Home /News /explained /
Employment: বিপুল কর্মসংস্থান, বাড়ছে চাকরির বাজার; মোটা অঙ্কের চাকরি করতে চাইলে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে এই সেক্টরগুলোতে!

Employment: বিপুল কর্মসংস্থান, বাড়ছে চাকরির বাজার; মোটা অঙ্কের চাকরি করতে চাইলে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে এই সেক্টরগুলোতে!

Employment: বেসরকারি চাকরির বাজারে কোন কোন সেক্টর বা বিভাগগুলি চাকরিপ্রার্থীদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ নিয়ে আসতে চলেছে, জেনে নেওয়া যাক!

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: গত দু' বছর যাবত করোনা আবহে ত্রস্ত গোটা পৃথিবী। সামাজিক বিপর্যয়ের সঙ্গে গত দু'বছরে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে আর্থিক বিপর্যয়। তবে এবার করোনাকালের আর্থিক খরা কাটিয়ে ফের অর্থনৈতিকভাবে চাঙ্গা হওয়ার রাস্তায় হাঁটছে দেশের নামীদামী বেসরকারি সংস্থাগুলি। নতুন করে প্রচুর পরিমাণ পুঁজি বিনিয়োগ করে মূলধন বাড়ানোর পাশাপাশি হাজার হাজার কর্মী নিয়োগ করতে চলেছে তারা। তালিকায় রয়েছে তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা টিসিএস থেকে শুরু করে ইনফোসিস ও উইপ্রো-র মতো একাধিক বেসরকারি সংস্থা। সাম্প্রতিক সময়ে এই সংস্থাগুলির একাধিক ইতিবাচক পদক্ষেপের কারণে চাকরির বাজারে দ্রুত হারে কর্মসংস্থান হতে পারে লক্ষ লক্ষ চাকরিপ্রার্থীর। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক অর্থনীতিবিদ থেকে শুরু করে বিশেষজ্ঞরা এ বিষয়ে ঠিক কী বলছেন! বেসরকারি চাকরির বাজারে কোন কোন সেক্টর বা বিভাগগুলি চাকরিপ্রার্থীদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ নিয়ে আসতে চলেছে, জেনে নেওয়া যাক তাও।

বর্তমানে চাকরিপ্রার্থীরা কোন বিভাগগুলিতে তাঁদের পছন্দের চাকরি খুঁজে নিতে পারেন?

সাম্প্রতিক স্টাফিং ফার্ম এবং জব বোর্ড থেকে সংগৃহীত ডেটা বা তথ্য অনুসারে বর্তমানে দেশের আইটি, টেলিকম, এফএমসিজি, বিএফএসআই, ইকমার্স, শিক্ষা, ই-মোবিলিটির মতো সেক্টরগুলোতে প্রচুর পরিমাণ কর্মসংস্থানের সুযোগ রয়েছে। তবে ওই বিভাগগুলিতে নিয়োগকারী সংস্থার বিজ্ঞাপন এবং অপ্রয়োজনীয় খুচরা বিক্রয়ের মতো বিভাগগুলি পুরোপুরি পুনরুদ্ধার করতে আরও কয়েক মাস সময় লাগবে বলেও জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এছাড়াও সাম্প্রতিক টিমলিজ পরিসংখ্যান অনুযায়ী বর্তমান চাকরির বাজারে আইটি, শিক্ষা, ইন্টারনেটভিত্তিক খুচরো, স্টার্টআপ এবং ফার্মার মতো সেক্টরগুলি হল মূল, যেখানে নিয়োগের সম্ভাবনা অন্তত এক চতুর্থাংশের জন্য কার্যকরী। একইভাবে, এফএমসিজি, টেলিকম, প্রচলিত অপরিহার্য খুচরা, এবং লজিস্টিকগুলোও চাকরির বাজারে দিশা দেখাচ্ছে বলে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি ব্যাঙ্কিং, আর্থিক এবং বিমা সংস্থাগুলি করোনা বিপর্যয় কাটিয়ে ক্রমশ আর্থিকভাবে স্বচ্ছলতার দিকে এগিয়ে আসতে চলেছে বলে জানানো হয়েছে।

কোন কোন ওয়েব সাইটে গিয়ে চাকরিপ্রার্থীরা তাঁদের পছন্দের চাকরি খুঁজে নিতে পারেন?

বর্তমানে চাকরির বাজার সম্পর্কে জানতে চাকরি প্রার্থীদের দেখে নেওয়া উচিৎ monster.com এবং Naukri.com-এর মতো 'জব' সাইটগুলো। গত কয়েকমাসে এই সাইটগুলো বিভিন্ন সেক্টরগুলোতে প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করে নতুন দিশা দেখিয়েছে লক্ষ লক্ষ চাকরিপ্রার্থীদের।

বর্তমান চাকরির বাজারের অবস্থা ঠিক কী রকম?

চলতি এবং আগামী আর্থিক বছর অর্থাৎ ২০২২-২৩-এ আর্থিক ভাবে লাভবান হতে বর্তমানে ত্রৈমাসিক সেলস রোলে চাকরি প্রার্থীদের নিয়োগ করার অভিপ্রায় রয়েছে একাধিক বেসরকারি সংস্থার। টিমলিজের তথ্য অনুযায়ী গত ৩১ মার্চ পর্যন্ত ত্রৈমাসিক হিসাব অনুসারে ইন্ডিয়ান ইনকর্পোরেটেডের মধ্যে নতুন করে কর্মী নিয়োগ হয়েছে প্রায় ৭১ শতাংশ। এটি চাকরির বাজারে ক্রমবর্ধমান সূচককেই প্রসারিত করছে বলে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন- ৩৮ শূন্যপদে অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর নিয়োগ করবে এই কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়! জানুন বিস্তারিত

পাশাপাশি আইটি অর্থাৎ তথ্যপ্রযুক্তির মতো সেক্টর বা বিভাগে নিয়োগের লক্ষ্য মাত্রা সদ্য শেষ হওয়া মার্চ মাসের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়ে ৬১ শতাংশ থেকে হয়েছে ৭৫ শতাংশ। এছাড়াও বিভিন্ন ইঞ্জিনিয়ারিং এবং মার্কেটিং-র মতো সেক্টরেও প্রচুর কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হয়েছে গত কয়েকমাসে। আইটি অর্থাৎ ইনফরমেশন অ্যান্ড টেকনোলজি এবং টেলিকম বিভাগে বিক্রয় এবং প্রযুক্তিতে প্রচুর লোক নিয়োগ করতে চলেছে একাধিক সংস্থা। এই সমস্ত সেক্টরগুলোতে ইঞ্জিনিয়ারদের ভাল চাহিদা রয়েছে। টেলিকম এবং অ্যালায়েড স্পেসে চাকরিপ্রার্থীদের জন্য প্রচুর কর্মসংস্থানের সুযোগ বৃদ্ধি হয়েছে। দেশের নামজাদা দুটি তথ্য প্রযুক্তি সংস্থা ইনফোসিস এবং টিসিএস-এ চলতি বছর ১ লক্ষ ৯০ হাজার কর্মী নিয়োগই তার জয়ন্ত প্রমাণ বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। ২০২০ সালে কর্মী নিয়োগের পরিমাণ যেখানে ছিল মাত্র ২৭ শতাংশ, সেখানে তা চলতি বছরে গিয়ে দাঁড়িয়েছে ৫৪ শতাংশে।

বর্তমান বাজারে চাকরিপ্রার্থীদের জন্য কী সুযোগ রয়েছে?

বিশেষজ্ঞরা টিমলিজের সাম্প্রতিক তথ্য তুলে ধরে জানিয়েছেন, শুধুমাত্র শিক্ষা ব্যবস্থায় দিকে নজর রাখলে দেখা যাবে প্রাথমিক থেকে তৃতীয় বিভাগে ক্লাস চালু হয়েছে। এটিতে প্রচুর কর্মী নিয়োগের সম্ভনা রয়েছে। ৯৫ শতাংশ প্রযুক্তি সংস্থা এপ্রিল-জুন মাসে নিয়োগের পরিকল্পনা করছে। বিষয়টিতে নজর দিতে গত তিন মাসে প্রায় ৮৬ শতাংশ শিক্ষাবিদ নিয়োগ করছে একাধিক সংস্থা। এ ছাড়াও ইকমার্স এবং প্রযুক্তি সহ স্টার্ট-আপ-এ ৮১ শতাংশ, স্বাস্থ্যসেবা এবং ফার্মা সেক্টরে ৭৮ শতাংশ নিয়োগ হয়েছে। নিয়োগকারী সংস্থাগুলো চলতি বছরের শুরু থেকেই প্রচুর পরিমাণ কর্মী নিয়োগের ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। দেশের প্রায় ৫৭ শতাংশ বেসরকারি সংস্থা প্রচুর সংখ্যায় কর্মী নিয়োগের বিষয়ে জানিয়েছে ইতিমধ্যেই।

Published by:Rachana Majumder
First published:

Tags: Employment, Job, Job alert

পরবর্তী খবর