Home /News /kolkata /
Tathagata Roy: জগদ্ধাত্রী পুজোর পর বাংলার উপনির্বাচন? তথাগতর ট্যুইটে চিন্তা বাড়ল তৃণমূলের

Tathagata Roy: জগদ্ধাত্রী পুজোর পর বাংলার উপনির্বাচন? তথাগতর ট্যুইটে চিন্তা বাড়ল তৃণমূলের

তথাগতর ট্যুইটে জল্পনা

তথাগতর ট্যুইটে জল্পনা

Tathagata Roy: বিজেপি নেতা তথাগত রায়ের ট্যুইটের পরই ফের সিঁদুরে মেঘ দেখছেন শাসক দলের নেতারা।

  • Last Updated :
  • Share this:

#কলকাতা: এখনই বাংলায় উপনির্বাচন চায় না বিজেপি। এই অভিযোগ বারবার তুলেছে তৃণমূল। নির্বাচন কমিশনের কাছে বারবার উপনির্বাচনের জন্য তদ্বিরও করছে এ রাজ্যের শাসক দল। কিন্তু বিজেপি এখনও করোনা পরিস্থিতির কথা বলে উপনির্বাচন চায় না। তা দিনকয়েক আগেই তথাগত রায়ের ফেসবুক পোস্টে ধরা পড়েছিল। তিনি লিখেছিলেন, 'রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ বেড়ে ৭১৭, কলকাতায় বেড়ে ১২০-র কাছাকাছি--এখন উপনির্বাচন? এরপরে সেপ্টেম্বরে তো বন্যা হবেই ! অক্টোবরে পুজো ! নভেম্বরের ৪ তারিখে কালীপুজো, ৬ তারিখে ভাইফোঁটা, ১০ই ছট, ১৩ই জগদ্ধাত্রী পূজা। এসব পার করে উপনির্বাচন, পুরনির্বাচন, সব হোক !' তারও আগে তিনি লিখেছিলেন, 'পশ্চিমবঙ্গে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ,দুই-ই বাড়ল ! লোকাল ট্রেন বন্ধ, স্কুলকলেজও তাই। ভ্যাকসিন নিয়ে টানাটানি অব্যাহত। এক কথায়, একটা থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে। এই পরিস্থিতিতে উপনির্বাচন কি করে হবে ? না, না, এই অবস্থাতে কোনো ঝুঁকি নেওয়া মোটেই উচিত নয় !' এবার ফের জগদ্ধাত্রী পুজোর পর বাংলার উপনির্বাচন নিয়ে ট্যুইট করলেন তিনি। ট্যুইটে তথাগত রায় লিখেছেন, '১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কলকাতায় লোকাল ট্রেন চলবে না। জগদ্ধাত্রী পুজো পর্যন্ত উপনির্বাচনও হবে না।' আর বিজেপি নেতার এই ট্যুইটের পরই ফের সিঁদুরে মেঘ দেখছেন শাসক দলের নেতারা।

মুখ্যমন্ত্রিত্বের মেয়াদ ফুরিয়ে আসছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। কিন্তু উপনির্বাচন নিয়ে নির্বাচন কমিশন এখনও কোনও সিদ্ধান্তের কথা জানায়নি। উপনির্বাচনের দাবিতে বারবার নির্বাচন কমিশনের কাছে দরবার করছে তৃণমূল। কিন্তু বিজেপির বক্তব্য এখনই বাংলায় উপনির্বাচন সম্ভব নয়। তার জন্য ৮টি কারণের কথা উল্লেখ করে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বকে চিঠিও দিয়েছে বঙ্গ নেতারা।

যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের পাল্টা অভিযোগ, বিজেপি আর হারের মুখ দেখতে চাইছে না বাংলায়। তাই এভাবে উপনির্বাচনকে পিছিয়ে দিতে চাইছে তাঁরা। নির্বাচন কমিশনের রীতি অনুযায়ী, নির্বাচনের ৬ মাসের মধ্যেই উপনির্বাচন করে ফেলতে হয়। সেই অনুযায়ী, উপনির্বাচন হওয়া উচিত নভেম্বর মাসের মধ্যে।

যদিও উপনির্বাচনের বিষয়ে বিভিন্ন দলের মতামত জানতে চেয়ে চিঠি দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সূত্রের খবর, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব নির্বাচন কমিশনে রাজ্য নেতৃত্বের পাঠানো আটটি কারণ তুলে ধরবেন। তাতে যেমন রয়েছে, রাজ্যে করোনা পরিস্থিতি এখনও চলছে, তেমনই রয়েছে রাজ্য সরকার ১২২টি পুরসভার নির্বাচন আটকে থাকার প্রসঙ্গও। এই পরিস্থিতিতে তথাগত রায়ের ট্যুইট নতুন করে জল্পনা বাড়াল।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Tathagata Roy