বউবাজার মেট্রো বিপর্যয়, দ্রুত পুনর্বাসনের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

বউবাজার মেট্রো বিপর্যয়, দ্রুত পুনর্বাসনের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

মমতা বলেন, 'সঠিক সময়ে উদ্ধারকাজ শুরু হয়৷ দ্রুত উদ্ধারকাজ না-হলে আরও ক্ষতি হত৷ কাল মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে পুনর্বাসন নিয়ে কথা হবে৷ ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য একসঙ্গে কাজ করতে হবে৷ এই নিয়ে কোনও রাজনীতি নয়৷'

  • Share this:

#কলকাতা: বউবাজারে মেট্রো প্রকল্পের জেরে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িগুলির পরিস্থিতি খতিয়ে দেখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সোমবার বিকেলে বউবাজারে যান মমতা৷ কথা বলেন ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে৷ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলির অভাব অভিযোগ শুনলেন৷

মমতা বলেন, 'সঠিক সময়ে উদ্ধারকাজ শুরু হয়৷ দ্রুত উদ্ধারকাজ না-হলে আরও ক্ষতি হত৷ কাল মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে পুনর্বাসন নিয়ে কথা হবে৷ ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য একসঙ্গে কাজ করতে হবে৷ এই নিয়ে কোনও রাজনীতি নয়৷'

বাড়িতে ফাটল বাড়িতে ফাটল

শনিবার রাতে বউবাজার এলাকায় ভূমিকম্পের মতো বেশ কয়েকটি বাড়ি কেঁপে উঠে৷ এরপরই বাড়িতে ফাটল দেখা যায়৷ স্থানীয়দের অভিযোগ, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর কাজের জন্যই বাড়িতে ওই ফাটল ধরেছে৷ বাড়ির চাঙড় খসে পড়ছে৷ হেলে পড়েছে বাড়ি৷ ফলে বেশ কয়েকটি বাড়ি ভেঙে পড়ার আশঙ্কা৷ আতঙ্কে বাড়ি ছেড়ে রাস্তায় নেমে আসেন বাসিন্দারা৷ পরে তাদেরকে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়। যে সব বাড়িতে ফাটল দেখা দিয়েছে সেই সব বাড়ি ব্যারিকেড করে রাখা হয়েছে৷

সুড়ঙ্গের কাজ বউবাজারের কাছাকাছি পৌঁছতেই পুরোন বাড়িগুলোতে কম্পন অনুভূত হচ্ছিল বলে দাবি বাসিন্দাদের। এখনও জল মেট্রোর টানেলে। মুম্বই থেকে আশা টানেল বিশেষজ্ঞরা টানেলের পরিস্থিতি দেখবেন। এসপ্ল্যানেড দিয়ে ঢুকবেন টানেলে। বউবাজারে ইস্ট-ওয়েস্টের প্রকল্প ঘিরে সংশয়৷ ভূতত্ববিদদের সাহায্য নিচ্ছে মেট্রো। ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর টানেল খোঁড়ার কাজ শুরু হতেই সমস্যার মুখে কলকাতা মেট্রো রেলওয়ে কর্পোরেশন লিমিটেড।

Loading...

ধর্মতলা থেকে শিয়ালদহ পর্যন্ত দুটো টানেল বোরিং মেশিন দিয়ে টানেল খোঁড়ার কাজ শুরু হয়। কাজ করার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ ছিল এসএন ব্যানার্জি রোড--জানবাজার--সুবোধ মল্লিক স্কোয়্যার, বউবাজার ও কোলে মার্কেট এলাকার প্রায় ৩২৭ টি পুরোন বাড়ি। রবিবার সেই বউবাজারেরই দুর্গা পিতুরি লেনে বাড়ির একাংশ ভেঙে পড়ে।

আরও ভিডিও: বার বার সমীক্ষার পরেও কী ভাবে দুর্ঘটনা?

First published: 06:48:04 PM Sep 02, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर