Home /News /explained /
Drone Delivery: দরজায় খাবার পৌঁছে দিচ্ছে উড়ন্ত রোবো! ড্রোন ডেলিভারিই কি তবে ভবিষ্যত্?

Drone Delivery: দরজায় খাবার পৌঁছে দিচ্ছে উড়ন্ত রোবো! ড্রোন ডেলিভারিই কি তবে ভবিষ্যত্?

Drone Delivery: তবে এই ড্রোন-ডেলিভারি পরিষেবাটি একেবারে সরাসরি গ্রাহকের ঘরে পণ্য পৌঁছে দেবে না।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: হাতে হাতে তালি দিয়ে গুপি-বাঘা আসমান থেকে নামিয়ে আনতে পারত হাঁড়ি হাঁড়ি মন্ডা মিঠাই, মিহিদানা, পুলিপিঠে, জিভেগজা। কিন্তু বাস্তবে কি আর ভূতের রাজার বর সবাই পায়!

ভূতের রাজার বর না মিললেও প্রযুক্তির দৌলতে এ বার আকাশ থেকে নেমে আসতেই পারে খাবার দাবার। যন্ত্রের নাম ড্রোন। একটা সময় ছিল যখন মানুষ বাড়ির রান্নার বাইরে যে নিত্য ভোগে কিছু লাগতে পারে, তা ভাবতেই পারত না। ক্রমশ বদলেছে দিন।

এখন রাস্তায় বেরলেই হাজার হাজার রেস্তোরাঁ। আবার বাড়ি থেকে বেরোতেও যদি অনিহা থাকে তা হলে হাজির আছে মুঠোবন্দি স্মার্টফোন। হুকুম করলেই দুয়ারে এসে হাজির হয় মন ভরানো প্রাণ জুড়ানো নানা স্বাদের খাবার। নিয়ে আসেন আমার আপনার মতো একজন সাধারণ মানুষ। যাঁকে আমরা ‘ডেলিভারি পার্সন’ বলি। গুপি-বাঘার মতো আকাশ থেকে খাবার পড়ে না। তবে এ বার হয় তো তা-ই হবে।

আরও পড়ুন- মাথা ব্যথা হলে কোভিড কি না বুঝবেন কীভাবে? রইল তার সহজ উপায়!

অনলাইন ফুড-ডেলিভারি সংস্থা স্যুইগি (Swiggy) মে মাস থেকেই তার Instant Groccery পরিষেবা, ইনস্টামার্ট (Instamart)-এর জন্য পরীক্ষামূলক ভাবে ড্রোন ব্যবহার করার পরিকল্পনা করছে। তবে এই ড্রোন-ডেলিভারি পরিষেবাটি একেবারে সরাসরি গ্রাহকের ঘরে পণ্য পৌঁছে দেবে না। বরং তা দোকান থেকে পণ্য নিয়ে পৌঁছবে ডার্ক স্টোরে (Dark Store)। ডার্ক স্টোর হল এমন এক জায়গা যা গ্রাহকের বাড়ির কাছে। সেখান থেকে পণ্য সংগ্রহ করে গ্রাহকের বাড়ি পৌঁছে দেবেন ডেলিভারি পার্সন।

শুক্রবার একটি ব্লগপোস্টে স্যুইগি স্পষ্ট জানিয়েছে, এতে কোনও ভাবেই কোনও ডেলিভারি পার্সনের চাকরি যাবে না। কারণ, বাড়ি বাড়ি পণ্য পৌঁছে দেওয়ার কাজ করবেন তাঁরাই।

তবে এই ড্রোন ডেলিভারি আপাতত পরীক্ষামূলক ভাবে চালু করা হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে বেঙ্গালুরু এবং দিল্লি NCR-এই তা শুরু হচ্ছে।

ডেলিভারি ড্রোন কী?

নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে, ডেলিভারি ড্রোন হল মনুষ্যবিহীন একটি বায়বীয় যান (UAV/Unmanned Aerial Vehicles)। এ ধরনের যান মূলত চিকিৎসা সরঞ্জাম, খাদ্য এবং অন্য পণ্য পরিবহণে ব্যবহার করা হয়। বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই উপদ্রুত এলাকায় মানুষের ত্রাণে এই ধরনের পরিবহণ করা হয়।

স্যুইগির ক্ষেত্রে, ড্রোনগুলি তার Instamart পরিষেবার অধীনে মুদি (Groccery) সামগ্রী সরবরাহ করতে ব্যবহার করা হবে। সংস্থাটি ইতিমধ্যেই পরীক্ষা মূলক প্রয়োগের জন্য চারটি 'ড্রোন-অ্যাজ-এ-সার্ভিস' (Drone-as-a-service) অপারেটরের সঙ্গে চুক্তি করেছে। ডেলিভারির মধ্যস্তরে এই ড্রোন কেমন কাজ করছে তা পর্যালোচনা করে দেখবে স্যুইগি।

ড্রোন ডেলিভারির আইন:

ব্যবসায়িক ভিত্তিতে ড্রোন ওড়ানোর বিষয়ে গত বছর ভারতের অসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রক ২০টি সংস্থাকে শর্তসাপেক্ষে অনুমতি দিয়েছে। যার মধ্যে রয়েছে Swiggy, ANRA কনসোর্টিয়াম এবং Marut Dronetech। এই সংস্থাগুলিকে Beyond Visual Line of Sight (BVLOS) পরীক্ষামূলক ফ্লাইট পরিচালনা করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। BVLOS অপারেশন হল সেইগুলি যেখানে ড্রোনের পাইলটের UAV-এর জন্য কোনও ভিজ্যুয়াল রেফারেন্স নেই।

ড্রোন ডেলিভারির সঙ্গে জড়িত অন্য কোম্পানি:

সূত্রের খবর, ভারতের বেশ কয়েকটি ড্রোন অপারেটর সংস্থা ড্রোনের মাধ্যমে ভ্যাকসিন এবং স্বাস্থ্যসেবা সরবরাহের পরীক্ষা মূলক ব্যবহারের জন্য রাজ্য সরকার ও অন্য নানা ধরনের সংস্থার সঙ্গে অংশীদারিত্বে রয়েছে।

২০২১ সালের ডিসেম্বরে ভারত সরকার এ দেশে তৈরি ড্রোন ব্যবহার করে কোভিড ভ্যাকসিন পৌঁছে দিয়েছিল প্রত্যন্ত এলাকায়। সে বার মণিপুরের বিষ্ণুপুর জেলা থেকে লোকটাক হ্রদের কারং দ্বীপে ১৫ কিলোমিটার আকাশ পথ মাত্র ১৫ মিনিটে পাড়ি দিয়ে জরুরি পরিষেবা সম্পন্ন করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন- কোভিড ১৯ দীর্ঘস্থায়ী ক্ষতি করে দিচ্ছে মহিলাদের শরীরে,কী পার্থক্য পুরুষ ও নারীতে

ICMR-এর উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলির জন্য এই পরিষেবা ব্যবহার করে জনস্বাস্থ্য রক্ষার খাতিরে। কোভিড ভ্যাকসিনের মতো প্রাণদায়ী টিকা পৌঁছে দেওয়াও ছিল তারই অঙ্গ। স্বাস্থ্য খাতে সরকারি অন্ত্যোদয় প্রকল্পের আওতায় দেশের প্রতিটি নাগরিকের কাছে চিকিৎসা পরিষেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যেই এই ড্রোনের ব্যবহার করা হয়।

লজিস্টিক পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সংস্থা ডেলহিভারিও (Delhivery) সম্প্রতি ঘোষণা করেছে তারা ক্যালিফোর্নিয়া থেকে রোবোটিক পরিবহণের কথা ভাবছে। এ ক্ষেত্রেও ড্রোন ব্যবহার করা হতে পারে।

শুধু ভারতে নয়। সারা বিশ্বেই ড্রোনের পণ্য পরিবহণ ক্ষমতা বাড়ছে। অতি সম্প্রতি ইন্টারনেট জায়ান্ট অ্যালফাবেট (Alphabet)-এর ড্রোন ডেলিভারি সংস্থা ‘উইং’ (Wing) সফল ভাবে পরিবহণ করেছে। টেক্সাসের ডালাস এলাকা থেকে এক বাক্স ওষুধ নিয়ে আমেরিকা এক গুরুত্বপূর্ণ বসতি এলাকায় তা পৌঁছে দিয়েছে সফল ভাবে। গত ডিসেম্বরে ইজরায়েলের তেল আভিভে তিনটি ড্রোন সফল ভাবে সুশি এবং বিয়ারের ক্যান পৌঁছে দিয়েছে গ্রাহকের কাছে।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Drone, Food Delivery App

পরবর্তী খবর