অন্য প্রেমিকার থেকে চুরি করা আংটি দিয়ে বাগদত্তাকে প্রেম নিবেদন, ফেসবুক পোস্ট থেকে ফাঁস ঘটনা

অন্য প্রেমিকার থেকে চুরি করা আংটি দিয়ে বাগদত্তাকে প্রেম নিবেদন, ফেসবুক পোস্ট থেকে ফাঁস ঘটনা
মহিলা দাবি করেন, তিনি তাঁর এনগেজমেন্ট রিং পাচ্ছেন না এবং সঙ্গে আরও অনেক গয়না বাড়ি থেকে চুরি গিয়েছে। পাশাপাশি অভিযোগ- এই এনগেজমেন্ট রিং তিনি অন্য মহিলার হাতে দেখেছেন একটি Facebook পোস্টে।

মহিলা দাবি করেন, তিনি তাঁর এনগেজমেন্ট রিং পাচ্ছেন না এবং সঙ্গে আরও অনেক গয়না বাড়ি থেকে চুরি গিয়েছে। পাশাপাশি অভিযোগ- এই এনগেজমেন্ট রিং তিনি অন্য মহিলার হাতে দেখেছেন একটি Facebook পোস্টে।

  • Share this:

#ফ্লোরিডা: সঙ্গীর থেকে উপহার পেতে সকলের ভালোই লাগে। সেই উপহার যদি হয় এনগেজমেন্ট রিং, তাহলে তো কথাই নেই। বিশেষ দিনে বিশেষ মানুষের থেকে বিশেষ উপহার, দিনটার গুরুত্বই বদলে দেয়। এই পর্যন্ত সব স্বপ্নের মতো লাগলেও, পরে এই রিং নিয়েই যদি থানা-পুলিস হয় তাহলে হয়তো পুরো বিষয়টাই বিষিয়ে যেতে পারে। আর এমনই হল ফ্লোরিডার এক মহিলার সঙ্গে।

সম্প্রতি ভলুসিয়া কাউন্টি শেরিফের কাছে এক মহিলার অভিযোগ জমা পড়ে। যাতে ওই মহিলা দাবি করেন, তিনি তাঁর এনগেজমেন্ট রিং পাচ্ছেন না এবং সঙ্গে আরও অনেক গয়না বাড়ি থেকে চুরি গিয়েছে। পাশাপাশি অভিযোগ- এই এনগেজমেন্ট রিং তিনি অন্য মহিলার হাতে দেখেছেন একটি Facebook পোস্টে। পুরো বিষয়টি নিয়ে তাঁকে শেরিফ ডেপুটিরা জিজ্ঞাসা করলে, তিনি ঘটনাটি খোলসা করেন।

অভিযোগকারী অরেঞ্জ সিটির ওই মহিলা জানান, তাঁর প্রেমিক একজনের সঙ্গে এনগেজমেন্ট সেরেছেন। তিনি বিষয়টা জানার পর আর পাঁচটা প্রেমিকার মতোই প্রেমিকের বাগদত্তার Facebook প্রোফাইল ঘাঁটতে শুরু করেন। সেখানে একটি ছবিতে এনগেজমেন্ট রিং পড়ে মহিলাকে দেখা যায়। যা দেখে তিনি বুঝতে পারেন, এই এনগেজমেন্ট রিং তাঁর। তার পরই তিনি বিষয়টি নিশ্চিত হতে নিজের আলমারি খোলেন। দেখেন, স্বাভাবিক ভাবেই সেটি নেই। শেরিফদের তিনি জানান, এই এনগেজমেন্ট রিং-টি তাঁকে আবার তাঁর আগের এক স্বামী দিয়েছিলেন।


শুধু এনগেজমেন্ট রিং নয়, তিনি পরে খুঁজে দেখেন, তাঁর বাড়ি থেকে খোয়া গিয়েছে আরও অনেক গয়না। যার মধ্যে একটি হিরের আংটিও রয়েছে। যা তাঁর ঠাকুমার। পুলিসকে তিনি জানান, তাঁর বাড়ি থেকে ওই এনগেজমেন্ট রিং-সহ মোট ৬,২৭০ ডলারের গয়না চুরি গিয়েছে।

পুলিসে যোগাযোগ করার আগে অবশ্য তিনি তাঁর প্রেমিকের বাগদত্তার বাড়ি যান। সেখানে সামনাসামনি হয়ে যান এক প্রেমিকের দুই প্রেমিকা। অরেঞ্জ সিটির ওই মহিলা এই মহিলাকে বিষয়টি জানালে তিনি কিছু গয়না ফেরত দিয়ে দেন। দু'জনে কথা বলে জানতে পারেন, একই ব্যক্তি বিভিন্ন নামে বিভিন্ন মহিলাকে এভাবে ঠকাচ্ছেন। কখনও ডেভিস নাম নিয়েছেন, কখনও জো ব্রাউন, তো কখনও মার্কাস ব্রাউন!

ঘটনায় আরও জানা যায়, ডেভিস নামের ওই প্রতারক যে শুধু অরেঞ্জ সিটির মহিলাকে ঠকিয়েছেন, তা নয়। যাঁকে বাগদত্তা হিসেবে চুরি করা আংটি পড়িয়েছেন, তাঁকেও ঠকিয়েছেন। ওই মহিলা জানান, ডেভিস একদিন অরেঞ্জ সিটির ওই মহিলার বাড়িতে তাঁকে নিয়ে যান। যখন তিনি অফিসে ছিলেন। ওই বাড়িটিকে নিজের বাড়ি বলে পরিচয় দেন। তার পর সেখানে কিছুক্ষণ থেকে গয়নাগাটি নিয়ে পালিয়ে যান।

পরে দু'জনকেই জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিস জানতে পারে, এভাবেই একাধিক প্রতারণা করেছেন ওই ব্যক্তি। তাঁর খোঁজ শুরু করেছে পুলিস। কী ভাবে একাধিক ID প্রুফ তিনি বের করতেন, তা-ও জানার চেষ্টা চলছে। যদিও এখনও পর্যন্ত তাঁকে গ্রেপ্তার করা যায়নি!

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: