• Home
  • »
  • News
  • »
  • international
  • »
  • সাহারায় সবুজের সমারোহ! ধূ-ধূ মরুভূমিতে খোঁজ মিলল ১৮০ কোটি উদ্ভিদের!

সাহারায় সবুজের সমারোহ! ধূ-ধূ মরুভূমিতে খোঁজ মিলল ১৮০ কোটি উদ্ভিদের!

বিশাল মরুভূমিতে সবুজের খোঁজ করে হিসাব রাখা খুব সহজ কাজ নয়, স্যাটেলাইটের পক্ষেও গাছের সংখ্যা বাড়া-কমা মাপতে যথেষ্ট কসরত করতে হয়।

বিশাল মরুভূমিতে সবুজের খোঁজ করে হিসাব রাখা খুব সহজ কাজ নয়, স্যাটেলাইটের পক্ষেও গাছের সংখ্যা বাড়া-কমা মাপতে যথেষ্ট কসরত করতে হয়।

বিশাল মরুভূমিতে সবুজের খোঁজ করে হিসাব রাখা খুব সহজ কাজ নয়, স্যাটেলাইটের পক্ষেও গাছের সংখ্যা বাড়া-কমা মাপতে যথেষ্ট কসরত করতে হয়।

  • Share this:

সাহারায় শিহরণই বটে! ধূ-ধূ মরুপ্রান্তরে পাওয়া গেল গাছের খোঁজ। স্যাটেলাইট মারফত পাওয়া ছবি থেকে বোঝা গেল একটা দুটো নয়, ১৮০ কোটি গাছ রয়েছে পশ্চিম আফ্রিকার এই মরুভূমিতে।

গবেষক দলের নেতৃত্বে থাকা মার্টিন ব্র্যান্ড এএফপি-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন যে স্বাভাবিক ভাবেই তাঁরা খুবই আশ্চর্য হয়েছেন! সাহারায় যে এত গাছ জন্মায়, তা না কি তাঁরা জানতেনই না এত দিন! উদ্ভিদশূন্য একেবারে রুক্ষ অংশও নেহাত কম নেই মরুভূমিতে, কিন্তু চমৎকার বিষয় হল বালির নিচেও গাছ জন্মাচ্ছে, জানিয়েছেন কোপেনহেগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূবিজ্ঞানের অধ্যাপক ব্র্যান্ড।

বলাই বাহুল্য, এই আবিষ্কার পরিবেশবিদদের গবেষণায় খুব সাহায্য করবে। সারা বিশ্বে কতটা কার্বন জমছে, সেই হিসেব আরও নিখুঁত হবে।

আবার মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ন্যাশনাল এয়ারোনটিকস অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ওরফে নাসা-র এক বিজ্ঞানী জেস মেয়ার জানিয়েছেন, পরিবেশ সংরক্ষণ, জলবায়ুর পরিবর্তন আটকানোর ক্ষেত্রেও এই তথ্য খুবই সাহায্য করবে। আগামী এক, দুই অথবা দশ বছর পর ফের স্যাটেলাইট মারফত ছবি পেলে তখন বদলটা ধরতে পারা সহজ হবে, নাসার এক প্রেস বিবৃতিতে জানানো হয়েছে এ কথা।

বিশাল মরুভূমিতে সবুজের খোঁজ করে হিসাব রাখা খুব সহজ কাজ নয়, স্যাটেলাইটের পক্ষেও গাছের সংখ্যা বাড়া-কমা মাপতে যথেষ্ট কসরত করতে হয়। ফলে প্রায় অসম্ভব এই কাজটি সম্ভব করতে রীতিমতো বেগ পেতে হয়েছে মার্টিন ব্র্যান্ড এবং তাঁর গোটা দলকে। ৯০০০০ গাছ আলাদা আলাদা করে খুঁজে চিহ্নিত করেছেন ব্র্যান্ড নিজেই। গাছেদের শ্রেণীবিভাগের উপরেও জোর দিয়েছেন ব্র্যান্ড। সেই জন্য গবেষকদলকে আলাদা করে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছিল।

অন্য একটি সমীক্ষায় ৫ লক্ষ বর্গ মাইল অঞ্চলের ১১ হাজার ছবি নিয়ে খুঁটিয়ে পরীক্ষা করা হয়েছে। সমীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে নেচার পত্রিকায়। সেও ইঙ্গিত দিচ্ছে সাহারায় সবুজের এই বিপুল অস্তিত্বের।

সত্যি বলতে কী, অনেকেই এর পিছনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা দেখতে পাচ্ছেন ক্রমশ বদলে যাওয়া পৃথিবীর জলবায়ুর। ঠিক এই এক কারণে বরফঢাকা অ্যান্টার্কটিকার শীতল বুকেও জন্ম নিচ্ছে প্রচুর সবুজ উদ্ভিদ। শেষ পর্যন্ত এর পরিণাম কী, তা অবশ্য এখনই বলা সম্ভব নয়!

Published by:Uddalak Bhattacharya
First published: