CAA, NRC বিরোধিতায় আরও সুর চড়াতে চাইছে সিপিএম, 'অল আউট' করার বার্তা

CAA, NRC বিরোধিতায় আরও সুর চড়াতে চাইছে সিপিএম, 'অল আউট' করার বার্তা

৮ জানুয়ারি ধর্মঘট ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কলকাতা সফরের সময় ছাত্র-যুব সংগঠনের কর্মসূচিতে সন্তুষ্ট আলিমুদ্দিন স্ট্রিট।

  • Share this:

UJJAL ROY

#কলকাতা: এনআরসি, সিএএ বিরোধী আন্দোলনের সুর আরও চড়াতে চায় সিপিএম। তারই অঙ্গ হিসেবে সোমবার শহীদ মিনারে সমাবেশ করল সিপিএম কলকাতা জেলা কমিটি। আর এই সভাতেই কবর দেওয়া হল নরেন্দ্র মোদী এবং অমিত শাহকে। এনআরসি, সিএএ বিরোধিতায় 'অল আউট' লড়াইয়ের বার্তা দিতে প্রতিকী ভাবে বিজেপির এই দুই শীর্ষ নেতাকে এদিন কবর দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন সিপিএম নেতৃত্ব ৷

কিন্তু দু'জনকে একটা কফিনেই কেন? এই বিষয়ে সিপিএম নেতা ফৈয়াজ আহমেদ খান বলেন, 'আসলে এর মাধ্যমে বোঝা যাচ্ছে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা কত খারাপ। যেখানে দু'জনের জন্য দুটি কফিন কেনার ক্ষমতাও নেই সাধারণ মানুষের'। সিপিএমের কলকাতা জেলা সম্পাদক কল্লোল মজুমদার জানান, আসলে দেশের মানুষের ক্ষোভ দিন দিন বেড়ে চলেছে। একদিকে যেমন জিনিষপত্রের দাম নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। কিন্তু রোজগারের কোনও ব্যাবস্থা নেই। অন্যদিকে সিএএ, এনআরসি নিয়ে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে কেন্দ্র। এই কর্মসূচি আসলে সেই সাধারণ মানুষেরই রাগের বহিঃপ্রকাশ বলে মত নেতৃত্বের ৷

সম্প্রতি এনআরসি, সিএএ আন্দোলন নিয়ে অক্সিজেন পেয়েছে সিপিএম। ৮ জানুয়ারি ধর্মঘট ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কলকাতা সফরের সময় ছাত্র-যুব সংগঠনের কর্মসূচিতে সন্তুষ্ট আলিমুদ্দিন স্ট্রিট। এবার সেই ফসলকে ভোটের বাক্সে পুরতে চায় সিপিএম। দলের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র এদিন পুরসভা নির্বাচনে প্রস্তুতির নেওয়ার নির্দেশও দিয়েছেন। রবিবার শেষ হয়েছে সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠক। সেখানেও এনআরসি, সিএএ-র বিরুদ্ধে লাগাতার আন্দোলন করার ডাক দেওয়া হয়েছে। তারই ব্যখ্যা দিতে গিয়ে এদিন রাজ্য সম্পাদক বলেছেন, 'কাগজ নেহি দিখায়েঙ্গে, জবাব নেহি দেঙ্গে'। সিপিএমের আর এক পলিটব্যুরো সদস্য মহম্মদ সেলিম এনআরসি-র বিরুদ্ধে 'অল আউট' আন্দোলনের ডাক দিয়ে বলেন, 'ডিটেনশন ক্যাম্পের কাজ বন্ধ করতে হবে। এরপরও যদি এনআরপি-র কাজ হয় তবে ডিটেনশন ক্যাম্পের ইট দিয়ে হিসেব বুঝে নিতে হবে ৷

বেহালা থেকে মজদুর সংগঠনের কর্মীরা একটি কফিন নিয়ে আসে। সেটা দিয়েই 'মোদীশাহে'র কবর দেওয়া হয় শহীদ মিনারে। সিএএ, এনআরসি-র প্রতিবাদে জ্বালানো হয় মশাল। সূর্যকান্ত মিশ্র, মহম্মদ সেলিম ছাড়াও সভায় বক্তব্য পেশ করেন সিটু নেতা অনাদি সাহু, মহিলা সমিতির পক্ষ থেকে বলেন কনিনিকা ঘোষ প্রমুখ ৷

First published: January 20, 2020, 11:35 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर