• Home
  • »
  • News
  • »
  • explained
  • »
  • WITH 1 LAKH DAILY CASES 3RD COVID 19 WAVE MAY PEAK IN OCTOBER BUT EXPERTS POINT TO SILVER LINING SDG

Covid Third Wave|| অগাস্টেই আছড়ে পড়বে তৃতীয় ঢেউ, পুজোর মরসুমে শীর্ষে পৌঁছবে গ্রাফ, বিশেষজ্ঞরা যা বলছেন...

অগাস্টেই আছড়ে পড়বে তৃতীয় ঢেউ। সংগৃহীত ছবি।

Covid Third Wave: অগাস্ট মাস থেকেই তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়বে দেশে। প্রতি দিন ১ লক্ষ থেকে ১.৫ লক্ষ মানুষ এই সংক্রমণের শিকার হতে পারে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে আর বেশি দিন বাকি নেই। গবেষকরা মনে করছেন অগাস্ট মাস থেকেই তৃতীয় ঢেউ আঘাত হানতে পারে দেশে। হায়দরাবাদ ও কানপুরের ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (Indian Institute of Technology) প্রফেসর মথুকুমল্লি বিদ্যাসাগর (Mathukumalli Vidyasagar) এবং মণীন্দ্র আগরওয়ালের ( Manindra Agrawal) নেতৃত্বে একটি গবেষণা দল মনে করছে অগস্ট মাস থেকেই তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়বে দেশে। প্রতি দিন ১ লক্ষ থেকে ১.৫ লক্ষ মানুষ এই সংক্রমণের শিকার হতে পারে।

গবেষকরা বলেছেন, করোনার তৃতীয় ঢেউ অগাস্ট থেকে শুরু হয়ে সর্বোচ্চ শিখরে পৌঁছবে অক্টোবর মাসে। তবে এই ভবিষ্যৎবাণী করতে গিয়ে একটু আশার আলো দিয়েছেন গবেষকরা। তাঁদের দাবি, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের মতো অতটা ভয়ঙ্কর না-ও হতে পারে তৃতীয় ঢেউ। বিগত দিনে দেখা গিয়েছে গোটা দেশে প্রতি দিন প্রায় ৪ লক্ষ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন, কিন্তু এ বার সেটা না-ও হতে পারে বলেই মনে করছেন গবেষকরা। এমনকী তাঁরা এ-ও বলেছেন যে বিগত দিনে মহারাষ্ট্র ও কেরলের মতো রাজ্যগুলিতে যে ভাবে সংক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছিল, এবার তেমনটা না হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।

সম্প্রতি, হায়দরাবাদ আইআইটি-র প্রফেসর মথুকুমল্লি বিদ্যাসাগর অনুমান করে বলেছিলেন, আগামী দিনে ভারতে করোনা সংক্রমণ আরও ভয়ঙ্কর রূপ নিতে চলছে, কিন্তু তেমনটা হয়নি। পরে আরও একটি ট্যুইটের মাধ্যমে গবেষক জানান আগের অনুমান ভুল প্রমাণিত হয়েছে, কারণ ভাইরাসটি দ্রুত বদলে গিয়েছে।

কোভিড বিশেষজ্ঞরা আগে থেকেই বলে এসেছেন করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়ান্ট (Delta Variant) খুব শক্তিশালী ও সংক্রামক। চিকেনপক্সের (Chickenpox) মতো অতি দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে ডেল্টা ভ্যারিয়ান্ট। এমনকী যাঁরা করোনা টিকা নিয়েছেন তাঁদেরও আক্রমণ করার শক্তি রাখে করোনার এই ভ্যারিয়ান্ট। Indian Sars-CoV-2 Genomic Consortium-এর রিপোর্ট আনুযায়ী মে, জুন এবং জুলাই মাসে প্রতি ১০ জন করোনা রোগীর মধ্যে প্রায় ৮ জনের মধ্যে ডেল্টা ভ্যারিয়ান্টের অস্তিস্ব পাওয়া গিয়েছে। আগের তুলনায় দেশে করোনা সংক্রমণ হ্রাস পেলেও আক্রান্তের সংখ্যাটা এখনও কম নয়। প্রতি দিন ৪০ হাজারের আশেপাশেই ঘোরাফেরা করছে। মৃত্যু হচ্ছে প্রায় ৫০০ জনের কাছাকাছি। মহারাষ্ট্র, কেরল ও উত্তরপূর্ব ভারতের বেশ কিছু রাজ্যকে বাড়তি সতর্কতা নিতে বলেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

Published by:Shubhagata Dey
First published: