• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • CORONA DEATH AND AFFECTED NUMBERS ARE INCREASING IN KOLKATA AGAIN SMJ

Corona Report Of kolkata: কলকাতায় ফের চোখ রাঙাচ্ছে করোনা, ৫ হাজার ছাড়াল মোট মৃত্যুর সংখ্যা, আক্রান্তও সব থেকে বেশি!

Corona In Kolkata: কলকাতায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা রাজ্যের মধ্যে সর্বাধিক।

Corona In Kolkata: কলকাতায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা রাজ্যের মধ্যে সর্বাধিক।

  • Share this:

#কলকাতা: মাঝখানে কিছুদিন একটু স্বস্তি ফিরলেও আবার নতুন করে সিঁদুরে মেঘ ঘনাচ্ছে কলকাতায়। রাজ্যে গত বেশ কয়েকদিন ধরেই দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৫০০ থেকে ৯০০- র মধ্যে ঘোরাফেরা করছে। কলকাতায় মাঝখানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেশ কিছুটা কমের দিকে থাকলেও গত কয়েকদিন ধরে তা ঊর্ধ্বমুখী। শনিবার কলকাতায় করোনা আক্রান্ত হয়েছে ১০৯ জন। আর করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন ৩ জন। কলকাতায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা রাজ্যের মধ্যে সর্বাধিক।

করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজার দু জনের। এখনো পর্যন্ত কলকাতায় মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা 3 লাখ 12 হাজার 608 জন। যদিও রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে বিচার করলে উত্তর 24 পরগনা জেলা সর্বাধিক। এই জেলায় মোট করোনা  আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লাখ ২১ হাজার ৫৭৯ জন। শনিবারও এখানে কলকাতার পরই সর্বাধিক 79 জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেে এবং করোনা আক্রান্ত হয়ে ৩ জনের মৃত্যু পর্যন্ত হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় এখনো পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৪ হাজার ৬২৪ জন।

কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগনার পরেই হাওড়া, হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর এবং পশ্চিম মেদিনীপুর, নদীয়া, উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং এবং জলপাইগুড়ি জেলা এখনো মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তরের কাছে। এই জেলাগুলিতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখনো সেই অর্থে কমছে না। শনিবার গোটা রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্ত হয়েছেন 661 জন। অন্যদিকে, করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন ৬৮৮ জন। আর এদিন করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের। রাজ্যের চিকিৎসক মহলের বক্তব্য, গত বেশ কিছুদিন ধরেই মানুষের মধ্যে লাগামছাড়া মনোভাব বেড়েছে। বিশেষত শহরাঞ্চলে কলকাতা এবং তার আশপাশের এলাকাগুলোতে জনবহুল এলাকায় মাস্ক না করা এবং নূন্যতম শারীরিক দূরত্ব বজায় না রাখা করোনার বাড়বাড়ন্তের অন্যতম প্রধান কারণ।

Published by:Suman Majumder
First published: