corona virus btn
corona virus btn
Loading

'পৃথিবীর কোনও শক্তি লাদাখে ভারতীয় সেনার টহলদারি বন্ধ করতে পারবে না': রাজনাথ

'পৃথিবীর কোনও শক্তি লাদাখে ভারতীয় সেনার টহলদারি বন্ধ করতে পারবে না': রাজনাথ
প্রতীকী ছবি৷

বিরোধীদের তরফে অবশ্য এ দিন বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে, তারাও সেনার পাশেই রয়েছে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: পৃথিবীর কোনও শক্তি ভারতীয় সেনাকে লাদাখ সীমান্তে টহল দেওয়া থেকে আটকাতে পারবে না৷ এ দিন সংসদে লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর ভারত চিন সংঘাত নিয়ে বিরোধী সাংসদদের প্রশ্নের উত্তরে এমনই দাবি করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং৷ বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, ভারতের দখলে থাকা সেনা পোস্টগুলিতে নজরদারি চালাতে বাধা দিচ্ছে চিন৷

এ দিন রাজ্যসভায় ভারত চিন সংঘাত নিয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রতিরক্ষামন্ত্রী আশ্বস্ত করে বলেন, পূর্ব লাদাখের যে অংশ মূল সংঘাতের কেন্দ্রস্থল হয়ে উঠেছে, সেখানেও আগের মতোই টহল দেবে ভারতীয় সেনা৷ সাংসদ এবং প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী এ কে অ্যান্টনির অভিযোগের জবাব দিতে গিয়েই এ কথা বলেন রাজনাথ৷ অ্যান্টনির অভিযোগ ছিল, চিরাচরিত ভাবে ভারতের দখলে থাকা সেনা পোস্টগুলি থেকে ভারতীয় বাহিনীকে পিছিয়ে আসতে বাধ্য করেছে চিন৷

রাজনাথ বলেন, 'কীভাবে টহল দেওয়া হবে তার স্পষ্ট ব্যাখ্যা রয়েছে এবং এ ভাবেই বছরের পর বছর চলে আসছে৷ পৃথিবীর কোনও শক্তি ভারতীয় সেনাকে নজরদারি চালানো থেকে আটকাতে পারবে না৷'

রাজনাথ এ দিনও দাবি করেন, বিষয়টি অত্যন্ত সংবেদনশীল এবং এর সঙ্গে কৌশলগত তথ্য জড়িয়ে থাকায় তার পক্ষে এর থেকে বেশি কিছু বলা সম্ভব নয়৷ যদিও রাজ্যসভার চেয়ারপার্সন ভেঙ্কাইয়া নাইডু রাজনাথকে অনুরোধ করেন, বাছাই করা কয়েকজন সাংসদকে ডেকে একটি পৃথক বৈঠক করে আরও কিছুটা বিস্তারিত তথ্য যাতে তাঁদের জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী৷

গত মঙ্গলবার লোকসভায় চিনের সঙ্গে সংঘাত নিয়ে যা বলেছিলেন, এ দিনও রাজ্যসভায় কার্যত তাঁরই পুনরাবৃত্তি করেছেন রাজনাথ৷ তবে তিনি বলেছেন, চিন মুখে যা বলছে আর কার্যক্ষেত্রে যা করছে, তার মধ্যে বিস্তর ফারাক রয়েছে৷ দুই দেশের মধ্যে সামরিক এবং কূটনৈতিক স্তরে আলোচনা চলার মাঝেই গত ২৯ এহং ৩০ অগাস্ট যেভাবে লাদাখে চিনা সেনা অনুপ্রবেশের চেষ্টা করে, সেই ঘটনার উল্লেখ করেই চিনের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ তোলেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী৷

বিরোধীদের তরফে অবশ্য এ দিন বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছে, তারাও সেনার পাশেই রয়েছে৷ কিন্তু সরকারের অবস্থান নিয়ে বিরোধীদের মধ্যে যে সংশয় রয়েছে, তা এ দিনও স্পষ্ট করে দিয়েছেন কংগ্রেসের দুই সাংসদ এ কে অ্যান্টনি এবং গুলাম নবি আজাদ৷ দু' জনেই এ দিন জানতে চেয়েছেন, এপ্রিল মাসের আগে লাদাখ সীমান্তে দুই সেনার যে জায়গায় অবস্থান ছিল, সেই স্থিতাবস্থা ফেরানো সম্ভব হয়েছে কিনা? প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যান্টনি যেমন দাবি করেন, সংঘাতের আগে লাদাখে ফিঙ্গার এইটেও টহল দিত ভারতীয় সেনা৷ সেই অধিকার ভারতীয় সেনা যাতে ফিরে পায়, তা নিশ্চিত করার জন্য সরকারকে অনুরোধ করেছেন তিনি৷

অন্যদিকে সেনাবাহিনীর পাশে থাকার বার্তা দিয়ে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন এ দিন সংসদের মধ্যেই 'জয় হিন্দ' ধ্বনি দেন৷ বিজেডি-র সাংসদ প্রসন্ন আচার্য সরকারকে সতর্ক করে বলেন, চিনকে কোনওভাবেই বিশ্বাস করা যায় না৷ কারণ তাঁরা সীমান্ত নিয়ে অতীতের সব চুক্তি ভঙ্গ করেছে৷ ফলে চিনের সঙ্গে আলোচনা এবং দর কষাকষির সময় অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে বলে কেন্দ্রকে পরামর্শ দিয়েছেন তিনি৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: September 17, 2020, 4:56 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर