Home /News /explained /
Income Tax return: ২০২২-২৩ অর্থবর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা করার আগে অবশ্যই দেখে নিন সরকারি এই নির্দেশিকা

Income Tax return: ২০২২-২৩ অর্থবর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা করার আগে অবশ্যই দেখে নিন সরকারি এই নির্দেশিকা

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন জমা করার জন্য ১ থেকে ৫টি ফর্ম ইস্যু করা হয়েছে।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: সম্প্রতি ভারত সরকারের অর্থ মন্ত্রকের সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডায়রেক্ট ট্যাক্সেস (Central Board of Direct Taxes) দফতর থেকে ২০২২-২৩ অর্থবর্ষের জন্য ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন (ITR) জমার উদ্দেশ্যে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি পাঁচটি নতুন ফর্মও ইস্যু করেছে সিবিডিটি (CBDT)। এই বিষয়ে ২০২২-২৩ অর্থবর্ষের আয়কর রিটার্ন জমা করার আগে নতুন ওই নির্দেশিকা ও ইস্যু করা ফর্মগুলির দিকে আয়করদাতাকে বিশেষভাবে নজর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। ইতিমধ্যেই সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডায়রেক্ট ট্যাক্সেসের তরফ থেকে ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন জমা করার জন্য ১ থেকে ৫টি ফর্ম ইস্যু করা হয়েছে। সিবিডিটি থেকে ইস্যু করা ওই ফর্মগুলিতে বলা হয়েছে কোনও ব্যক্তি যদি বিদেশে চাকরি করার পর অবসর গ্রহণ করেন, এক্ষেত্রে বিদেশ থেকে পাঠানো অবসরকালীন ভাতা যদি ২.৫ লক্ষ টাকার বেশি হয় তাহলে ওই ব্যক্তিকে বিভিন্ন আর্থিক লেনদেন এবং সুবিধা সম্পর্কে তথ্য দিতে হবে সরকারের ঘরে। এবার দেখে নেওয়া যাক ওই পাঁচটি ফর্ম সম্পর্কে সরকারি নির্দেশিকায় ঠিক কী বলা হয়েছে।

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন বা আইটিআর ফর্ম (১)-

ইনকাম ট্যাক্সের ১ নম্বর ফর্মটি পূরণ করে জমা দিতে হবে ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আয় অর্থাৎ উপার্জন করা ব্যক্তিদের। ওই নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ৫০ লক্ষ টাকা আয় করা ব্যক্তি কোনও সাধারণ ব্যক্তি নয়। কোনও সংস্থা থেকে বেতনভুক্ত আয় বা তার বাড়ির সম্পত্তি বা অন্য যে কোনও উৎস মারফত আয়ের যাবতীয়য় তথ্য যেমন দিতে হবে, তেমনই ওই ব্যক্তি যদি কৃষিকাজ থেকে ৫ হাজার টাকাও আয় করে থাকেন, তা হলেও তার তথ্য দিতে হবে সরকারকে। এটি অবশ্য বিগত বছরের অনুরূপ বলে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি এই বছর আয়কর রিটার্ন জমাকারীকে তার নেট অর্থাৎ পুরো বেতন গণনা করার সময় বিদেশি অবসর তহবিল থেকে আয় সম্পর্কে তথ্য প্রদান করতে হবে। এমনকী ওই ব্যক্তির বিদেশি অবসর তহবিল একটি বিজ্ঞাপিত দেশে আছে কি না তাও প্রকাশ করতে হবে।

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন বা আইটিআর ফর্ম (২)-

আইটিআর ২ নম্বর ফর্মে বার্ষিক ২.৫ লক্ষ টাকার বেশি আমানতের জন্য ভবিষ্যৎ তহবিলে অর্জিত সুদ সম্পর্কিত তথ্য দিতে হবে। এ ক্ষেত্রে যে কোনও কর্মচারীকে ভবিষ্যৎ তহবিলে অর্থাৎ উচ্চ-মূল্যের আমানতকারীদের কর দেওয়ার জন্য নির্ধারিত করা হয়েছে। এই নিয়মটি অবশ্য গত বছর থেকেই চালু রয়েছে। এমনকী মূল্যায়নকারীকে লভ্যাংশ আয়ের অতিরিক্ত তথ্য প্রদান করতে হবে এবং ডবল ট্যাক্সেশন অ্যাভয়ডেন্স এগ্রিমেন্ট (DTAA) হারে লভ্যাংশ আয় জানাতে হবে।

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন বা আইটিআর ফর্ম (৩)-

কোনও ব্যবসা বা পেশা থেকে লাভ হিসাবে আয় আছে এমন ব্যক্তিদের এই ফর্মটি পূরণ করে জমা করতে হয়। এ বিষয়ে সিবিডিটি-র তরফ থেকে বলা হয়েছে কোনও ব্যক্তি এবং এইচইউএফ (HUF), যাদের ব্যবসা বা পেশার লাভ থেকে আয় রয়েছে তারাই এই ফর্মটি পূরণ করে দাখিল করবে।

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন বা আইটিআর ফর্ম (৪)-

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্নের ৪ নম্বর ফর্মটি কোনও ব্যক্তি অথবা সংস্থাগুলির দ্বারা ফাইল করা যেতে পারে, যার মোট আয় ৫০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত এবং ব্যবসা এবং পেশা থেকে আয় রয়েছে। এটি এমন একজন ব্যক্তির জন্য নয় যিনি হয় কোনও কোম্পানির পরিচালক বা তালিকাবিহীন ইক্যুইটি শেয়ারে বিনিয়োগ করেছেন।

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন বা আইটিআর ফর্ম (৫)-

ইনকাম ট্যাক্স রিটার্নের ৫ নম্বর ফর্মটি সীমিত দায়বদ্ধতা অংশীদারিত্ব (LLPS) দ্বারা দায়ের করা হয়। সিবিডিটি-র নিয়ম অনুসারে এই ফর্মটি মূলত কোনও ব্যক্তি, এইচইউএফ (HUF), কোম্পানি, আইটিআর ৭ নম্বর ফর্ম পূরণকারী ছাড়া অন্য ব্যক্তিদের জন্য।

ক্রিপ্টোকারেন্সি ট্যাক্স আইটিআর বা ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন-

সব শেষে ওঠে ক্রিপ্টোকারেন্সির প্রসঙ্গ। এ বিষয়ে একেএম (AKM) গ্লোবাল পার্টনার, ট্যাক্স ডিপার্টমেন্টের উচ্চপদস্থ আধিকারিক সন্দীপ সেহগাল বলেছেন বর্তমান নিয়ম বা ফর্মগুলিতে যে কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে 89A ধারার অধীনে ভারতীয় বাসিন্দাদের দ্বারা রক্ষণাবেক্ষণ করা অবসর অ্যাকাউন্টের ত্রাণের জন্য একটি কলাম এবং প্রাপ্ত লভ্যাংশের ক্ষেত্রে একটি পৃথক কলাম। এ বিষয়ে সংবাদ সংস্থা পিটিআই-কে তিনি বলেছেন, নতুন ইস্যু করা এই ফর্মগুলিতে ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলির জন্য ট্যাক্সের বিষয়ে অস্বচ্ছতা রয়েছে।

First published:

Tags: Income Tax, ITR

পরবর্তী খবর