• Home
  • »
  • News
  • »
  • ipl
  • »
  • IPL 2021 VIEWERSHIP DECREASES 14 PERCENT SMJ

Ipl 2021: Corona তো ছুতো! আইপিএল বন্ধের আসল কারণ লুকিয়ে অনেক গভীরে, জানুন

করোনায় ভীত-সন্ত্রস্ত মানুষ কি এবার আইপিএল থেকে মুখ ফিরিয়ে রেখেছিলেন!

করোনায় ভীত-সন্ত্রস্ত মানুষ কি এবার আইপিএল থেকে মুখ ফিরিয়ে রেখেছিলেন!

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি:

    সবরকম চেষ্টা করেছিল বিসিসিআই। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। এবারের মতো আইপিএল বন্ধ করতে হল। একের পর এক ক্রিকেটারের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার জেরে শেষ পর্যন্ত আইপিএল স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই ও আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল। তবে আইপিএল বন্ধ হওয়ার পেছনে কি শুধুমাত্র করোনা সংক্রমণই দায়ী! নাকি অন্য কোনও কারণও রয়েছে! একটু তলিয়ে দেখলে বোঝা যাবে, করোনা আসলে ছুতো। আইপিএল বন্ধ হওয়ার পেছনে আরও বেশ কয়েকটি কারণ রয়েছে। চলতি মরশুমে করোনার জেরে আইপিএলের টিআরপি ধাক্কা খেয়েছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে নাজেহাল গোটা দেশ। অক্সিজেনের অভাবে হাঁসফাঁস অবস্থা বহু মানুষের। পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন নেই। এমন পরিস্থিতিতে আইপিএল আয়োজন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকেই। কেউ কেউ বলেছিলেন, এবার আইপিএলের টাকা বাঁচিয়ে তা স্বাস্থ্য খাতে ব্যবহার করা উচিত ছিল। তবে এত সমালোচনা সত্ত্বেও আইপিএল চলছিল রমরমিয়ে। শেষ পর্যন্ত ক্রিকেটারদের সংক্রমণে এবারের মতো টুর্নামেন্ট বন্ধ।

    BARC-এর রিপোর্ট বলছে, এবার আইপিএলের ভিউয়ারশিপ ১৪ শতাংশ কমে গিয়েছিল। অর্থাৎ করোনায় ভীত-সন্ত্রস্ত মানুষ এবার আইপিএলের থেকে মুখ ফিরিয়ে রেখেছিলেন। এমন পরিস্থিতিতে আইপিএল চললেও টিআরপিতে বড়সড় প্রভাব পড়তে পারত। ফলে ম্যাচের সময় চলা বিজ্ঞাপনগুলোতে রেট রি-নেগোসিয়েট হতে পারত। টুর্নামেন্ট চললেও বড়সড় ক্ষতির মুখে পড়ত বিসিসিআই। তবে এবারের মতো আইপিএল স্থগিত হয়েছে। যার জেরে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বিসিসিআইয়ের। সম্প্রচারক সংস্থাকেও বড়সড় ক্ষতির মুখে পড়তে হয়েছে। তবে বিসিসিআই বলছে, তাদের কাছে ক্রিকেটারদের স্বার্থ সবার আগে। ক্রিকেটারদের স্বাস্থ্যের ঝুঁকি নিয়ে কোনওভাবেই টুর্নামেন্ট চালিয়ে যাওয়া যেত না।

    একের পর এক ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। প্রশ্ন উঠেছে আইপিএলে জৈব সুরক্ষা বলয় নিয়ে। কারণ বিসিসিআই একটা সময় দাবি করেছিল, ক্রিকেটাররা বিশ্বের অন্যতম সেরা জৈব সুরক্ষা বলয়ে রয়েছেন। তা হলে কী করে তাঁদের মধ্যে করোনা সংক্রমণ হয়! এই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

    বার্ক-এর রেটিং বলছে, আইপিএল স্থগিত না হলেও ভিউয়ারশিপ অনেকটাই কমে যেত। ২০২০ সালে আইপিএলের প্রতি ম্যাচে ভিউয়ারশিপ ৮.৩৪ মিনিট ছিল। কিন্তু এবার শেষ ১৭টি ম্যাচে ভিউয়ারশিপছিল ৬.৬২ মিনিট। বার্ক-এর তরফে আরও জানানো হয়েছে, আইপিএল শুরু হওয়ার প্রথম এক সপ্তাহ সব ঠিকঠাকই ছিল। তারপর হঠাৎ করেই টিআরপি পড়তে শুরু করে। দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার পর থেকেই আইপিএলের টিআরপিতে প্রভাব পড়তে শুরু হয়। যদিও বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি দাবি করেছিলেন, করোনা মহামারীর এই সময়ে মানুষের মুখে হাসি ফোটাচ্ছিল আইপিএল। এমনকী আইপিএলের জন্যই বহু মানুষ অনেকটা সময় বাড়িতে বসে ছিলেন। বিজ্ঞাপনদাতাদের সূত্র থেকে জানা যাচ্ছে, গতবারের থেকে এবার বেশি লোক আইপিএল দেখবে বলে তারা আশা করেছিলেন। সেই হিসাবে অ্যাডভার্টাইজমেন্ট-এর রেট এবার বাড়ানো হয়েছিল। গত বছর ১০ সেকেন্ডের স্লট-এর জন্য ১০ থেকে ১২ লাখ টাকা রেট ছিল। এবার সেটা বাড়িয়ে ১৩ লাখ টাকা করা হয়েছিল। কিন্তু টুর্নামেন্ট গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ভিউয়ারশিপ কমতে থাকে। যার প্রভাব পড়ে বিজ্ঞাপনেও।

    Published by:Suman Majumder
    First published: