Home /News /explained /
Explained | Booster dose : বুস্টার শটের পরেও কি আবার টিকার ডোজ নিতে হবে? কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা

Explained | Booster dose : বুস্টার শটের পরেও কি আবার টিকার ডোজ নিতে হবে? কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা

Booster Dose

Booster Dose

Explained | Booster dose : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) সতর্ক করেছে মূল টিকা কম্পোজিশনের বুস্টার ডোজ বারবার দেওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেছেন।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাসের (Coronavirus) ওমিক্রন প্রজাতির (Omicron Variant) উদ্ভবের সঙ্গে সঙ্গেই স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা কোভিড টিকার (COVID Vaccine) কার্যকারিতা হ্রাসের বিরুদ্ধে সতর্ক করেছেন। এটা মনে করা হচ্ছে যে কোভিড টিকার দুটি স্ট্যান্ডার্ড ডোজ ভাইরাসের পরিবর্তিত রূপের বিরুদ্ধে যথেষ্ট সুরক্ষা প্রদান করে না, যা বিশাল উদ্বেগের কারণ। এই ধরনের আশঙ্কার আবহে বিজ্ঞানীরা এবং চিকিৎসা পেশাদাররা টিকাগুলিকে আপডেট বা প্রজাতি নির্দিষ্ট টিকা তৈরির কথা বলেছেন। যা নতুন স্ট্রেনের বিরুদ্ধে কার্যকর প্রমাণিত হবে। উপরন্তু, এটি পাওয়া গিয়েছে যে টিকার বুস্টার ডোজগুলি (Booster Dose) অত্যন্ত সংক্রমণযোগ্য প্রজাতির বিরুদ্ধে সুরক্ষা প্রদানে কার্যকর। ভারতও এই বছরের ১০ জানুয়ারি থেকে সতর্কতামূলক ডোজ (Precaution Dose) দেওয়া শুরু হয়েছে।

    যাই হোক, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) সতর্ক করেছে মূল টিকা কম্পোজিশনের বুস্টার ডোজ বারবার দেওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেছেন। তাঁদের দাবি, এই টিকা দেওয়ার কৌশল উপযুক্ত বা টেকসই হওয়ার সম্ভাবনা কম।

    কেন আমাদের COVID বুস্টার শট দরকার?

    টিকার দুটি ডোজ দ্বারা পাওয়া রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে করোনাভাইরাসের বুস্টার শটগুলি দেওয়া হয়। যদিও বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে টিকা থেকে প্রাপ্ত অনাক্রম্যতা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে হ্রাস পেতে পারে, অতিরিক্ত শট নেওয়া হলে আরও কার্যকর ইমিউন প্রতিক্রিয়া ট্রিগার করতে পারে, পাশাপাশি শরীরে অ্যান্টিবডির সংখ্যাও বৃদ্ধি করতে পারে। নতুন কোভিড প্রজাতির আবির্ভাবের পরে বুস্টার শটগুলির চাহিদা বেড়েছে। কারণ, টিকা নেওয়ার পরেও সংক্রমিত (Breakthrough Infections) হচ্ছেন অনেকে এবং সম্পূর্ণরূপে টিকা নেওয়া হলেও ঝুঁকি থেকে যাচ্ছে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, তৃতীয় কোভিড টিকার ডোজ শুধুমাত্র অনাক্রম্যতা (Immunity) বৃদ্ধি করবে।

    অনাক্রম্যতা হ্রাসের সমস্যা: ভারতে করোনাভাইরাসের গণটিকাকরণ ঠিক এক বছর আগে দেওয়া শুরু হয়েছিল। কোভিড-১৯ টিকাগুলি প্রথম দেওয়া হয়েছিল ৪৫ বছরের বেশি বয়স্কদের। যাঁদের টিকা দেওয়ার জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছিল তাঁদের মধ্যে ছিলেন স্বাস্থ্যসেবা এবং ফ্রন্টলাইন কর্মীরাও।

    এখন, নতুন উদীয়মান প্রজাতির কারণে বলা হচ্ছে যে টিকার কার্যকারিতা কমছে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বুস্টার শটগুলি একজনের ইমিউন সিস্টেমকে আবারও জাগিয়ে তোলে রোগ প্রতিরোধ করবার জন্য।

    কাদের বুস্টার ডোজ নিতে হবে?

    বয়স্করা, যাঁদের পূর্ব-বিদ্যমান দীর্ঘস্থায়ী অসুস্থতা রয়েছে তাঁদের বুস্টার ডোজ নেওয়া উচিত। এছাড়াও যাঁরা ইমিউনোকম্প্রোমাইজড (Immunocompromised) বা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম, তাঁদেরও বুস্টার শট দেওয়ার জন্য অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত। বর্তমানে, ভারতে ১০ জানুয়ারি থেকে বুস্টার ডোজ দেওয়া শুরু হয়েছে। চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী, পুলিশ সহ ফ্রন্টলাইন ওয়ার্কার্স ও ষাটোর্ধ্বরা এই ডোজ পাচ্ছেন। তবে ককটেল নয়, আগে যে টিকা নেওয়া হয়েছে, সেই টিকারই বুস্টার ডোজ দেওয়া হচ্ছে।

    আমাদের কি বার বার বুস্টার ডোজ নেওয়ার প্রয়োজন হবে? এটা কি টেকসই?

    ইজরায়েল ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সীদের কোভিড-১৯ টিকার চতুর্থ ডোজ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। তাই অনেকেই ভাবতে শুরু করেছেন যে বুস্টার শটগুলি একটি নিয়মিত ব্যাপার হয়ে উঠবে কি না। গবেষণা এবং আলোচনা চলছে, বিশেষজ্ঞরা বিতর্ক করছেন। তাঁদের মধ্যে আশঙ্কা কাজ করছে যে বুস্টার ডোজ ভাইরাসের উদীয়মান প্রজাতিগুলি থেকে সুরক্ষা দেওয়ার জন্য যথেষ্ট হবে, না কি আমাদের বার বার ডোজ নেওয়ার প্রয়োজন হবে। যদিও বুস্টার শটগুলি কিছু পরিমাণে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে, বিশেষ করে ওমিক্রন প্রজাতির ক্ষেত্র। চতুর্থ ডোজ বা বার বার বুস্টার ডোজ নতুন প্রজাতির বিরুদ্ধে উচ্চ সুরক্ষা প্রদান করে কি না তা এখনও জানা যায়নি।

    আরও পড়ুন- ওমিক্রনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে হাতিয়ার হতে পারে দেশে তৈরি এই টিকা!

    ইজরায়েলের একটি সাম্প্রতিক গবেষণায় পাওয়া গিয়েছে যে একটি টিকার চতুর্থ ডোজ ওমিক্রন প্রজাতির সংক্রমণের বিরুদ্ধে শুধুমাত্র সীমিত সুরক্ষা প্রদান করতে পারে। প্রতিবেদন অনুসারে, শেবা মেডিকেল সেন্টারের সংক্রামক রোগ ইউনিটের পরিচালক এবং প্রধান গবেষক অধ্যাপক গিলি রেগেভ-ইয়োচায় বলেছেন যে চতুর্থ ডোজ তিনটি শটের তুলনায় করোনাভাইরাস থেকে রক্ষা করে এমন অ্যান্টিবডি বাড়াতে পারে। তবে, এটি ওমিক্রন সংক্রমণ থেকে সম্পূর্ণরূপে রক্ষা করার জন্য যথেষ্ট নয়। উপরন্তু, বুস্টার ডোজের বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (WHO) অবস্থান আগের মতোই রয়েছে। আগেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছিল যে প্রাথমিক টিকা সিরিজকে বুস্টার টিকা দেওয়ার চেয়ে অগ্রাধিকার দেওয়া উচিত। অর্থাৎ আগে টিকার প্রাথমিক সম্পূর্ণ ডোজ দেওয়া অগ্রাধিকার উচিত।

    সংস্থাটি বলেছিল, "জনসংখ্যার একটি বৃহৎ সংখ্যাকে বুস্টার ডোজ দেওয়া হচ্ছে, যখন অনেকেই এখনও প্রথম ডোজ পাননি। এটা নীতিগত ভাবে ঠিক নয়। প্রাথমিক ডোজ দেওয়ার গতি বুস্টার ডোজ দেওয়ার গতির চেয়ে বাড়ানো উচিত। এটাকেই আগে অগ্রাধিকার দেওয়া বিশ্বব্যাপী মানুষের স্বাস্থ্য, সামাজিক ও অর্থনৈতিক মঙ্গল হবে। না হলে অতিমারীর গুরুতর প্রভাব সংক্রমণকে বাগে আনার সম্ভাবনাকেও ক্ষতি করতে পারে।"

    আরও পড়ুন- কখন কোভিড টেস্ট করা প্রয়োজন, কখন নয়? জেনে নিন

    প্রজাতি-নির্দিষ্ট ভ্যাকসিনের ভূমিকা: নতুন ভাইরাল স্ট্রেনের প্রাথমিক রিপোর্ট বিশ্ব জুড়ে স্বাস্থ্য আধিকারিকদের আশঙ্কা বাড়িয়েছে। ওমিক্রনের স্পাইক প্রোটিনে তিরিশের বেশি মিউটেশন রয়েছে, তাই এটি মনে করা হয় যে এই প্রজাতি টিকা থেকে প্রাপ্ত অনাক্রম্যতা থেকে রক্ষা পেতে পারে। এর ফলে বিদ্যমান কোভিড টিকাগুলি আপডেট করা বা প্রজাতি-নির্দিষ্ট টিকা (Omicron Specific Vaccines) তৈরির প্রয়োজনীয়তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে। মডার্না (Moderna) প্রথম ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি ছিল যারা দাবি করেছিল যে বর্তমানে চালু থাকা টিকাগুলি নতুন প্রজাতির বিরুদ্ধে কম কার্যকর হতে পারে, একই সঙ্গে এটাও ঘোষণা করেছিল যে তারা নির্দিষ্টভাবে ওমিক্রন প্রজাতির জন্য এই বছরের প্রথম দিকে টিকা আনতে চলেছে।

    এখন ফাইজার (Pfizer) এবং মডার্না (Moderna) উভয় সংস্থারর সিইও-র মতে, ওমিক্রন প্রজাতিকে টার্গেট করার জন্য বিশেষভাবে দুটি নতুন টিকা শীঘ্রই প্রস্তুত করা হবে। যাই হোক, অনেকেই এই ধরনের টিকার কার্যকারিতা নিয়ে সন্দিহান থাকেন, প্রশ্ন করেন যে এটি বিদ্যমান টিকা থেকে কীভাবে আলাদা এবং এটি আদৌ প্রয়োজন কি না।

    ওমিক্রন নির্দিষ্ট টিকাগুলি বিশেষভাবে ওমিক্রন প্রজাতিকে টার্গেট করার জন্য তৈরি করা হয়েছে। সম্প্রতি, ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ফাইজার-বায়োএনটেক (Pfizer-BioNtech) এবং মডার্না (Moderna) ঘোষণা করেছে যে তারা ওমিক্রন নির্দিষ্ট টিকার ক্লিনিকাল ট্রায়াল শুরু করেছে। দুটি টিকাই একই এমআরএনএ (mRNA) প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে। ওমিক্রন প্রজাতিতে অন্তত ৫০টি মিউটেশন রয়েছে, যা এটিকে প্রথম দিকের করোনাভাইরাসের থেকে আলাদা করে। প্রজাতি-নির্দিষ্ট টিকা তাই মূল টিকা থেকে কিছুটা আলাদা বলে মনে করা হয়। মেসেঞ্জার আরএনএ (mRNA) টিকা মারাত্মক রোগজীবাণুগুলির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য কোষগুলিকে সক্রিয় করে একটি ইমিউন প্রতিক্রিয়া শুরু করে। এগুলি কোষকে প্রোটিন বা করোনাভাইরাস স্পাইক প্রোটিনের টুকরো তৈরি করতে নির্দেশ দেয়, যা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করে। এই কৃত্রিমভাবে তৈরি স্পাইক প্রোটিনগুলো মূল ভাইরাসের মতো প্রতিলিপি তৈরি করতে পারে না।

    Published by:Swaralipi Dasgupta
    First published:

    Tags: Corona Booster Dose, Corona Vaccine

    পরবর্তী খবর