Home /News /kolkata /
Kolkata News: একের পর এক ঘূর্ণিঝড়, দুর্যোগে রেকর্ড মৃত্যু, কলকাতার মহাবিপদ! আর কত সময় হাতে?

Kolkata News: একের পর এক ঘূর্ণিঝড়, দুর্যোগে রেকর্ড মৃত্যু, কলকাতার মহাবিপদ! আর কত সময় হাতে?

জলের নীচে চলে যাবে কলকাতা?

জলের নীচে চলে যাবে কলকাতা?

Kolkata News: রাষ্ট্রপুঞ্জের রিপোর্ট অনুসারে, কলকাতা ছাড়াও পৃথিবীর আরও বেশ কয়েকটি শহর বিপদের মুখে দাঁড়িয়ে।

  • Share this:

    #কলকাতা: সম্প্রতি জলবায়ু পরিবর্তনের উপর জাতিসংঘের একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, যা জলবায়ু পরিবর্তনের বিষয়ে "নিষ্ক্রিয়তার পরিণতি সম্পর্কে একটি ভয়ানক সতর্কবাণী" তুলে ধরেছে, যা কলকাতার মতো শহরগুলির জন্য বেশ কয়েক বিষয়ে উদ্বেগ তুলে ধরেছে।

    জলবায়ু পরিবর্তন 2022: প্রভাব, অভিযোজন সম্পর্কিত প্রতিবেদন বলছে, ২০৪০-এর পরে, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে কলকাতার মতো উপকূলীয় শহরগুলিতে দ্রুত জলবায়ুর বিপত্তি ঘটবে। রাষ্ট্রপুঞ্জের Intergovernmental Panel for Climate Change বা IPCC-র মতে, মারাত্মক ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ডুবে যেতে পারে ভারতের বেশ কয়েকটি শহর। আর সেই তালিকাতে প্রথমেই রয়েছে কলকাতার নাম।

    কিন্তু কেন এমন হতে পারে? এর এক এবং একমাত্র কারণ উষ্ণায়ন এবং জলবায়ুর পরিবর্তন। রাষ্ট্রপুঞ্জের রিপোর্ট অনুসারে, কলকাতা ছাড়াও পৃথিবীর আরও বেশ কয়েকটি শহর বিপদের মুখে দাঁড়িয়ে।

    আরও পড়ুন: বিয়ে নয়, বৌভাতের ভোরে এই নববধূ যা করলেন, হইচই পড়ে গেল গোটা অশোকনগরে!

    কলকাতার জন্য কী কী আশঙ্কার কথা বলা হয়েছে ওই রিপোর্টে?

    ১. ঘূর্ণিঝড় আমফানের কারণে কলকাতা তার সবুজ আবরণের উল্লেখযোগ্য অংশ হারিয়েছে। আনুমানিক ক্ষতি ছিল ১,৩৫০ কোটি টাকা। (ভারতের সর্বশেষ ফরেস্ট সার্ভে রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যে ভারতের সাতটি বড় শহরের মধ্যে কলকাতায় সবচেয়ে কম বনভূমি রয়েছে।)

    ২. এই পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার মতো পরিকাঠামো এখনও কলকাতায় গড়ে ওঠেনি।

    ৩. দুর্যোগ-সম্পর্কিত মৃত্যুর জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ আটটি শহরের মধ্যে সাতটি এশিয়ার। সেগুলি হল- টোকিও, ওসাকা, করাচি, কলকাতা, ম্যানিলা, তিয়ানজিন এবং জাকার্তা।

    ৪. ৩০০,০০০ জনসংখ্যার উপরে ৩৩০টি শহরে বসবাসকারী ৪১১ মিলিয়ন মানুষ খরার ঝুঁকিতে রয়েছে। তাদের মধ্যে তিনটি হল দিল্লি, করাচি এবং কলকাতা।

    ৫. ২০৫০ সালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বন্যার ক্ষতি সহ ২০টি বৃহত্তম উপকূলীয় শহরের মধ্যে ১৩টি শহর এশিয়ার হবে। তাদের মধ্যে নয়টি (গুয়াংজু, কলকাতা, তিয়ানজিন, হো চি মিন, জাকার্তা, ঝানজিয়াং, ব্যাংকক, জিয়ামেন এবং নাগোয়া) সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি এবং বন্যার কারণে তলিয়ে যাওয়ার অতিরিক্ত ঝুঁকি রয়েছে।

    ৬. ঘূর্ণিঝড়ের ঘটনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা এশিয়ায় সবচেয়ে বেশি হবে। অনুমান করা হচ্ছে, ২০৫০ সালের মধ্যে, অভিযোজন ছাড়াই, গুয়াংজু, মুম্বাই, শেনজেন, তিয়ানজিন, হো চি মিন সিটি, কলকাতা এবং জাকার্তায় বার্ষিক ক্ষতি প্রায় ৩২ বিলিয়ন ডলার বৃদ্ধি পাবে।

    আরও পড়ুন: ডাস্টবিনে ফেলছিলেন একটি ব্যাগ, তার মধ্যে এ কী! বড় অভিযোগে বইমেলায় গ্রেফতার বলিউড অভিনেত্রী

    জাতিসংঘের সংস্থা ইন্টারগভর্নমেন্টাল প্যানেল ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ (আইপিসিসি) এর তরফে ৯৪৫ জন বিজ্ঞানী এই প্রতিবেদনটি লিখেছেন এবং গত সোমবার প্রকাশিত হয়েছে। রিপোর্টটির শহর, বসতি এবং মূল পরিকাঠামো অধ্যায়ের প্রধান লেখক অঞ্জল প্রকাশ বলেন, "ভারতে, শহরগুলি অত্যন্ত হুমকির মধ্যে রয়েছে। বিশেষ করে মুম্বই, চেন্নাই, কলকাতা এবং ভুবনেশ্বরের মতো উপকূল বা তার কাছাকাছি থাকা শহরগুলি।'' বিশেষজ্ঞদের মত, শুধু কলকাতা নয়, ভয়াবহ বন্যার কবলে পড়ে ডুবে যেতে পারে দেশের আরও ২০টি বড় শহর। সুন্দরবনের অবস্থা আরও খারাপ হতে পারে। ইতিমধ্যেই সেখানকার বাস্তুতন্ত্র ভাঙতে শুরু করেছে। অদূর ভবিষ্যতে পরিবেশ সম্পূর্ণ রূপে বদলে যেতে পারে। কলকাতার আগেই এই এলাকা সম্পূর্ণ জলের তলায় চলে যেতে পারে।

    Published by:Suman Biswas
    First published:

    Tags: Kolkata News, United Nation, Weather

    পরবর্তী খবর