Hasina Congratulates Mamata: ‘সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ববোধ’ রক্ষায় মমতাকে অভিনন্দন বাংলাদেশের, শুভেচ্ছা হাসিনারও

ওপার থেকে এল শুভেচ্ছা

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Banerjee) বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর (Sheikh Hasina) শুভেচ্ছা জানানোর বিষয়টি জানান প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব সারওয়ার সরকার জীবন।

  • Share this:

    #বাংলাদেশ: নরেন্দ্র মোদির (Narendra Modi) নেতৃত্বে বিজেপির সার্বিক শক্তির কাছেও মাথানত করেননি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের বিপুল জয়ের পর সারা দেশ, এমনকী বিদেশ থেকেও মমতার উদ্দেশে আসছে শুভেচ্ছাবার্তা। এবার সেই তালিকায় নাম উঠে এল বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও (Sheikh Hasina)। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী পদে তৃতীয় বারের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শপথ নেওয়ার পরই তাঁকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠালেন হাসিনা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা জানানোর বিষয়টি জানান প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সচিব সারওয়ার সরকার জীবন।

    বুধবারই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূলকে জয়ের জন্য শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। মমতাকে চিঠিতে ড. এ কে আবদুল মোমেন লেখেন, 'ধারাবাহিকভাবে তৃতীয়বারের জন্য সরকার গঠনে জনগণের সমর্থন লাভ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস, যা আপনার নেতৃত্বের প্রতি পশ্চিমবঙ্গের মানুষের আস্থা ও বিশ্বাসের প্রতিফলন। আমরা আপনার প্রতি কৃতজ্ঞ। কারণ, আপনি বাঙালির দীর্ঘ লালিত মূল্যবোধ ‘ধর্মীয় সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ববোধ’-এর পরিচয় রেখেছেন। এই ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু সারাজীবন অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।' বিদেশমন্ত্রী এহেন চিঠির পরই হাসিনার শুভেচ্ছাবার্তা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ।

    মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঠানো বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের অভিনন্দন বার্তা দুদেশেই যথেষ্ট আগ্রহ সঞ্চার করেছে। কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, মোমেনের এই চিঠি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার ও শাসক দলের প্রতি বাংলাদেশের একটা প্রচ্ছন্ন বার্তাও বটে।

    এবারের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস দুটি স্লোগান বড় করে তুলে ধরেছিল। ‘খেলা হবে ও ‘জয় বাংলা’। ‘জয় বাংলা’ স্লোগানের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ধর্ম-বর্ণ-জাতনির্বিশেষে বাঙালি শ্রেষ্ঠত্ববাদ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। মমতাও এই ভোটে সার্বিক বাঙালি জাত্যভিমানকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন। তার ফলও তিনি পেয়েছেন হাতে-নাতে। আর তিস্তা জলবন্টণ চুক্তি নিয়ে মমতার 'অনীহা' সত্ত্বেও হাসিনার সঙ্গে মমতার সুসম্পর্ক কারও অজানা নয়। তাই জয়ের পর মমতাকে শুভেচ্ছা বার্তা পাঠিয়ে সেই সম্পর্ক আরও মজবুত করতে চাইলেন হাসিনা।

    Published by:Suman Biswas
    First published: