রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর পরিচালিত একটি মাত্র ছবির শ্যুটিং হয়েছিল নিউ এম্পায়ারে !

photo source collected

১৯৩১ সালে সবাক চলচ্চিত্রের শুরু। আর ১৯৩২ সালে তৈরি হয় নিউ এম্পায়ার। সেই বছর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিজে উপস্থিত ছিলেন।

  • Share this:

    #কলকাতা:  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙালির আত্মার সঙ্গে জড়িয়ে আছেন। আমরা আজ যাই লিখি বা ভাবি না কেন, তার প্রাণবায়ু কিন্তু একমাত্র রবি ঠাকুর। তাঁকে বাদ দিয়ে সাহিত্য জগতে এক পাও চলা সম্ভব নয়। তবে শুধু সাহিত্য নয়, গান, নৃত্য শিল্প, অঙ্ক শিল্প সবেতেই ঠাকুর গভীর ছাপ রেখে গিয়েছেন। শান্তিনিকেতন প্রতিষ্ঠা করে তাঁর ভাবনার সঞ্চার করেছেন মানুষের মধ্যে। প্রথাগত শিক্ষার সঙ্গে যোগ হয়েছে আরও অনেক কিছু। বাংলা সাহিত্য থেকে শিল্প সবেতেই যেন নতুন যুগের সূচনা করেছিলেন তিনি। এক কথায় তিনি যেন বিপ্লব ঘটিয়েছিলেন। তাঁর থেকেই উদ্বুদ্ধ হয়ে কত সাহিত্যিক, পরিচালক জীবনে নতুন পথ খুঁজে পেয়েছেন। তবে রবি ঠাকুর নিজের গোটা জীবনে একটি ছবির পরিচালনাও করেছিলেন। রবীন্দ্র নাটকের কথা তো আমাদের অজানা নয়। কিন্তু নিউ এম্পায়ার সিনেমার সঙ্গে জড়িয়েছিল ঠাকুরের নাম।

     এই নিউ এম্পায়ার সিনেমা হলের সঙ্গে  পরিচিত নন এমন বাঙালি মেলা ভার। একটা সময় ধর্মতলার মোরের এই সিনেমা হল ছিল মানুষের সবচেয়ে পছন্দের। তবে কালের নিয়মে এই সিনেমা হল পাল্লা দিতে পারে না বর্তমান সমাজের সঙ্গে। ব্যবসায় ঘাটতি দেখা দেয় বন্ধ হয়ে যায় এই সিনেমা হল। কিন্তু এক সময় সবচেয়ে গর্বের ছিল এই হল। এখানেই জমায়েত হত ছবি প্রেমীদের। এই নিউ এম্পায়ারেই  নিজের জীবনের একমাত্র ছবির শ্যুটিং করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর।---

    photo source collected photo source collected

    সে সময় একসময় এই হলটিকে নাটক ও ব্যালে প্রদর্শনের জন্য ব্যবহার করা হত। ১৯৩১ সালে সবাক চলচ্চিত্রের শুরু। আর ১৯৩২ সালে তৈরি হয় নিউ এম্পায়ার। সেই বছর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিজে উপস্থিত ছিলেন। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর গোটা জীবনে এই একটিই সিনেমার নির্দেশনা করেছিলেন। তা হল, 'নটীর পূজা'। সেই 'নটীর পূজা'র শ্যুটিং রবীন্দ্রনাথ করেছিলেন নিউ এম্পায়ারের অডিটোরিয়ামে। টানা চার দিন ধরে চলেছিল শ্যুটিং। এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন শান্তিনিকেতনের ছেলে মেয়েরা। ষাটের দশকের গোড়ার দিকে এখানে নাটকের সঙ্গে সঙ্গে সিনেমা দেখানোও শুরু হয়। আজ এই সিনেমা হল না থাকলেও বাঙালির স্মৃতিতে সব সময় বেঁচে থাকবে নিউ এম্পায়ার। কারণ এই সিনেমা হলের সঙ্গে জড়িয়ে আছে ঠাকুরের নাম।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: