‘উৎসবে কোনও অশান্তি মেনে নেব না’, ভাসান বিতর্কে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া

‘উৎসবে কোনও অশান্তি মেনে নেব না’, ভাসান বিতর্কে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া
Mamata Banerjee

‘উৎসবে কোনও অশান্তি মেনে নেব না’, ভাসান বিতর্কে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া

  • Share this:

#কলকাতা: হাইকোর্টের নির্দেশ মেনেই দুর্গাপুজোর বিসর্জন করতে প্রস্তুতি শুরু হল। রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর, আদালতের নির্দেশ মেনেই বিসর্জন হবে। সমন্বয় বৈঠকেই তা নিশ্চিত করা হয়েছে। বিসর্জন ইস্যুতে রাজনীতি হওয়ায় এদিন ক্ষোভ উগরে দেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চ্যালেঞ্জ, উসকানি দিয়ে অশান্তি ছড়ানোর চক্রান্ত প্রশাসন রুখবেই।

একডালিয়া এভারগ্রীনের উদ্বোধনে এসে মুখ্যমন্ত্রী বলেন,

‘যাদের বাংলার সম্পর্কে ধারণা নেই ৷ তারা আবার বাংলাকে নিয়ে জ্ঞান দেয় ৷ তাদের জ্ঞান শুনলে আমার রাগ হয় ৷ বাংলায় সভ্যতা নেই, সংস্কৃতি নেই ৷ যারা একথা বলে, তাদের জ্ঞান শুনব না ৷ আমায় গালিগালাজ করলে রাগ হয় না ৷ বাংলার কৃষ্টি, সংস্কৃতিকে গালিগালাজ শুনলেই আমার রাগ হয় ৷’

বিসর্জন বিতর্ক নিয়ে ক্ষোভ উগরে দিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসবকে নিয়ে রাজনীতির করার অভিযোগে সরব তিনি।

বাংলায় সাম্প্রদায়িক উসকানির এই কৌশল সফল হবে না বলেও চ্যালেঞ্জ ছোঁড়েন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন,

‘কে, কী পুজো করবে, তা মানুষের অধিকার ৷ সবার উপরে মানবধর্ম, আমি তাতেই বিশ্বাসী ৷ আমি সর্বধর্ম সমন্বয়ে বিশ্বাস করি ৷ আমার কাছে মা-আম্মার কোনও পার্থক্য নেই ৷ রাজ্যের বিরুদ্ধে চক্রান্ত করছে কেন্দ্র ৷ দিল্লির এজেন্সি দিয়ে আমাদের ভয় দেখানো হয় ৷ আমাদের বিরুদ্ধে লাগাতার চক্রান্ত করছে ৷ নানা অপমানজনক কথা বলা হচ্ছে ৷ দেব-দেবী বলে কিছু থাকলে সেসব চক্রান্ত ধূলিস্যাৎ করে দেব ৷ মানুষের রায় সব থেকে বড় রায় ৷’

বিসর্জন নিয়ে হাইকোর্টের রায়ে রাজ্যের মুখ পড়েছে বলে অভিযোগ বিরোধীদের। কেন রাজ্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নেয়, তা এদিনও ব্যাখ্যা করেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ তাঁর যুক্তি, ‘নবমী -একদশীতে বিসর্জন হয় না - সেটাও ওরা জানে না ৷’

বিসর্জন বিতর্কের মাঝেই হাইকোর্টের নির্দেশ মানতে তৎপর হয়েছে প্রশাসন। রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর,

আদালতের নির্দেশ কোনও সমস্যা নয়। বিসর্জন নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না। সমন্বয় বৈঠকে বিস্তারিত কথা হয়েছিল। ফলে আদালতের নির্দেশ মানতে অসুবিধা হবে না। রাজ্য প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে।

বিসর্জন বিতর্ককে পিছনে ফেলে সুষ্ঠুভাবে উৎসব শেষ করাটাই এখন রাজ্য প্রশাসনের চ্যালেঞ্জ।

First published: 08:02:35 PM Sep 21, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर