Home /News /kolkata /
Goutam Deb|| 'মন খারাপ হলেও সায় দিচ্ছেন না শরীর', ২১ জুলাই শহিদ সভায় থাকছেন না গৌতম দেব

Goutam Deb|| 'মন খারাপ হলেও সায় দিচ্ছেন না শরীর', ২১ জুলাই শহিদ সভায় থাকছেন না গৌতম দেব

Gautam Deb will not present at Shahid Mancha on 21 july 2022 : দু'বছর কোভিডের জন্যে শহিদ সভা হয়নি ধর্মতলায়। পরিবর্তে ভার্চুয়াল সভা হয়েছিল। জেলায় জেলায় জায়ান্ট স্ক্রিন লাগিয়ে দলীয় নেতা, কর্মীরা শুনেছিলেন দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

#কলকাতা: এই প্রথম ২১ জুলাইয়ের শহিদ সভায় থাকছেন না তিনি। গত দু'বছর কোভিডের জন্যে শহিদ সভা হয়নি ধর্মতলায়। পরিবর্তে ভার্চুয়াল সভা হয়েছিল। জেলায় জেলায় জায়ান্ট স্ক্রিন লাগিয়ে দলীয় নেতা, কর্মীরা শুনেছিলেন দলনেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য। ২ বছর পর আবার ব্রিগেডের সভা। তাই এ বারে তৃণমূল কর্মী, সমর্থকদের মধ্যে বাড়তি উৎসাহ, উন্মাদনা। ৪-৫ দিন আগেই উত্তরবঙ্গের কর্মী, সমর্থকেরা পৌঁছে গিয়েছেন কলকাতায়। আর ওই দিনই অর্থাৎ ২১ জুলাই বাড়ির চার দেওয়ালে বন্দি থাকবেন তিনি। শিলিগুড়ির মেয়র গৌতম দেব।

শারিরীক অসুস্থতার জন্যে যেতে পারেননি কলকাতায়। এই প্রথম। তাই মন খারাপ। সেই মন খারাপের কথা গতকালই মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে জানিয়েছেন। তাঁর কথায়, "২১ জুলাই মানে আবেগ। সারা বছর আমরা অপেক্ষায় থাকি কবে ভিড় ঠেলে ব্রিগেডের সভায় যোগ দেব। ২১ জুলাই মানে কত স্মৃতি। ট্রেন দেরীতে। অনেক সময় রাত ৩'টেয় হাওড়া স্টেশনে নেমে কলকাতায় পৌঁছেছি। ভিড়ে গাদাগাদি অবস্থা। একবার হাওড়া স্টেশনের প্ল্যাটফর্মে পড়েও গিয়েছিলাম। ঘরে শুয়ে শুয়ে ভিড় করছিল সেই স্মৃতি।"

আরও পড়ুন: শহরে উত্তর-দক্ষিণে 'টেস্ট ড্রাইভ' নীল-সাদা অটোর, চালকের আসনে স্বয়ং ফিরহাদ

শারিরীক অসুস্থতার জন্যে আপাতত বাড়িতেই বিশ্রাম নিচ্ছেন গৌতম দেব। পুরসভাতেও যাচ্ছেন না। সম্প্রতি গুরগাঁওতে এক মাসেরও বেশী সময় ধরে চিকিৎসা করিয়ে ফিরেছেন শিলিগুড়িতে। চিকিৎসক এবং মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ মেনেই চলছেন আপাতত। আরও কিছুদিন বিশ্রাম নেবেন। তারপর পুরসভায় যাবেন। আগামিকাল বাড়ির টিভিই তাঁর কাছে ব্রিগেডের সভার সামিল। মেয়র হওয়ার পর প্রথম ব্রিগেডের সভায় না থাকতে পারায় বিষন্ন গৌতম দেব। তিনি বলেন, "টিভির মধ্যেই নিজেকে শহিদ মঞ্চে বুঁদ করে রাখব। সে ভাবেই নিজেকে তৈরী করছি। মন খারাপ হলেও কিছু করার নেই। শরীর সায় দিচ্ছে না। ঘরে বসেই উত্তরবঙ্গের সব জেলার নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলছেন। দলীয় নেতা, কর্মীদের যাতে কোনও অসুবিধের মধ্যে পড়তে না হয়, সে দিকেও খেয়াল রেখেছেন।"

Partha Sarkar  

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Gautam deb

পরবর্তী খবর