করোনা ভ্যাকসিন নিলে ২ মাস মদ্যপান করা যাবে না, এমনটাই দাবি রাশিয়ার

করোনা ভ্যাকসিন নিলে ২ মাস মদ্যপান করা যাবে না, এমনটাই দাবি রাশিয়ার

photo source collected

করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি কার্যকরী হতে সময় লাগে বেশ কিছুটা, প্রায় ৪২ দিন মতো। এই সময় একটু অতিরিক্ত সতর্কতা নিয়ে চলা প্রয়োজন।

  • Share this:

    #রাশিয়া: ‘রাশিয়ান কর্মকর্তারা নাকি পরামর্শ দিয়েছেন স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিনের ডোজ নেওয়ার পর মাস দুয়েক মদ্যপান এড়িয়ে চলতে। এমনটাই বলছে নিউ ইয়র্ক পোস্টের রিপোর্ট।  করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন স্পুটনিক ভি কার্যকরী হতে সময় লাগে বেশ কিছুটা, প্রায় ৪২ দিন মতো। এই সময় একটু অতিরিক্ত সতর্কতা নিয়ে চলা প্রয়োজন বলে দাবি করছেন, দেশের উপ-প্রধানমন্ত্রী তাতিয়ানা গালিকোভা।

    টিএএসএস নিউজ এজেন্সির সঙ্গে সাক্ষাৎকারে গালিকোভা বলেছেন, “ভিড় এলাকায় যাওয়া থেকে বিরত থাকা, মাস্ক পরা, স্যানিটাইজার ব্যবহার করা এগুলি রাশিয়ানদের মেনে চলতে হবে। এছাড়া মদ্যপান এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমিয়ে দেয় এমন ওষুধ নেওয়া বন্ধ রাখতে হবে।” রাশিয়ার একটি গ্রাহক পরিষেবা সংস্থার প্রধান অ্যান পোপোভা-ও একই পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, “ভ্যাকসিন নিতে হলে, শরীরে উপর যথেষ্ট ক্ষমতা থাকা প্রয়োজন। তাই সুস্থ থাকতে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে জোরালো রাখতে, মদ্যপান থেকে বিরত থাকতে হবে।”

    তবে ওয়র্ল্ড হেলথ অরগ্যানাইজেশনের রিপোর্ট অনুযায়ী, অ্যালকোহলের ক্রয়ে, গোটা বিশ্বে রাশিয়া রয়েছে চতুর্থ স্থানে। গড় হিসেবে, প্রত্যেক রাশিয়ান ব্যক্তি বছরে প্রায় ১৫.১ লিটার অ্যালকোহল কনজিউম করেন। রাশিয়ার স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গত সপ্তাহে মস্কোতে গণ টিকাকরণ শুরু হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত এদেশে ১০০,০০০ মানুষের ইতিমধ্যেই টিকাকরণ হয়ে গিয়েছে।

    স্বাস্থ্য দফতরের অফিশিয়ালেরা জানিয়েছেন যে এই স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিন ৯০ শতাংশ কার্যকরী। কিন্তু সূত্রের খবর অনুযায়ী, যে সমস্ত স্বাস্থ্যকর্মীরা এই ভ্যাকসিন নিয়েছিলেন তাঁদের মধ্যে অনেকেই কোভিড-১৯ এর শিকার হয়েছেন। নিউ ইয়র্ক পোস্ট জানিয়েছে, রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই ভ্যাকসিন নিতে চাননি।

    রাশিয়ায় স্পুটনিক ভি ভ্যাকসিন যে গতিতে তৈরি হয়েছে, তাতে তার কার্যকারিতা নিয়ে বিশেষজ্ঞদের অনেকেই সংশয় প্রকাশ করেছেন। এমনকি রাশিয়া এই ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা নিয়ে যে দাবি করছে, তা নিয়ে কোনও তথ্যও দেওয়া হয়নি। এদিকে, সর্বাধিক কোভিড-১৯ কেসের ভিত্তিতে গোটা বিশ্বের মধ্যে রাশিয়া রয়েছে চার নম্বরে।

    Antara Dey

    Published by:Piya Banerjee
    First published: