রেশন দুর্নীতি রুখতে বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রীর কড়া বার্তা

ফাইল চিত্র

  • Share this:

    #কলকাতা: খাদ্য দফতরের আধিকারিকদের একাংশের বিরুদ্ধে রেশনে দুর্নীতি ও দুর্ব‍্যবহারের অভিযোগ নতুন নয়। এ সব রুখতে কড়া মুখ‍্যমন্ত্রী। শুক্রবার বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে রেশন দুর্নীতি রুখতে তাঁর বার্তা, আধিকারিকদের বিরুদ্ধে রাইট টু সার্ভিস অ‍্যাক্টে অভিযোগ জানানো যায়।

    মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন অভিযোগ পেলে, ওই আধিকারিকদের বিরুদ্ধে সরকার উপযুক্ত ব‍্যবস্থা নিতে পারে। তার জন্য আইনও আছে। আইনকে উপযুক্ত পথে ব‍্যবহার করার পরামর্শ দেন মুখ্যমন্ত্রী ।

    আরও পড়ুন 

    টেট ২০১৪ ঘিরে জটিলতার আশঙ্কা, সঠিক উত্তরের জন্য রিপোর্ট তলব হাইকোর্টের

    মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায়ের দাবি, ৯ কোটির মধ‍্যে ৮ কোটি ৫৯ লক্ষ মানুষকে ২ টাকা কেজি দরে চাল দেয় রাজ‍্য সরকার। বাকিদের ৫০ শতাংশ দামে। তিনি চান না কোনও গরিব মানুষ ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত হোন।

    আরও পড়ুন  সুখবর, ফের বাড়তে পারে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের বেতন

    এদিন বিধানসভায় দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিশানা করেন মুখ‍্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার, প্রশ্নোত্তর পর্বে মমতা বন্দ‍্যোপাধ‍্যায় দাবি করেন, সহায়ক মূল্য নিয়ে ভুল ত‍থ‍্য দিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী । তিনি বিভ্রান্ত করছেন দেশবাসীকে। পশ্চিমবঙ্গে ঋণের দায়ে কোনও কৃষকের মৃত‍্যু হয়নি। কিন্তু সারা দেশে ১২ হাজার কৃষকের মৃত‍্যু হয়েছে।

    আরও পড়ুন 

    প্রাথমিক টেট ২০১২ বাতিল নয়, পর্ষদকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা হাইকোর্টের

    এছাড়া ধানের সহায়ক মূল্য প্রতি কুইন্টালে বেড়েছে ২০০ টাকা। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী বলছেন, ৫০ শতাংশ বেড়েছে। রাজ‍্যে চিকিৎসকের অভাব নিয়েও কেন্দ্রকে দুষেছেন মুখ‍্যমন্ত্রী। তাঁর দাবি, এমসিআইয়ের ভুল নীতির জন্যই রাজ‍্যে ডাক্তার পাওয়া যাচ্ছে না। সরকারি ব‍্যবস্থায় একজন ডাক্তার তৈরি করতে খরচ পড়ে ৩০ লক্ষ টাকা। অথচ, এই ডাক্তাররা কেউ গ্রামে থাকতে চাইছেন না। ডাক্তার কি রাতারাতি তৈরি করা যায়? প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রীর ৷

    First published: