Home /News /kolkata /
ফি মকুবের দাবিতে বিক্ষোভ রাজডাঙার স্কুলে ধুন্ধুমার, কড়েয়া, ভবানীপুরের স্কুলেও বিক্ষোভ

ফি মকুবের দাবিতে বিক্ষোভ রাজডাঙার স্কুলে ধুন্ধুমার, কড়েয়া, ভবানীপুরের স্কুলেও বিক্ষোভ

এপ্রিল, মে, জুন....তিনমাসের ফি পুরো মকুব করে দেওয়ার দাবিতে সরব হন অভিভাবকরা।

  • Share this:

#কলকাতা: বেশ কিছুদিন ধরেই বেসরকারি স্কুলগুলোতে ফি কমানোর দাবিতে সোচ্চার হচ্ছেন অভিবাবকরা। লকডাউনে স্কুল বন্ধ থাকলেও কেন সম্পূর্ণ মাইনে নেওয়া হবে সেই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। শুক্রবার শহরের তিনটি স্কুলে দেখা গেল সেই এক ছবি। এপ্রিল, মে, জুন। তিনমাসের ফি পুরোপুরি মকুব করতে হবে। অভিভাবকদের এই দাবি ঘিরে শনিবার ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায় রাজডাঙার RN সিং মেমোরিয়াল স্কুলে। দফায় দফায় চলে বিক্ষোভ। প্রিন্সিপালের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন অভিভাবকরা। শুধু রাজডাঙাই নয় ভবানীপুর, কড়েয়াতেও ফি কমানোর দাবিতে স্কুলে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা।

শুক্রবার ফি মকুবের দাবিতে বিক্ষোভ রাজডাঙার স্কুলে ধুন্ধুমার। প্রিন্সিপালের সঙ্গে অভিভাবকদের বচসা বেঁধে যায়। লকডাউনে বন্ধ স্কুল। অনলাইনে চলছে পড়াশোনা। এই পরিস্থিতি ফি কমানোর দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন অভিভাবকরা। শনিবার এই নিয়ে তুলকালাম বেঁধে যায় কসবার রাজডাঙার RN সিং মেমোরিয়াল স্কুলে। এদিন সকাল দশটা থেকে স্কুলের সামনে শুরু হয় বিক্ষোভ।

এপ্রিল, মে, জুন....তিনমাসের ফি পুরো মকুব করে দেওয়ার দাবিতে সরব হন অভিভাবকরা। স্কুলের গেটের সামনে চলে বিক্ষোভ। স্কুলে আটকে পড়েন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। প্রথমে প্রিন্সিপালের সঙ্গে দেখা করতে চাইলেও তিনি দেখা করতে চাননি বলে অভিযোগ। এরপর পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। স্কুলের মেন গেটের সামনে চলতে থাকে বিক্ষোভ। ঘটনাস্থলে যায় কসবা থানার পুলিশ। কিন্তু, অভিভাবকদের বুঝিয়েও কোনও লাভ হয়নি। ফি মকুবের দাবিতে অনড় থাকেন বিক্ষোভকারীরা।

   দুপুর ৩টে নাগাদ, অভিভাবকদের সঙ্গে কথা বলতে আসেন প্রিন্সিপাল। তাঁর সঙ্গে রীতিমতো বচসায় জড়িয়ে পড়েন অভিভাবকরা। শেষমেশ অভিভাবকদের দাবি খতিয়ে দেখার আশ্বাস প্রিন্সিপাল দিলে বিক্ষোভ ওঠে। পয়লা জুলাই পরবর্তী সিদ্ধান্ত।

  এর আগে কড়েয়া থানা এলাকার অশোক হল স্কুলের সামনেও বিক্ষোভ চলে। ফি কমানোর দাবি জানান অভিভাবকরা। তবে স্কুল কর্তৃপক্ষ এ দিন না থাকায় কথা বলতে পারেনি অভিভাবকরা। ভবানীপুরের জুলিয়ান ডে স্কুলেও এক ছবি দেখা যায়। টিউশন ফি কমানোর দাবিতে সরব হন অভিভাবকরা। সব স্কুলের অভিভাবকদেরই এক সুর। পরিস্থিতি বিচার করে টিউশন ফি ছাড়া বাকি বেতন মুকুব করা হোক।

ERON ROY BURMAN

Published by:Debalina Datta
First published:

Tags: Corona Virus, Coronavirus, School Fee

পরবর্তী খবর