Home /News /kolkata /
Kolkata Corporation: কলকাতা পুরসভায় চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণায় তদন্ত লালবাজার সাইবার ক্রাইম সেলের

Kolkata Corporation: কলকাতা পুরসভায় চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণায় তদন্ত লালবাজার সাইবার ক্রাইম সেলের

৩১ মে নিউজ এইট্টিন বাংলা ডিজিটাল খবর করেছিল এই প্রতারণার।

  • Share this:

#কলকাতা: কলকাতা পুরসভার চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা। লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা পুরসভার ভুয়ো মেইল একাউন্ট ব্যবহার করে। ৩১মে পুরসভা বিষয়টি জানতে পারে।

জয়েন্ট সিপি ক্রাইমকে অভিযোগ জানিয়েছিলেন পুর সচিব হরিহর প্রসাদ মন্ডল। লালবাজারের সাইবারক্রাইম ঘটনার তদন্ত শুরু হল।

৩১ মে নিউজ এইট্টিন বাংলা ডিজিটাল খবর করেছিল এই প্রতারণার। সেই খবর দেখে সক্রিয় হয় পুরসভা। ১লা জুন কলকাতা পুরসভার সচিব বিভাগের থেকে যোগাযোগ করা হয় লালবাজারে। তবে প্রতারিত যুবককে নিউমার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের করতে বলা হলেও তিনি কোনও অভিযোগ দায়ের করেনি এখন পর্যন্ত।

পুরসভায় চাকরির নামে ৫ লক্ষ টাকার প্রতারণা। কলকাতা পুরসভার চাকরি পাইয়ে দেওয়ার টোপ, আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ উঠল। অভিযোগকারীর নাম অঞ্জন মণ্ডল। তিনি উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাটের বাসিন্দা। অভিযোগ, চাকরি দেওয়ার নাম করে তাঁর কাছ থেকে তিন দফায় পাঁচ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়েছে। টাকা নেওয়ার আগে বিশ্বাসযোগ্যতা তৈরি করতে পুরসভার কাউন্সিলর রুমে চাকরি প্রার্থীর ইন্টারভিউ এর ব্যবস্থা করা হয়। মোট 5 লক্ষ অভিযুক্ত ব্যাক্তি টাকা নিয়ে বেপাত্তা।

আরও পড়ুন Kolkata News: টিকার বিশেষ কর্মসূচিতে কলকাতা পুরসভার কিছু ওয়ার্ডের অনীহা, চিন্তায় পুরকর্তারা

ওই অভিযোগকারী মঙ্গলবার কলকাতা পুরসভার কেন্দ্রীয় ভবনে এসে হাজির হন। পুর সচিবের সঙ্গে দেখা করার তদ্বির করেন। বিষয়টি জানতে পেরে নিচে পুরসভার ওসিকে তলব করেন সচিব হরিহরপ্রসাদ মণ্ডল।  অভিযোগকারী দেওয়া তথ্য থেকে জানা যায়, পুর সচিব বিভাগের  ই-মেল থেকে একটি মেল করা হয়েছিল। সেখানেই সব কাগজপত্র পাঠাতে বলা হয়। পুরসভায় চাকরি দেওয়ার নাম করে  পাঁচ লক্ষ টাকা নেওয়া হয়। কিন্তু এখন কোনও অ্যাপয়েনমেন্ট লেটার তাঁকে দেওয়া হয়নি।   বেগতিক বুঝে তিনি সরাসরি পুরসভায় এসে হাজির হয়েছেন। পুর সচিবালয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বিষয়টি পুরোটাই ধাপ্পাবজি। প্রতারিত হয়েছেন ওই ব্যাক্তি। যে ই-মেল ব্যবহার করা হয়েছে,  তা পুরসভার সচিবেরও নয়, এমনকি পুরসভার কোন বিভাগের নয়। এই অবস্থায় নিউমার্কেট থানায় অভিযোগ দায়ের করার চিন্তাভাবনা পুরসভার। তার আগে আগামিকাল দুপুরে সমস্ত তথ্য প্রমাণ নিয়ে তাকে ফের পুরসভায় আসতে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর।কলকাতা পুরসভার চাকরি দেওয়ার নামে লক্ষ লক্ষ টাকার এই  প্রতারণা পুরসভার অভিযোগ পেয়ে তদন্ত শুরু করেছে লালবাজার।

জয়েন্ট সিপি ক্রাইমের নির্দেশে পুর সচিব হরিহর প্রসাদ মন্ডলের অফিশিয়াল একাউন্ট এবং পুরুষ বিভাগে অন্যান্য মেইল একাউন্ট কিভাবে ব্যবহার করা হয়েছিল তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।  লালবাজারের সাইবারক্রাইম ঘটনার তদন্ত শুরু করলো।

Published by:Pooja Basu
First published:

Tags: Cheating, Kolkata Corporation

পরবর্তী খবর