Viral Video: লকডাউনে ফাঁকা সিনেমা হলের সামনের সিটে দেদার সঙ্গম, হল খাবার চুরিও! !

Viral Video: লকডাউনে ফাঁকা সিনেমা হলের সামনের সিটে দেদার সঙ্গম, হল খাবার চুরিও!  !

লকডাউনে ফাঁকা সিনেমা হলে খাবার চুরি, ফ্রন্ট সিটে দেদার সঙ্গম; দম্পতির কীর্তির ভিডিও ভাইরাল!

ঘটনার ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

  • Share this:

#সেন্ট পিটার্সবার্গ: লকডাউনে ফাঁকা পড়ে রয়েছে শপিং মল। ফাঁকা পড়ে রয়েছে পপকর্ন, কোল্ড ড্রিঙ্কসের স্টল-সহ সিনেমা হলও। দেখা গেল যে তারই সুযোগ তুললেন এক দম্পতি। সিনেমা হলে ঢুকে খাবার চুরি করলেন। তার পর হলের ফ্রন্ট সিটে মেতে উঠলেন দেদার সঙ্গমে। যে ঘটনার ভিডিও সম্প্রতি ভাইরাল হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়।

জানা গিয়েছে যে এই ঘটনাটি সম্প্রতি ঘটেছে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবার্গের সাউথ পোল শপিং সেন্টারে কিনোগ্রাদ সিনেমা হলে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে যে এক দম্পতি প্রথমে সিনেমা হলে ঢুকে পপকর্ন এবং কোল্ড ড্রিঙ্কস চুরি করছেন। তার পর তাঁদের সেই খাবার-সমেত হলের ভিতরে ঢুকে যেতে দেখা যায়। ফ্রন্ট সিটে বসে নিজেদের মধ্যে খুনসুটি করতে করতে তাঁরা সেই সব গলাঃধকরণ করেন। তার পর মেতে ওঠেন পরস্পরের শারীরিক সুখভোগে।

এই ঘটনার পর দম্পতি কিছুটা ঘুমিয়েও নেন সিনেমা হলের সিটে। ভোরের আলো ফুটে ওঠার পরে তাঁদের জামাকাপড় এবং জুতো পরে নিতে দেখা যায়। তবে অবিবেচকের মতো তাঁরা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা খাবার সিনেমা হলের ভিতরে ফেলে রেখে চলে আসেননি। আসার আগে সিনেমা হল পরিষ্কার করে দিয়ে আসতে দেখা গিয়েছে তাঁদের!

ভিডিওটি সঙ্গত কারণেই সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র উত্তেজনা সৃষ্টি করেছে। শুধু লকডাউনের নিয়ম ভাঙার ঘটনাই নয়, প্রশ্ন উঠেছে সিনেমা হলের নিরাপত্তারক্ষীর ডিউটি নিয়েও। তাঁর চোখ এড়িয়ে কী ভাবে ওই দম্পতি সেখানে ঢুকতে পারলেন, তা নিয়ে এন রীতিমতো শোরগোল হচ্ছে। পুলিশ বলছে যে তারা ঘটনার তদন্তে নেমেছেন, ওই দম্পতির পরিচয় বের করার চেষ্টা চলছে।

কাকতালীয় ভাবে আজকাল পশ্চিমের দেশগুলোয় খাবার চুরির ঘটনা মাঝে মাঝেই উঠে আসছে সংবাদের শিরোনামে। এর আগে ব্রুকলিনের বরো পার্ক এলাকার ৪০ নম্বর রাস্তার ১৫ নম্বর অ্যাভেনিউয়ের ইয়েশিবা আলেকজান্ডার স্কুলের সিসিটিভি ফুটেজে জনৈক যুবতীকে ১৮০ ডলার, ভারতীয় মুদ্রায় ১৩ হাজার টাকার কিছু বেশি খাবার চুরি করে পালাতে দেখা গিয়েছে। ওই রহস্যময়ীর পরিচয়ও এখনও পর্যন্ত উদ্ধার করে উঠতে পারেনি পুলিশ!

Published by:Pooja Basu
First published: