• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • রূপশ্রী প্রকল্পে ব্যাপক সাড়া, ৩ মাসে ৭০ হাজার আবেদনপত্র জমা

রূপশ্রী প্রকল্পে ব্যাপক সাড়া, ৩ মাসে ৭০ হাজার আবেদনপত্র জমা

File Photo

File Photo

  • Share this:

    #কলকাতা: কন্যাশ্রীর পর এবার রূপশ্রী ৷ মমতা সরকারের এই প্রকল্পেও মিলল ব্যাপক সাড়া ৷ চলতি বছরের বাজেটে রাজ্য সরকারের ঘোষণা মতো এই নয়া প্রকল্প চালু হয় পয়লা এপ্রিল, ২০১৮ থেকে ৷ শুধু পড়ার নয়, এবার রূপশ্রী প্রকল্পে রাজ্যের মেয়ের বিয়ের খরচও যোগান দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয় রাজ্য ৷

    এই কয়েক মাসের মধ্যেই রাজ্য জুড়ে ব্যাপক সাড়া মিলেছে রূপশ্রী প্রকল্পে ৷ নবান্ন সূত্রে খবর, এই স্বল্প সময়েই ৭০ হাজার আবেদনপত্র জমা পড়েছে ৷ সব থেকে বেশি আবেদনপত্র মুর্শিদাবাদ জেলার ৷ প্রথম ধাপে সমস্ত তথ্য যাচাই ও নথি খতিয়ে দেখার পর ৪৭ হাজার ২৩৩টি আবেদন গ্রহণ করেছে সরকার ৷ এর জন্য রাজ্য সরকারের খরচ হবে ১১৮ কোটি টাকা ৷

    কন্যাশ্রীর পর মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প রূপশ্রী। চলতি বছরের বাজেট পেশের সময় অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র ঘোষণা করেন, রাজ্যের মেয়েদের কল্যাণের উদ্দেশ্যে রাজ্য সরকারের নয়া প্রকল্প রূপশ্রী ৷ এই প্রকল্পে মেয়ের ১৮ বছর বয়স হলেই তাঁর বিয়ের জন্য এককালীন ২৫ হাজার টাকা দেবে সরকার ৷ যেসব পরিবারের বার্ষিক আয় দেড় লক্ষ টাকা বা তার কম, তারাই এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন ৷

    রূপশ্রী প্রকল্পের শর্তাবলী- 1) মেয়ের বয়স অন্তত পক্ষে ১৮ বছর হতে হবে। 2)। পাত্রের বয়স ন্যুনতম ২১ বছর হতেই হবে । 3) মেয়ে ও তাঁর পরিবারকে অন্তত পাঁচ বছরের অধিক সময় ধরে বাংলার বাসিন্দা হতে হবে। 4) অবিবাহিত মেয়েরা একমাত্র প্রথমবার বিয়ের ক্ষেত্রেই শুধু মাত্র এই প্রকল্পে টাকা পাবেন ।

    আরও পড়ুন  চেক বাউন্স করলেই এবার কড়া শাস্তি, তৈরি নয়া আইন

    কিভাবে আবেদন করবেন রূপশ্রী প্রকল্পে?

    অফলাইনে রূপশ্রী প্রকল্পের ফর্ম সংগ্রহ করে অথবা অনলাইন থেকে পাওয়া ফর্ম প্রিন্ট করার পর পূরণ করে জমা করতে হবে সংশ্লিষ্ট দফতরে। মোট ছয় পাতার এই ফর্মের তিনটি পাতা পূরণ করবেন আবেদনকারী, বাকি দুই পাতা সরকারি আধিকারিকদের জন্য বরাদ্দ। ফর্মের সঙ্গে সঙ্গে জমা দিতে হবে প্রয়োজনীয় নথি।

    আরও পড়ুন 

    ক্ষতি সামলাতে ভাড়া বাড়ছে কলকাতা মেট্রোয়?

    নথির তালিকা 1) জমা করতে হবে কনে ও বরের বয়সের প্রমাণপত্র। জন্মের সার্টিফিকেট, ভোটার কার্ড, আধার কার্ড, প্যান, মাধ্যমিকের অ্যাডমিট কার্ডের যে কোনও একটি জমা করলেই হবে। 2) পাত্র ও পাত্রীর একটি করে পাসপোর্ট সাইজ ফটো । 3) বিয়ের কার্ড বা ম্যারেজ রেজিস্টারের কাছ থেকে পাওয়া আবেদনের নথি। 4) মেয়ের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের পাসবুকের প্রথম পাতার জেরক্স।

    রিপোর্ট - তুহিন দাস চন্দ্র

    First published: