Pariksha Pe Charcha2020: ‘পরীক্ষা পে চর্চায়’ মোদির ভোকাল টনিকে উচ্ছ্বসিত শিবপুর আইআইইএসটি এর পড়ুয়ারা

Pariksha Pe Charcha2020: ‘পরীক্ষা পে চর্চায়’ মোদির ভোকাল টনিকে উচ্ছ্বসিত শিবপুর আইআইইএসটি এর পড়ুয়ারা

সোমবার শিবপুর আই আই ই এস টি তেই দেখানো হল প্রধানমন্ত্রীর "পরীক্ষা পে চর্চা"। মোদির পরীক্ষার প্রস্তুতির ভাষণে উচ্ছ্বসিত শিবপুরের পড়ুয়ারা?

  • Share this:

#কলকাতা: এরা কেউ স্কুলের দশম বা দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছাত্রী নয়, এরা শিবপুর IIEST-এর ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া। কিছুদিন আগেই NRC ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে ক্যাম্পাসে মিছিল করেছিলেন এই পড়ুয়ারাই। তারাই সোমবার "পরীক্ষা পে চর্চা" তে মোদির ভাষণ এ উচ্ছ্বসিত। শুধু তাই নয়, আগামী দিনে তাদের পরীক্ষার ভার কমাতে প্রধানমন্ত্রী র মোটিভেশনাল বক্তব্য কাজে লাগবে বলেই মত ছাত্র ছাত্রীদের। শনিবার কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক এর তরফে মোদী র "পরীক্ষা পে চর্চা" দেখানোর নির্দেশিকা পেতেই তড়িঘড়ি ছাত্র ছাত্রীদের তা দেখানোর ব্যাবস্থা করে কতৃপক্ষ। সোমবার সকাল ১১ টা থেকে সেইমত ছাত্র ছাত্রীরাও অডিটোরিয়াম এ উপস্থিত হয়।

"ব্যর্থতাই সাফল্যের সিঁড়ি"। সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পরীক্ষা পে চর্চায় এই মন্তব্যের সঙ্গে সঙ্গেই অডিটোরিয়াম জুড়ে তখন চলছিল শুধুই ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র-ছাত্রীদের হাততালি। সোমবার এটাই ছিল শিবপুর আই আই ই এস টি এর ছবি। দিল্লিতে দাঁড়িয়ে বোর্ডের পরীক্ষার আগে নরেন্দ্র মোদি যখন ছাত্র-ছাত্রীদের মোটিভেশনাল বক্তব্য দিয়ে উদ্ধুদ্ধ করছিলেন তখনই  এ রাজ্যের শিবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ারাও তাদের পরীক্ষা দিতে যাওয়া আগের ভয়টাকে কাটিয়ে নিচ্ছিলেন। সোমবার ছাত্রদের উদ্দেশ্যে মোদি বলেন "মোটিভেশন ও ডি মোটিভেশন খুবই স্বাভাবিক বিষয়। এক্ষেত্রে আমি চন্দ্রযান টু এর সময় ইসরোর সফর ও কঠোর পরিশ্রম রত বিজ্ঞানীদের সঙ্গে সময় কাটানোর কথা কোনদিন ভুলবো না।"ব্যর্থতায় মন খারাপ না করে বার্তা দিয়ে মোদি এও মনে করিয়ে দেন চন্দ্রযান টু এর কথা। শুধুু তাই নয়়,একাগ্রতার কথা তুলে ধরতে গিয়ে তিনি মনে করিয়ে দেন প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার অনিল কুম্বলে, রাহুল দ্রাবিড়ের মত ক্রিকেটারদের ভূমিকার কথা। তাদের ভূমিকার কথা মনে করে দিয়ে তিনি বলেন "এটা প্রেরণা ও ইতিবাচক ভাবনা র শক্তি"।

আর মোদির এই ভোকাল টনিক এ উচ্ছ্বসিত শিবপুরের ইঞ্জিনিয়ারিং  পড়ুয়ারা। এ প্রসঙ্গে শিবপুরের এক ছাত্র অভিষেক সাহা বলেন "ওনার এই বক্তব্য শুধুমাত্র দশম দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের উৎসাহিত করবে তা নয়, আমাদেরও সমানভাবে উৎসাহিত করেছে।"আরো এক ছাত্র ঋতম কর্মকার বলেন "অনেক সময় বাবা-মায়ের সঙ্গে সন্তানদের দূরত্ব তৈরি হয়ে যায়। সেক্ষেত্রে এই বক্তব্য ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে অনেকটাই অনুপ্রেরণা দেবে।"এদিন পড়ুয়াদের পাশাপাশি শিবপুরের অধ্যাপক অধ্যাপিকা রাও "পরীক্ষা পে চর্চা" তে উপস্থিত ছিলেন।

SOMRAJ BANDOPADHYAY

First published: January 20, 2020, 6:04 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर