দ্বন্দ্ব শেষে হেলিকপ্টারে শান্তিনিকেতনে রাজ্যপাল

দ্বন্দ্ব শেষে হেলিকপ্টারে শান্তিনিকেতনে রাজ্যপাল
ফাইল ছবি

সকাল ৭.৪০ মিনিট নাগাদ হাওড়ার ডুমুরজলা স্টেডিয়াম থেকে রাজ্যপালকে নিয়ে শান্তিনিকেতনের উদ্দেশে ওড়ে হেলিকপ্টার।

  • Share this:

#কলকাতা: হেলিকপ্টার পেলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। বৃহস্পতিবার সকাল ৭.৪০ মিনিট নাগাদ হাওড়ার ডুমুরজলা স্টেডিয়াম থেকে রাজ্যপালকে নিয়ে শান্তিনিকেতনের উদ্দেশে ওড়ে হেলিকপ্টার। ৮.৪৫-এ শান্তিনিকেতন পৌঁছন তিনি। সেখানে মাঘ মেলায় যোগ দেবেন। অনুষ্ঠান শেষে সকাল ১১.১৫-এ শান্তিনিকেতন থেকে রওনা দেবেন। বেলা ১২.১৫-র মধ্যে রাজভবনে পৌঁছে ষাবেন রাজ্যপাল। জানা গিয়েছে, রাজ্যের তরফে ৬ আসন বিশিষ্ট হেলিকপ্টার দেওয়া হয়েছে রাজ্যের তরফে।

মাসকয়েক আগে মুর্শিদাবাদ সফরে যাওয়ার জন্য রাজ্য সরকারের কাছে হেলিকপ্টার চাওয়া হয়েছিল রাজভবনের তরফে। পরে রাজ্যপাল অভিযোগ করেন, জেলা সফরের যাওয়ার নির্ধারিত দিন পেরিয়ে গেলেও সেই চিঠির উত্তর দেয়নি নবান্ন। বাধ্য হয়ে তাই সড়কপথেই মুর্শিদাবাদ, বর্ধমান এবং বীরভূম জেলা সফরে যান রাজ্যপাল ধনখড়। আর এই ঘটনার পর তিনি একাধিকবার ক্ষোভ প্রকাশও করেন। তবে এবার সংঘাত এড়িয়েছে রাজ্য। আজ বিশ্বভারতীর এক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়েছেন রাজ্যপালের।

রাজভবন সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রথমে ঠিক হয়েছিল তিনি সড়কপথেই শান্তিনিকেতন যাবেন। কলকাতা থেকে দুর্গাপুর এক্সপ্রেসওয়ে ধরে পানাগড় তিনি বোলপুর পৌঁছাবেন। কিন্তু ইলামবাজারে অজয় নদের ওপর থাকা সেতুতে সারাইয়ের কাজ চলছে। ফলে সেতুতে ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ। অন্যদিকে, গুসকরা দিয়েও সড়কপথে বোলপুর যাওয়াতেও বেশ কিছু সমস্যা দেখা যায়। এরপরই শান্তিনিকেতনে যাওয়ার জন্য রাজভবনের তরফে রাজ্য সরকারের কাছে হেলিকপ্টার চাওয়া হয়। রাজ্য সরকারের তরফে এবারে তা দেওয়া হয়েছে।

First published: February 6, 2020, 11:45 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर