নির্বাচনের আগে ফের অস্ত্র চক্রে জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার কলকাতা পুলিশের গুন্ডা দমন শাখার

প্রতীকী ছবি

ধৃত তিন অস্ত্র কিনতো এমনটাই দাবি গোয়েন্দাদের | কলকাতা পুলিশের গুন্ডা দমন শাখা নির্বাচনের আগে ফের অস্ত্র উদ্ধার করল |

  • Share this:

    #কলকাতা: নির্বাচনের আগে ফের আগ্নেয় অস্ত্র উদ্ধার করল কলকাতা  পুলিশের গুন্ডা দমন শাখা | ঘটনায় গ্রেফতার তিন | ধৃতদের নাম,মৌসিন ইসলাম,সফিকুল গাজী ও আশানুর ইসলাম ওরফে  আসান্তি ইসলাম | রাজারহাট চৌমাথা  থেকে গুন্ডা দমন শাখা  গ্রেফতার  করেছে | ধৃতদের থেকে উদ্ধার ৭এমএম পিস্তল, তিনটি  কার্তুজ,  ম্যাগাজিন ও একটি স্কুটার | ধৃত  মহসিনের  বাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগনার  কাশিপুর  এলাকায়, সফিকুলের বাড়ি উত্তর  ২৪ পরগনার  গোবরডাঙ্গা, মেটিয়াব্রুজ রবীন্দ্রনগর এলাকায়, ও আসানূরের  বাড়ি  মাছিভাঙ্গা  এলাকায় | ধৃত তিন অস্ত্র কিনতো এমনটাই দাবি গোয়েন্দাদের | কলকাতা পুলিশের গুন্ডা দমন শাখা নির্বাচনের আগে ফের অস্ত্র উদ্ধার করল |

    এর আগে বাবুঘাট থেকে ইয়াসমীন বেগম,শা রুখ মিস্ত্রি যাদের গুন্ডা দমন শাখা   গ্রেফতাপ করেছিল তাদের থেকে এই ধৃত  তিন যুবক  অস্ত্র কিনত  |  বিহারের মুঙ্গের  থেকে ওই অস্ত্র আসত শহরে| গোয়েন্দা  সূত্রের খবর, ধৃতদের থেকে একটি স্কুটার ও উদ্ধার হয়েছে | ওই স্কুটার করেই ভাঙড় থেকে অস্ত্র নিতে  এসেছিল  ধৃতরা | স্কুটারের  মধ্যে থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয় | এর আগে বাবুঘাট  থেকে ধৃত  ইয়াসমিন  ও শাহরুখ যে অস্ত্র বিহারের মুঙ্গের থেকে আনতো তা বারুইপুড়ে আব্দুল গাজীকে দিত  |  পাশাপাশি  এই তিন অভিযুক্ত  অর্থাৎ  মহসিন, সফিকুল ও আসানূর ওই অস্ত্র কিনত  ইয়াসমিন  ও শাহ রুখের থেকে | আব্দুল সেই অস্ত্র বসিরহাট, মালঞ্চ  ও হাসনাবাদে  সরবরাহ  করত |  অন্যদিকে মহসিন  ও তার সাগরেদরাও  দক্ষিণ চব্বিশ  পরগনা ও শহরতলীর  একাধিক জায়গাতে অস্ত্র সরবরাহ করত|

    আরও পড়ুন 'লেডিস মানি ব্যাগ'-র আড়ালে মাদক পাচার! উদ্ধার প্রায় সাড়ে পাঁচ কেজি চরস

    গোয়েন্দা সূত্রের খবর, অস্ত্র পাচারকারী এই বিশাল চক্রতে আরও অনেকে জড়িত রয়েছে  |  তাদেরকে খোঁজ করছে গোয়েন্দারা | কলকাতা  পুলিশের নগরপাল অনুজ শর্মা  নির্দেশ  দেন  ক্রাইম  বৈঠকে , প্রতিটি থানাকে কড়া  পদক্ষেপ নিতে  হবে |  নির্বাচনের আগে শহরে  বেআইনি  অস্ত্র চোরাচালান  রুখতে বিশেষ কড়া  নজরদারি চালানো হচ্ছে | সঙ্গে " ট্রাবল মঙ্গার্স " অর্থাৎ  যারা এলাকায় গন্ডগোল পাকায়  এবং  " হিস্ট্রি  শিটারদের "অর্থাৎ  যারা বেআইনি আগ্নেয়াস্ত্র রাখা,  তোলাবাজি, রাজনৈতিক  দলের হয়ে ঝামেলা  পাকানো সহ নানা মামলায়  একাধিকবার পুলিশের খাতায় নাম উঠেছে ও জেল  খেটেছে  এদের উপর বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে |

    এছাড়া শহরে বেআইনি  টাকা বিভিন্ন অসামাজিক  কাজে ভোটের আগে ব্যবহার হয়, তা  রুখতেও বিশেষ পদক্ষেপ কলকাতা  পুলিশের | যেকটা শুটআউট সহ বড়ো গন্ডগোল  হয়েছে সেগুলি খতিয়ে  দেখে  এই  ট্রাবল  মঙ্গের্সদের  ও হিস্ট্রি  সিটার্সদের  চিহ্নিত  করার কাজে থানাগুলিকেও জোর দিতে বলা বলেছে লালবাজার  | সঙ্গে এই কাজে সক্রিয়  হতে বলা হয়েছে লালবাজারের গোয়েন্দা  বিভাগের গুন্ডা দমন শাখাকেও | এই অস্ত্র পাচার  চক্রে আর কারা জড়িত খতিয়ে দেখা হচ্ছে |

    ARPITA HAZRA

    Published by:Pooja Basu
    First published: