• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ‘মিথ্যেবাদীর সরকার রাজ্যের বকেয়া ৮৫ হাজার কোটি দেয়নি,৩ হাজার কোটির মূর্তি বসাচ্ছে’, মোদি সরকারকে তীব্র কটাক্ষ কাকলির

‘মিথ্যেবাদীর সরকার রাজ্যের বকেয়া ৮৫ হাজার কোটি দেয়নি,৩ হাজার কোটির মূর্তি বসাচ্ছে’, মোদি সরকারকে তীব্র কটাক্ষ কাকলির

কৃষক আন্দোলন থেকে দলিত অত্যাচার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে কোনও হাতিয়ারই ছাড়েননি তৃণমূলের এই নেত্রী ৷

কৃষক আন্দোলন থেকে দলিত অত্যাচার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে কোনও হাতিয়ারই ছাড়েননি তৃণমূলের এই নেত্রী ৷

কৃষক আন্দোলন থেকে দলিত অত্যাচার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে কোনও হাতিয়ারই ছাড়েননি তৃণমূলের এই নেত্রী ৷

  • Share this:

#কলকাতা: বাংলা বঞ্চিত করছে কেন্দ্র ৷ রাজ্যের বকেয়া টাকা দেওয়ার টাকা নেই ওদিকে তিন হাজার কোটি টাকার মূর্তি বসাচ্ছে কেন্দ্র ৷ কেন্দ্রীয় প্রকল্পের হাজার হাজার কোটি টাকা বকেয়া ৷ এই সুরের কেন্দ্রের গেরুয়া সরকারকে নিশানা করলেন তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার ৷

এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের সাংবাদিক বৈঠকে বক্তা ছিলেন কাকলি ঘোষদস্তিদার ৷ কৃষক আন্দোলন থেকে দলিত অত্যাচার কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে কোনও হাতিয়ারই ছাড়েননি তৃণমূলের এই নেত্রী ৷ তাঁর অভিযোগ, ঘূর্ণিঝড়ের পরে প্রধানমন্ত্রী রাজ্যে ঘুরে গেলেও, মাত্র এক হাজার কোটি টাকা অগ্রিম দেওয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ে রাজ্যের ৩২ হাজার ৩১০ কোটি টাকার সম্পত্তি ক্ষতি হয়েছে বলে বারাসতের সাংসদের মন্তব্য, ছেলে ভোলানোর জন্য কিছু টাকা দিয়ে গিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। বিভিন্ন প্রকল্প বাবদ কেন্দ্রের থেকে রাজ্যের প্রায় ৮৫ হাজার কোটি টাকা বকেয়া থাকলেও, কেন্দ্র তা দিচ্ছে না অভিযোগ করে কাকলি ঘোষ দস্তিদার ৷

দিল্লির কৃষক আন্দোলন থেকে দলিত হত্যা, সাংবাদিক হত্যা, হাতরাস ধর্ষণ- কাকলি তুলে আনেন একের পর এক প্রসঙ্গ ৷ বলেন, ‘এই সরকার কৃষক দরদী নয়। রাস্তা কেটে ট্রাক্টর আটকানো হয়। ঠান্ডায় জল কামানে ভিজিয়ে, লাঠি পেটা করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোকে ধ্বংস করা হচ্ছে ৷ বিজেপির আমলে মানুষের জীবনের মূল্য নেই ৷ কৃষকদের কোনও সম্মান করেন না। ২০২২ মধ্যে যে ভাবে আয় বৃদ্ধি ঘটাবেন বলেছেন তা হবে না। যে কৃষক বিলের প্রতিবাদ করছেন তাকে মারধর করছেন। রাস্তা কেটে কৃষক আটকেছে৷ আপনি কেন দাবি শুনছেন না? আপনি কথা কেন বলছেন না৷ তৃণমূল গুন্ডার দল নয়। আমরা অনেকবার কৃষক নিয়ে আন্দোলন করেছি। ’

বারাসতের সাংসদ নিশানায় ছিল অমিত শাহের রাজ্য সফরও ৷ বলেন, ‘ভোটের আগে দলিত বাড়িতে হোটেলের খাবার খায় ৷ ভোট মিটলে দলিতদের উপর অত্যাচার৷ শুধু দলিতদের পুড়িয়ে মেরে দেওয়া নয়। এখন সাংবাদিকদের মেরে দেওয়া হচ্ছে উত্তর-প্রদেশে।’কাকলি ঘোষদস্তিদারের কথাও উঠে আসে বহিরাগত ইস্যু ৷ বলেন, ‘গুজরাত,মধ্যপ্রদেশ থেকে এসে বাংলা দখলের চেষ্টা ৷ বাংলা দখল করা এত সহজ নয় ৷’

দলের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠলে নেত্রী বলেন, ‘বাংলায় একজনই নেত্রী। মানুষের মনে তিনি। আমরা বলছি পালটা উঠেছে আওয়াজ বঙ্গে, বাংলা এবার দিদির সঙ্গে ৷’ শীতের পারদ পতনের থেকেও দ্বিগুণ গতিবেগে চড়ছে রাজনীতির উষ্ণতা ৷ বিজেপি তৃণমূলের আক্রমণ পাল্টা আক্রমণে সরগরম বাংলার রাজনৈতিক ময়দান ৷

Abir Ghosal

First published: