এখানকার সংগঠন অত্যন্ত মজবুত।”

আরও পড়ুন: ডায়মন্ড হারবার টু ফরাক্কা, অব্যবহৃত জমিতে হোটেল-রিসর্ট গড়ার ভাবনা বন্দরের

উল্লেখ্য, দল ইতিমধ্যেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে খানিক দূরত্ব তৈরি করে নিয়েছে। মন্ত্রিত্ব থেকে সরানো হয়েছে। দলের সমস্ত পদ থেকেও সরানো হয়েছে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। এও জানানো হয়েছে, যদি কারও কোনও দোষ প্রমাণিত হয়, দল তাঁর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে। তবে পুরনো কর্মীদের অনেকের বক্তব্য আগে বেহালায় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের অফিসে ভিড় জমাতেন সকলে। এখন সেই অফিসের ঠিকানা ভুলেছেন অনেকেই।

Published by:Raima Chakraborty
First published:

Tags: Behala, Bijaya Dashami, Partha Chatterjee, SSC Scam