সর্পিল আলোকতরঙ্গ আর রঙের রায়ট! অজানা ছায়াপথের ছবি দেখিয়ে তাক লাগাল নাসা!

সর্পিল আলোকতরঙ্গ আর রঙের রায়ট! অজানা ছায়াপথের ছবি দেখিয়ে তাক লাগাল নাসা!
নাসা-র এই ছবি থেকেই জানা গিয়েছে, এই সিগার গ্যালাক্সিটি উর্ষা মেজর নক্ষত্রমণ্ডলীতে অবস্থিত।

নাসা-র এই ছবি থেকেই জানা গিয়েছে, এই সিগার গ্যালাক্সিটি উর্ষা মেজর নক্ষত্রমণ্ডলীতে অবস্থিত।

  • Share this:

সিগার গ্যালাক্সির চোখ ধাঁধানো ছবি। সম্প্রতি নিজেদের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছে ন্যাশনাল অ্যারোনটিক্স অ্যান্ড স্পেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ওরফে নাসা (NASA)। যা দেখলেই চোখ জুড়িয়ে যাবে। ছবির ক্যাপশনও দেওয়া হয়েছে সেই মতোই।

ক্যাপশন দিতে গিয়ে নাসা-র তরফে মিন গার্লস (Mean Girls) সিনেমার উল্লেখ করা হয়। এই সিনেমার একটি লাইন 'গেট ইন লুসার, উই আর গোয়িং শপিং' উদ্ধৃত করে শপিংয়ের জায়গায় স্টারগেজিং শব্দটি বসানো হয়। সত্যিই, স্টারগেজিংয়ের মতোই দৃশ্য!

ক্যাপশনে এই লাইনটির উল্লেখ করার পাশাপাশি নিচে ছবিটির বিশ্লেষণও করেছে নাসা। তাদের তরফে বলা হয়েছে, এটিকে সিগার গ্যালাক্সি বা মেসিয়ার ৮২ (M82) বলা হয়। কারণ এটিতে একটি লাইটের উপরে বেশ কয়েকটি লাইন দেখতে পাওয়া যায়। এই ছবিটি কিছু দিন আগে নাসা-র হাবল স্পেস টেলিস্কোপ ও স্পিৎজার স্পেস টেলিস্কোপ থেকে দেখা গিয়েছে।


নাসা-র এই ছবি থেকেই জানা গিয়েছে, এই সিগার গ্যালাক্সিটি উর্ষা মেজর নক্ষত্রমণ্ডলীতে অবস্থিত। গবেষকরা ইনফ্রারেড অ্যাস্ট্রোনমি ম্যাগনেটিক ফিল্ডের তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে জানতে পেরেছেন যে, এর ফিল্ড স্ট্রেনথ প্রায় ২০ হাজার আলোকবর্ষ।

View this post on Instagram

A post shared by NASA (@nasa)

সিগার গ্যালাক্সি সম্পর্কিত এই সব তথ্য দেওয়ার পাশাপাশি নাসা-র তরফে আমাদের সৌরমণ্ডলের সঙ্গে এর তুলনা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, এই নক্ষত্রমণ্ডলীটি বিশ্লেষণ করতে সাহায্য করবে কী ভাবে গ্যাস ও ধূলিকণা গ্যালাক্সি থেকে অনেকটা দূর এসে পৌঁছয়!

নাসা আরও জানিয়েছে, এই সিগার গ্যালাাক্সি বা M82-টি আবিষ্কার হয় ১৭৭৪ সালে। আবিস্কার করেন জার্মানির একজন মহাকাশবিদ জোহান এলার্ট বোদে (Johann Elert Bodeঃ। তিনি M82-র সঙ্গে সঙ্গে M81-ও আবিষ্কার করেছিলেন। আর এটিই পৃথিবীর সব চেয়ে কাছে অবস্থিত নক্ষত্রমণ্ডলী। পৃথিবী থেকে এপ্রিল মাস নাগাদ ভালো ভাবে দেখা যেতে পারে এটিকে।

প্রসঙ্গত, আবিষ্কারের পর পর অর্থাৎ প্রথমের দিকে M82-কে অনিয়মিত ছায়াপথ বা ইররেগুলার গ্যালাক্সি বলে মনে করা হত। অনেক বছর এই ধারণা প্রচলিত থাকার পর ২০০৫ সালে এটি ভুল প্রমাণিত হয়।

এদিকে, নাসা-র তরফে ছবিটি শেয়ার করার সঙ্গে সঙ্গেই সেটি ভাইরাল হয়। ইনস্টাগ্রাম (Instagram)-এ ছবিটি প্রচুর শেয়ার হয়। বর্তমানে এই প্ল্যাটফর্মে নাসা-র ফলোয়ারের সংখ্যা ৬২.৫ মিলিয়ন। যার মধ্যে প্রায় ১১ লক্ষ মানুষ এই ছবিটি লাইক করেছে!

Published by:Elina Datta
First published: