Home /News /kolkata /
21st July || আমি চাই ভারতে একটাই আদর্শবান দল থাকুক যার নাম তৃণমূল কংগ্রেস : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

21st July || আমি চাই ভারতে একটাই আদর্শবান দল থাকুক যার নাম তৃণমূল কংগ্রেস : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

21st July || সাবধান করেছেন কর্মীদেরও, "আমার কাছে দুটো খবর এসেছে। একুশে জুলাইয়ের নামে টাকা তুলেছে। এটা করবেন না। আমি এটা বরদাস্ত করব না।"

  • Share this:

#কলকাতা: "আজকের এত বৃষ্টি যখন আপনাদের একজনকেও সরাতে পারেনি তখন জেনে রাখবেন ২০২৪ এ দিল্লি থেকে বিজেপিকে সরিয়ে দেবে। একুশে জুলাই বৃষ্টি হয়। বিজেপি খুব হাসছিল। আর সিপিএম খুব কাঁদছিল। ভেবেছিল মিটিংটাই বুঝি বাতিল হয়ে যায়।" মঞ্চ থেকে ইঙ্গিতবাহী ভাষণ দিয়েই বক্তব্য শুরু করলেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

তুলে ধরলেন রাজ্যের উন্নয়নের কথা৷ "তৃণমূল কংগ্রেস থাকলে ফ্রি তে রেশন পাবেন, লক্ষীর ভান্ডার পাবেন, স্বাস্থ্যসাথী পাবেন, রূপশ্রী পাবেন। কেন্দ্রের রিপোর্ট বলছে আয়ের দিক থেকে পশ্চিমবঙ্গের কৃষকরা সবচেয়ে ভাল জায়গায় আছে। আমার চ্যালেঞ্জ একদিকে কৃষি আর অন্যদিকে শিল্প। জোর করে কারও ঘর ভাঙব না, জোর করে কারও জমি নেব না জঙ্গলমহল সুন্দরী প্রকল্পে ৭২ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ হচ্ছে। দেউচাতে সবচেয়ে ভালো কয়লা পাওয়া গিয়েছে। দেউচা হয়ে গেলে আগামী ১০০ বছর বিদ্যুতের অভাব হবে না। বরং আমরা বিদ্যুৎ বিক্রি করতে পারব।শিক্ষা ক্ষেত্রে ১৭ হাজার চাকরি রেডি আছে। কোর্টে কেস চলছে তাই করতে পারছি না। বিজেপি শু ধু ভুল ধরছে। বলছে বাংলার লোককে চাকরি দেওয়া যাবে না। আলবৎ দেব। তোমার ক্ষমতা থাকলে রুখে দেখাও।কাজ করতে গেলে ভুল হয়। যদি কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে ভুল করে তাহলে তার ফল সে পাবে।"

আরও পড়ুন: ২০২৩ পঞ্চায়েত-২০২৪ লোকসভা, একুশের মঞ্চে তৃণমূলের লক্ষ্য জানালেন সৌগত রায়!

আরও পড়ুন: হাতে ওয়াকিটকি, উড়ছে ড্রোন, একুশে জুলাইতে ডাকাবুকো আরাবুলকে চেনা দায়!

কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না সিপিএমকেও৷ বললেন, "সিপিএমের আমলে কিভাবে চাকরি হয়েছিল। ওদের একটা কাগজ আছে। সেই কাগজে যারা চাকরি করেন তাদের স্ত্রীরা  কীভাবে স্কুলে চাকরি পেয়েছে? বিকাশরঞ্জন বাবু, আপনার আমলে কাদের কাদের বার্থ সার্টিফিকেট দিয়েছিলেন? সেই ফাইলগুলো কি একবার দেখাবো ?"

মঞ্চে দলনেত্রী৷ রক্ত গরম হচ্ছে কর্মী-সমর্থকদের৷ জোরাল, উদাত্ত কণ্ঠে বক্তব্য রাখছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কিন্তু এমনটা যে হবে আশা করেননি কেউই৷ দলনেত্রী স্বয়ং চেয়ে বসলেন মুড়ি৷  "এই কেউ মুড়ি এনেছ? একটু দাও তো৷ গ্রাম-বাংলার এত মানুষ এসেছেন, মুড়ি তো আনবেনই৷" সবাই মুখ চাওয়া-চাওয়ি করছে তখন৷ মুড়ি পাওয়া গেল৷ পৌঁছে গেল দলনেত্রীর কাছে৷ না! খাওয়ার জন্য তিনি মুড়ি চাননি বরং এই মুড়ি দিয়েই একুশের মঞ্চ থেকে আঙুল তুললেন নিদারুণ এক সত্যের দিকে৷ মুড়ি দিয়েই প্রতিবাদ জানালেন মুড়ির উপর বসানো জিএসটির৷ এমন ইঙ্গিতবাহী প্রতিবাদ আগে কেউ দেখেন নি৷

মধ্যবিত্তদের কপালে ভাঁজ পড়েছে আবারও। বেশ কিছু নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যে জিএসটি চালু হয়েছে। চাল, ডাল, মুড়িতে আগে কোনও জিএসটি ছিল না। কিন্তু জিএসটি কাউন্সিলের নয়া নির্দেশিকায়  মুড়িতে পর্যন্ত বসছে জিএসটি। তারই প্রতিবাদ জানালেন দলনেত্রী৷ "মুড়িতে জিএসটি, মিষ্টিতে জিএসটি, দইতে জিএসটি, লস্যিতে জিএসটি, নকুলদানাতে জিএসটি, বাতাসাতে জিএসটি, বিজেপি মুড়ি খায় না?  লোকে কী খাবে? খাব কী আমরা? মানুষ খাবে কী? আমাদের মুড়ি ফিরিয়ে দাও, নইলে বিজেপি বিদায় নাও..."  দলনেত্রীর ভাষণে কেঁপে উঠল তিলোত্তমা!

আরও পড়ুন: একুশের মঞ্চে অভিষেক 'ম্যাজিক', উচ্ছ্বাসে ভাসল জনতা! বক্তব্য থামালেন সুদীপ

"সরকার ভাঙছে, ব্যাঙ্ক বন্ধ করে দিচ্ছে। কোল ইন্ডিয়া, চা এর টাকা কলকাতা থেকে নিয়ে যায়।রেল, সিভিল এভিয়েশন, সেইল বন্ধ। এখন নতুন নিয়ে এসেছে অগ্নিপথ। গ্যাসের দাম বাড়ানোর সরকার, আর নেই দরকার। কী সুন্দর একটা সরকারের আমলে আমরা বাস করছি! আপনারা কি চান এমন সরকারের আমলে বাস করি? বিত্তবান হ‌ওয়া দরকার না কি বিবেকবান হ‌ওয়া দরকার? বাংলা ভাঙা যাবে না। এখানে রয়াল বেঙ্গল টাইগার আছে। বাংলার মানুষ মাথা নত করতে জানে না। বাংলার মানুষ মাথা উঁচু করে চলে।‌বাংলার মানুষ শুধু মানুষের সামনে মাথা নত করে।একশো দিনের টাকা দিচ্ছে না। সব টাকা বন্ধ করে দিয়েছে। কেন? বাংলাকে অর্থনৈতিক ভাবে ব্লকড করে দিচ্ছে। এমন চললে আমরা দিল্লিতে ঘেরাও করব।"  তুলোধনা করলেন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে৷

আমরা নতুন কমিটি তৈরির কথাও বললেন মমতা৷ জানালেন, "৯ অগস্ট বিশ্ব আদিবাসী দিবস। ওটা পালন করা হবে। তবে ওইদিন মহরম আছে, তাই সকাল সকাল পালন করে নিতে হবে। ২২ অগস্ট দুর্গাপুজো নিয়ে আলোচনা হবে ব্লকে ব্লকে৷ ২৮ অগস্টের ছাত্রপরিষদের প্রতিষ্ঠা দিবস অনুষ্ঠান ২৯ অগস্ট হবে। ১ সেপ্টেম্বর সারা রাজ্যে ইউনেস্কোকে ধন্যবাদ জানিয়ে মিছিল হবে।‌ কলকাতায় আমরা মিছিল করব। আমি দেখতে চাই আমার বিধায়করা সাইকেল নিয়ে এলাকায় ঘুরবেন, আমার সাংসদরা পায়ে হেঁটে ঘুরবেন।"

পাশাপাশি, সাবধান করেছেন দলর কর্মীদেরও, "আমার কাছে দুটো খবর এসেছে। একুশে জুলাইয়ের নামে টাকা তুলেছে। এটা করবেন না। আমি এটা বরদাস্ত করব না।"

দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, "আমি চাই ভারতে একটাই আদর্শবান দল থাকুক যার নাম তৃণমূল কংগ্রেস।" শোনালেন নতুন কিছু স্লোগান, "২৪ এ বিজেপির কারাগার ভাঙো, মানুষের সরকার আনো।" "এই ভোট হবে ভোট ফর রিজেকশন, নট ভোট ফর ইলেকশন।" জয় বাংলা-র পাশাপাশি নতুন শ্লোগান জয় ভারত।

"জয় বাংলা দিচ্ছে ডাক জয় ভারত বেঁচে থাক"

Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: 21 July TMC Shahid Diwas, Mamata banejee

পরবর্তী খবর