‘আমেরিকার কাছে সেরা যুদ্ধাস্ত্র ও সেনা আছে’ ট্যুইটে ফের হুমকি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

‘আমেরিকার কাছে সেরা যুদ্ধাস্ত্র ও সেনা আছে’ ট্যুইটে ফের হুমকি দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট
Photo- File

উপসাগরে তৈরি যুদ্ধের আবহ, ইরানের মিসাইল হানার পরেই ট্যুইট ট্রাম্পের

  • Share this:

#ওয়াশিংটন : ইরানের হামলার পরেই ট্যুইট করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ৷  সুলেমানিকে এয়ারস্ট্রাইকে হামলা করে মারার পরই যুদ্ধের হুমকি দিয়েছিল ইরান ৷ আর সেটারই প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে এক ডজন মিসাইল দিয়ে মার্কিন বেসক্যাম্পে হামলা চালায় ইরান ৷ এরপরেই  ট্যুইট করেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ৷

ডোনাল্ড ট্রাম্প নিজের ট্যুইটে বলেছেন , ‘All is well! Missiles launched from Iran at two military bases located in Iraq. Assessment of casualties & damages taking place now. So far, so good! We have the most powerful and well equipped military anywhere in the world, by far! I will be making a statement tomorrow morning.

অর্থাৎ -‘সব ঠিক আছে ৷ ইরাকে দুটি মিলিটারি বেস থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়েছে ৷ কতটা ক্ষতি হয়েছে সেই পরিমাণ খতিয়ে দেখা হচ্ছে ৷ এখনও অবধি সব ঠিক আছে ৷ সারা পৃথিবীতে সামরিক ক্ষমতা আমাদের রয়েছে ৷ আমি কাল সকালে বিবৃতি দেব ৷ ’

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে আগেই হুমকি দিয়েছিল ইরান ৷  আর সেটাই কার্যকারী করতে শুরু করে দিল তারা ৷ ইরাকে মার্কিন সেনাদের দুটি বেস ক্যাম্পে আঘাত হানল তারা ৷ গত সপ্তাহে ইরানের সেনাপ্রধান সুলেমানিকে হত্যা করেছিল আমেরিকা ৷ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই মুহূ্র্তে নিজের প্রেসিডেন্সিয়াল জীবনের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জের সামনে ৷ কারণ ইরানের এই হামলার পর উপসাগরে পুরোপুরি যুদ্ধের পরিস্থিতি ৷

তবে আঘাতের পরিমাণ কতটা জোরালো হয়েছে তা নিয়ে অবশ্য জানা যায়নি ৷ সুলেমানির মৃত্যুর পর এটাই ইরানের প্রথম প্রত্যাঘাত ৷ ডজন মিসাইলেই আক্রমণ হয় ইরানের স্থানীয় সময় বিকেল ৫টা ৩০ এ ৷ ইরাকের আল আসাদ ও ইরবিল ক্যাম্পে হয়েছে হানা ৷ দেখে নিন সেই হানার ভিডিও ৷

হোয়াইট হাউসের পক্ষ থেকে এই নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প যেকোনও সময় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন এমনটাই জল্পনা ওয়াকিবহাল মহলের ৷তবে এদিনের ইরানের আক্রমণের পরিমাণ বোঝা যায়নি ৷ কারণ আঘাতের ফলে মৃত বা আহতের সংখ্যার বিবরণ এখনও দেয়নি ইরান বা আমেরিকা কেউই ৷সব মিলিয়ে এখন উপসাগরের দিকে সকলের চোখ ৷

আরও দেখুন

First published: 09:34:18 AM Jan 08, 2020
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर