Guinness World Records: ওজনেও ফলের রাজা; ৪.২৫ কেজির আমের নাম জুড়ল গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে

Guinness World Records: ওজনেও ফলের রাজা; ৪.২৫ কেজির আমের নাম জুড়ল গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে

ওজনেও ফলের রাজা; ৪.২৫ কেজির আমের নাম জুড়ল গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে!

কলম্বিয়ার গুয়ায়াতার সান মার্টিনের বোয়াকা এলাকার এক কৃষক দম্পতির পরিশ্রমের নজির আপাতত লোকের মুখে মুখে ফিরছে!

  • Share this:

#কলম্বিয়া: ৪.২৫ কেজির অনেকগুলোর আম? না কি ওই একই ওজনের একটা বিশাল আকারের আম? রসনার কাছে কার আবেদন বেশি হতে পারে, সেটা বলা একটু মুশকিলের! কিন্তু গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের কাছে যে দ্বিতীয়টারই আবেদন বেশি হবে, তাতে আর সন্দেহ কী! এই বইতে সব চেয়ে বেশি ওজনের নানা ফলের তালিকা তো আছেই, বছরে বছরে তা আপডেটও হতে থাকে। এত দিন পর্যন্ত বিশ্বের সব চেয়ে বেশি ওজনের আম ছিল ৩.৪৩৫ কেজির, ২০০৯ সালে ফিলিপাইনের এই রসাল ফল বিশ্বরেকর্ড গড়েছিল। তবে এবার সেই ভেঙেচুরে একসা- কলম্বিয়ার গুয়ায়াতার সান মার্টিনের বোয়াকা এলাকার এক কৃষক দম্পতির পরিশ্রমের নজির আপাতত লোকের মুখে মুখে ফিরছে!

জানা গিয়েছে যে তাঁদের নাম জার্মান অরল্যান্ডো নোভোয়া এবং রায়না মারিয়া ম্যারোকান। এই দম্পতির বাগানের গাছে যে বৃহদাকৃতির আম ফলেছে, সেটাই ফিলিপাইনের রেকর্ডের মুখে দুয়ো দিয়ে ২৯ এপ্রিল ঠাঁই করে নিয়েছে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের বইতে। এই দম্পতির কন্যা জানিয়েছেন যে এমনিতেই তাঁদের বাগানে বেশ বড় আকৃতির আম হয়। তবে এই আমটি একটু বেশিই বড়সড় ছিল! ফলে, ওজন করার পরে তিনি বিশ্বের সব চেয়ে ওজনদার আমের পরিমাণ কত, তা খুঁজতে শুরু করেন। এবং তার পরেই তাঁর আনন্দ যেন কূল ছাপিয়ে যায়। তিনি বুঝতে পারেন যে এবার গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়বে তাঁদের বাগানের আম। এর পর তিনি যোগাযোগ করেন সংস্থার সঙ্গে, সব দিক খতিয়ে দেখেও সংস্থাও রেকর্ড আপডেট করে দেয়।

তবে যে আমের রেকর্ড নিয়ে এত লোকমুখে গল্প, তার পুরোটাই কিন্তু এর মধ্যে মুখে পুরে দিয়েছেন এই কৃষক পরিবারের সদস্যেরা। জানিয়েছেন যে তা রীতিমতো সুস্বাদু ছিল! ঠিক কাজই করেছেন তাঁরা, কেন না ফেলে রাখলে তা নষ্ট হয়ে যেত! তবে স্থানীয় পুরসভার মিউজিয়ামকে একেবারে বঞ্চিত করেনি এই পরিবার, এই আমের একটা রেপ্লিকা তৈরি করে তা রেকর্ডের ডিটেইল-সহ সেখানে পাঠিয়ে দিয়েছে, যাতে লোকে অন্তত এই আম দেখতে কেমন ছিল, সেটুকু জানতে পারেন!

First published: