দশ ফুট লম্বা গলার স্তন্যপায়ী, তাও আবার উড়ন্ত! বিজ্ঞানীরা কী বলছেন...

দশ ফুট লম্বা গলার স্তন্যপায়ী, তাও আবার উড়ন্ত! বিজ্ঞানীরা কী বলছেন...

Azhdarchid pterosaurs were massive flying reptiles that soared across the skies in the age of the dinosaurs, using their long bills to pick out their prey of fish and other river animals.

বৃহচঞ্চু-র এই প্রাণীর গলা নিয়ে ভেবেই চলেছেন বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি : Azhdarchid pterosaurs প্রাগৈতিহাসিক এই প্রাণী- র অস্তিত্ব নিয়ে বিজ্ঞানীরা নতুন সব তথ্য সামনে আনছেন৷ ১০ ফুট লম্বা গলা এবং বিশালাকৃতি চঞ্চু দিয়ে আকাশ পথে উড়ে বেড়াতো তারা৷ নজর থাকত জলাশয়ে মাছ ও অন্য প্রাণীতে উড়তে উড়তেই লম্বা ঠোঁট ডুবিয়ে তুলে নিত নিজের শিকার বা খাদ্য৷ সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় তাদের ১০ ফুট বা ৩ মিটারের কাছাকাছি লম্বা গলা থাকত৷ তার গলা জিরাফের থেকেও লম্বা ছিল এমনটাই জানাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা৷ এই লম্বা গলা নিয়ে কী করে তারা চলাফেরা করত তা নিয়ে সকলের মনেই প্রশ্ন৷

    মরক্কোর একদল বিজ্ঞানী এই বিষয়টি নিয়ে রিসার্চ করতে গিয়ে জানা গেছে গলায় অসম্ভব হালকা অথচ ওজন বহনকারী ক্ষমতা থাকত ওই লম্বা গলায়৷ কারিয়াদ উইলিয়ামস এই  বিষয়ে রিসার্চ করে তা প্রকাশ করেন আই সায়েন্স জার্নালে৷ গলার এই বিশেষ গঠন তাঁরা সিটি স্ক্যানের জন্য পাঠান৷  যা ফলাফল আসে তাতে তারা চমকে যান৷ এই ধরণের অদ্ভুত গঠন তাঁরা কখনই দেখননি তারা জানিয়েছন একেবারে সবকিছুর থেকে আলাদা তাদের এই গলার গঠন৷ এমনটা মত ইলিনয়েস বিশ্ববিদ্যালয়ের রিসার্চ স্টুডেন্টর৷

    আধুনিক কালে বা পুরনো সময় কোনও দিনই এই ধরণের গলা দেখা যায়নি৷ নিউরাল টিউব দিয়ে নিজের মেরুদণ্ডে নিজের স্নায়ুতন্ত্র বয়ে নিয়ে যেত৷ সেটা মধ্যিখানে ছিল৷ হাড়ের এদিক ওদিক গঠিত ছিল৷ বাই সাইকেলের স্পোক যেরকম থাকে সেভাবেই হাড় এদিক ওদিকে থাকত৷ হেলিক্সের মতো গঠনে এটাই তাকে লম্বা ঘাড় বয়ে নিয়ে যেতে দিত৷ পাশাপাশি সেটাই এই লম্বা গলাকে শক্তি দিত৷ ৯০ শতাংশ ওজন বহন করার ক্ষমতা রাখত এই গলাটা৷

    এই যে সব তথ্য পাওয়া গেছে তার থেকে আরও রিসার্চের বিষয়টি দেখাচ্ছে৷

    Published by:Debalina Datta
    First published:

    লেটেস্ট খবর