নববর্ষের গরমের সঙ্গে দোসর হয়েছে মাস্ক! শাড়ি নাকি জাম্পস্যুট, রইল নতুন বছরের সাজের সাতকাহন

নববর্ষের গরমের সঙ্গে দোসর হয়েছে মাস্ক! শাড়ি নাকি জাম্পস্যুট, রইল নতুন বছরের সাজের সাতকাহন

মহামারীর কথা মাথায় রেখে চিকিৎসকরা ভিড় এড়িয়ে চলারই পরামর্শ দিচ্ছেন। তবে তাই বলে নতুন পোশাক নববর্ষের ফ্যাশনের সঙ্গে আপোশ নয়।

মহামারীর কথা মাথায় রেখে চিকিৎসকরা ভিড় এড়িয়ে চলারই পরামর্শ দিচ্ছেন। তবে তাই বলে নতুন পোশাক নববর্ষের ফ্যাশনের সঙ্গে আপোশ নয়।

  • Share this:

    উৎসবের কমতি নেই বাঙালির ক্যালেন্ডারে। ছোট থেকে বড় সব রকমের উৎসবকেই বিশেষ করে তুলতে বাঙালির জুড়ি মেলা। হোক না করোনাকাল। বাধা বিপত্তির মাঝেও ঠিক নিজেদের মতো করে উদযাপনের ঠিক উপায় বের করে নিতে পারে বাঙালি। এবারের নববর্ষও অনেকটা তেমনই। অবশ্য গত বছরও বাঙালি ঘরে বসেই নববর্ষ উদযাপন করেছিল।

    করোনা, কোয়ারেন্টাইন, নিউ নর্মাল রোজকার জীবনে এসব শব্দকে বুড়ো আঙুল দেখিয়েই তাই এবারও নতুন বছরকে ১৪২৮-কে স্বাগত জানানোর পালা। মহামারীর কথা মাথায় রেখে চিকিৎসকরা ভিড় এড়িয়ে চলারই পরামর্শ দিচ্ছেন। যতটা বাড়িতে থাকা যায়, সেই কথাই বলছেন। তবে তাই বলে নতুন পোশাক নববর্ষের ফ্যাশনের সঙ্গে আপোশ নয়। বাইরে না বেরোলেও, নতুন সাজে নিজেকে মেলে ধরতে সোশ্যাল মিডিয়া তো রয়েছেই।

    নববর্ষ মানেই গ্রীষ্মের দাবদাহের কথা মাথায় রেখে সাজ। আর তার উপর নিউ নর্মালে এখন অন্যতম অ্যাকসেসরিজ হল মাস্ক। অর্থাৎ ফ্যাশনের সঙ্গে কমফর্টও ঠিক ততটাই গুরুত্বপূর্ণ। তাহলে দেখে নেওয়া যাক ঠিক কেমন পোশাকে স্পটলাইট ও আরাম উভয়েই থাকা যাবে।

    ১) শাড়ি- বাঙালির নববর্ষ শাড়ি ছাড়া অকল্পনীয়। তবে গরমের কথা মাথায় রেখে ভারী শাড়ি এড়িয়ে যান। একরঙা খাদির শাড়ি, হ্যান্ডলুম শাড়ি পরতে পারেন। বর্তমানে আজরখ প্রিন্ট ফ্যাশনে ইন। তবে সুতির বা মাল কটনের উপর আজরখ শাড়ি বেছে নিন। হালকা রঙের ঢাকাই শাড়িও পরতে পারেন। শাড়ি হালকা হলেও ব্লাউজে রয়েছে বাহারি ডিজাইন। স্লিভলেস, হল্টার নেক, বোট নেক, নুডল স্ট্র্যাপ, রেসার ব্যাক ব্লাউজ পরতে পারেন অনায়াসে।

    ২) ফ্লোরাল প্রিন্ট- ফ্যাশনে এখন ইন ফ্লোরাল প্রিন্ট। গরমে চোখের আরাম দিতেও ফ্লোরাল প্রিন্টের জুড়ি মেলা ভার। বিশেষ করে হালকা গোলাপি, পাউডার ব্লু, হলুদ, মিন্ট গ্রিন এই রঙের উপর ফ্লোরাল প্রিন্টের পোশাক নববর্ষে পরতে পারেন। ফ্লোরাল প্রিন্টের মিড লেনথ ড্রেস পরলে নজর কাড়বেন সহজেই। সঙ্গে পরে নিন আরামদায়ক ফ্লিপফ্লপ জুতো।

    ৩) জাম্পস্যুট- বেশ কয়েক বছর ধরেই ফ্যাশনে ইন এই পোশাক। চলাফেরা করার জন্যও বেশ স্বাচ্ছন্দ্য দেয়। তবে অন্য কোনও ফ্যাবরিক নয়। এবার নববর্ষের জন্য বেছে নিতে পারেন সূতির বা অথবা ইক্কতের জাম্পস্যুট। লুকটিকে সম্পূর্ণ করতে মেসি বান ও একটি স্লিং ব্যাগই যথেষ্ট। সাজে নাটকীয়তা যোগ করতে পরে নিন কানে বড় হুপস।

    ৪) ওয়াইড লেগ ট্রাউজার- স্কিনি বা ফিটেড জিন্স থাকলে এই গরমে সেগুলিকে ওয়াড্রোবেই রেখে দিন। তার বদলে ওয়াইড লেগড হাই ওয়েস্ট ট্রাউজার পরুন। ফ্যাশনে ফিরে এসেছে বুটকাটও। অথবা পালাজো বা প্যারালাল প্যান্ট পরতে পারেন। টপ পরুন উজ্জ্বল রঙের।

    ৫) ওয়ান পিস ড্রেস- ম্যাক্সি ড্রেস, অ্যাঙ্কল লেনথ মা মিডি ড্রেস সবকটিই এখন ফ্যাশনে ইন কারণ ফ্যাশনের সঙ্গে আরামেও থাকা যায়। বিশেষ করে সূতি, খাদি বা ইক্কতের পোশাক পরুন। উজ্জ্বল রঙের ইক্কতের পোশাক এখন ফ্যাশনে ইন। সঙ্গে জাঙ্ক গয়না পরুন।

    ৬) কো-অর্ডস- টু-পিস পোশাক বা কো-অর্ডস এই মুহূর্তে ফ্যাশন দুনিয়ায় নজর কাড়া পোশাক। টোনড মিডরিফ হলে অনায়াসে পরতে পারেন ক্রপ টপের সঙ্গে স্কার্ট অথবা প্যারালাল। তা না হলে প্যান্টস্যুট অথবা কুর্তির সঙ্গে লেগিংস না পরে পরতে পারেন ট্রাউজার।

    এতো গেল পোশাক পর্ব। তবে পোশাকের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ মেক আপ। গরমে ফ্রেশ লুক রাখতে চোখের মেক আপ হালকা রাখুন। গাঢ় কাজলের বদলে চোখের উপরের লিডে পরুন আই লাইনার। ঠোঁটে গোলাপি ও পিচের ন্যুড শেড পরুন। গালে হালকা ব্লাশ অবশ্যই লাগান। তবে সব কিছুর সঙ্গে মাস্ক পরতে ভুলবেন না।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published: