• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • ঈশ্বর ও ভাগ্য বলে কিছুই হয় না! কেন তাঁর বইয়ে একথা লিখেছিলেন স্টিফেন হকিং?

ঈশ্বর ও ভাগ্য বলে কিছুই হয় না! কেন তাঁর বইয়ে একথা লিখেছিলেন স্টিফেন হকিং?

স্টিফেন হকিং

স্টিফেন হকিং

No God and No Destiny: শেষ বইতে জানিয়েছেন যে ভগবান বলে কিছু নেই, ভাগ্য বলে কিছু নেই, কেউ এই পৃথিবীর সৃষ্টিকর্তা নয় এবং কেউ এই পৃথিবীকে চালিত করছে না।

  • Share this:

#কলকাতা: বিখ্যাত বিজ্ঞানী ও মহাকাশ বিশেষজ্ঞ কিংবদন্তি স্টিফেন হকিং (Stephen Hawking) নিজের শেষ বইয়ে লিখেছেন ঈশ্বর এবং ভাগ্য বলে কিছু নেই (No God, No Destiny)। তিনি মনে করেন কেউ এই পৃথিবী সৃষ্টি করেনি এবং কেউ এই দুনিয়াকে চালাচ্ছে না। ২০১৮ সালের ১৪ মার্চ স্টিফেন হকিং মারা যান। তিনি ১৯৪২ সালের ৮ জানুয়ারি ব্রিটেনের অক্সফোর্ডে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা দর্শনশাস্ত্রে স্নাতক হলেও একজন চিকিৎসা বিজ্ঞানী ছিলেন। স্টিফেন হকিং তাঁর জীবনের অনেকটা সময়ই হুইলচেয়ারে কাটান। নাস্তিক এই বিখ্যাত কিংবদন্তি তাঁর নিজের লেখা শেষ বইতে জানিয়েছেন যে ভগবান বলে কিছু নেই, ভাগ্য বলে কিছু নেই, কেউ এই পৃথিবীর সৃষ্টিকর্তা নয় এবং কেউ এই পৃথিবীকে চালিত করছে না।

ওখানে কি ঈশ্বর আছে ?

স্টিফেন হকিং তাঁর লেখা শেষ বইটির নাম দিয়েছিলেন "ওখানে কি ঈশ্বর আছে ?" এই বইতে স্টিফেন হকিং লিখেছেন যে, "আমি ভবিষ্যদ্বাণী করছি যে এই সেঞ্চুরি শেষ হতে হতেই আমরা সকলেই ভগবানের আসল রহস্য বুঝতে পারব। আমি মনে করি ভগবান বলে আদৌ কিছু নেই, কেউ এই পৃথিবী তৈরি করেনি এবং কেউ আমাদের ভাগ্য নির্ধারণ করছে না।"

আরও পড়ুন- বিগত ৫ বছরে প্রায় ৫,০০০ সন্তান প্রসব করিয়েছেন, নার্স মারা গেলেন নিজের সন্তান প্রসবের সময়ে

মৃত্যুর পরেও কি জীবন থাকে ?

স্টিফেন হকিং তার শেষ বইটিতে লিখেছেন যে, ‘‘আমি বিশ্বাস করি স্বর্গ বলে কিছুই হয় না এবং মৃত্যুর পরেও কোনও জীবন থাকে না। তিনি মনে করেন মৃত ব্যক্তির কাছের লোকেরা এটা বিশ্বাস করলেও, এই সম্পর্কে কোনও প্রমাণ পায়নি যে মৃত্যুর পরেও কোনও জীবন থাকে।"

স্টিফেন হকিং ৮০-র দশকেই ঈশ্বরের অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলা শুরু করেন

স্টিফেন হকিং ৮০-র দশকের শেষের দিকে ঈশ্বরের অস্তিত্ব নিয়ে প্রশ্ন তোলা শুরু করেন। কিন্তু তাঁর এই কথা দুনিয়ার প্রায় কেউই বিশ্বাস না করলেও, তাঁর লেখা প্রায় সবক'টি বই ভালোই বিক্রি হয়েছে। স্টিফেনের লেখা সবক'টি বই সব সময়ই বেস্ট সেলার ছিল। এছাড়াও স্টিফেন হকিং যখনই কোথাও ভাষণ দিতে যেতেন, সেখানে সবক'টি সিট-ই রিজার্ভ থাকত। স্টিফেন হকিংয়ের কথা সবাই মন দিয়ে শুনত।

আরও পড়ুন-চাকরির পাশাপাশি মাত্র ১০,০০০ টাকায় শুরু করুন এর মধ্যে যে কোনও একটি ব্যবসা, আয় করবেন লক্ষ লক্ষ টাকা

স্টিফেন হকিং সব সময়ে নিজের সাফল্য নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করতেন

স্টিফেন হকিং সাফল্যের শীর্ষ চূড়া স্পর্শ করলেও তিনি সব সময় মনে করতেন, তিনি যা কিছু জীবনে অর্জন করেছেন, তা তাঁর যোগ্যতার নিরিখে নয়। স্টিফেন মনে করতেন বিকলাঙ্গতার দরুণ তিনি এই সব পেয়েছেন। স্টিফেন হকিং সব সময় বলতেন তাঁকে তাঁর কাজের জন্যই একমাত্র মনে রাখা উচিত।

Published by:Siddhartha Sarkar
First published: