corona virus btn
corona virus btn
Loading

ধানের তুষ ও রং মিশিয়ে লঙ্কার-হলুদ-জিরে গুঁড়ো! শহরের ভেজাল মসলা কারখানায় হানা, গ্রেফতার মালিক

ধানের তুষ ও রং মিশিয়ে লঙ্কার-হলুদ-জিরে গুঁড়ো! শহরের ভেজাল মসলা কারখানায় হানা, গ্রেফতার মালিক

স্ট্র্যান্ড রোড সংলগ্ন জোড়াবাগান ন'নম্বর গলির ভেতরে কারখানা । বহুদিন ধরেই ভেজাল মসলা তৈরীর অভিযোগ আসছিল ।

  • Share this:

#কলকাতা: বড়বাজার এলাকায় ফের ভেজাল মসলা কারখানার হদিশ । গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চ (ইবি) বুধবার হানা দেয় ওই ভেজাল কারখানায় । ভেজাল মশলা তৈরি করতে গিয়ে হাতেনাতে পুলিশের হাতে ধরা পড়ে কারখানার মালিক নওয়াল কিশোর অরোরা । প্রচুর ভেজাল মশলা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে কারখানা থেকে ।

স্ট্র্যান্ড রোড সংলগ্ন জোড়াবাগান ন'নম্বর গলির ভেতরে ওই কারখানায় বহুদিন ধরেই ভেজাল মসলা তৈরীর অভিযোগ আসছিল । বেশ কিছুদিন ধরে কারখানা মালিকের গতিবিধি ও কারখানার ভিতরে কী ধরনের কারবার চলে তার ওপর গোপনে নজর রাখছিলেন কলকাতা পুলিশের এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা । মঙ্গলবার ক্রেতা সেজে সেখানে হানা দেয় ইবি অফিসারেরা । কারখানা থেকে গ্রেফতার করা হয় মালিককে । ধৃতের বিরুদ্ধে খাদ্যে ভেজাল দেওয়ার অভিযোগে মামলা রুজু করা হয়েছে । বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে তোলা হবে ।

ইবি সূত্রে জানা গিয়েছে , মশলার ভিতরে ধানের তুষ ও রং মিশিয়ে তৈরি করা হত লঙ্কার গুঁড়ো, হলুদ গুঁড়ো ও জিরে গুঁড়ো । ইবির এক অফিসার বলেন, ''নিম্নমানের হলুদের সঙ্গে ধানের তুষ ও রং মিশিয়ে ভেজাল হলুদ গুঁড়ো তৈরি করা হত । একইভাবে নিম্নমানের লঙ্কার গুঁড়োর সঙ্গে ধানের তুষ ও রং মিশিয়ে তৈরি করা হত লঙ্কার গুঁড়ো । চিকিৎসকদের মতে, ভেজাল মশলার ভিতরে থাকা এই রং শরীরের পক্ষে অত্যন্ত ক্ষতীকর । দীর্ঘ সময় ধরে খেলে ক্যানসারও হতে পারে । তাই ভেজাল এই মশলা কতটা ক্ষতিকর ও তাতে কী ধরনের ক্ষতিকারক রং মেশানো হত তা জানতে মশলার নমুনা ফুড ল্যাবে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে ।

এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের ডিসি বিশ্বজিৎ ঘোষ জানিয়েছেন, ওই কারখানা থেকে ২১ বস্তা ভেজাল লঙ্কার গুঁড়ো, তিন বস্তা হলুদ গুঁড়ো, ধানের তুষের একাধিক বস্তা ও মশলা মেশানো রং পাওয়া গিয়েছে । মসলার বস্তা সেলাই করার একটি মেশিনও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে । বিশ্বজিৎ বাবু বলেন, "এই ভেজাল মসলা তৈরি করার পর কোথায় কোথায় তা পাঠানো হত এবং এই চক্রে কারা কারা জড়িত তাদের খোঁজ চলছে ।"

SUJOY PAL

Published by: Shubhagata Dey
First published: June 17, 2020, 6:05 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर