• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • TOLLYWOOD MOVIES I DONT KNOW IF I WILL EVER SEE AGAIN PAROMA BANERJEE WROTE ABOUT HER NIGHTMARE ON SOCIAL MEDIA SR

Paroma Banerjee: ‘আর কোনওদিন দৃষ্টি ফিরবে কিনা জানি না’, ভয়াবহ অভিজ্ঞতা শেয়ার করলেন পরমা

করোনায় দৃষ্টিশক্তি হারাতে বসেছেন পরমা । ছবি- ফেসবুক ।

বৃহস্পতিবার রাতে এই পোস্ট করে পরমা (Paroma Banerjee) লেখেন, তাঁর বাম চোখের দৃষ্টি প্রায় চলে গিয়েছে । তিনি নিজেও জানেন না, আর কোনওদিন দেখতে পাবেন কিনা । চোখে অস্ত্রোপচার করা হয়েছে তাঁর ।

  • Share this:

    #কলকাতা: মারাত্মক অভিজ্ঞতার কথা ফেসবুকে শেয়ার করলেন জনপ্রিয় গায়িকা, সঞ্চালিকা পরমা বন্দ্যোপাধ্যায় (Paroma Banerjee)। করোনা যে মানুষকে কোন দিক থেকে, কী ভাবে ক্ষতি করে দেবে, তার ধারণা নেই অনেকেরই । তাই সকলকে সতর্ক থাকতে বললেন পরমা । করোনার (Coronavirus) কড়াল গ্রাসে হয়তো নিজের দৃষ্টিশক্তিই হারাতে চলেছেন শিল্পী । তিনি নিজে ভয়ানক উদ্বিগ্ন ও চিন্তিত, তাই সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিলেন গত এক সপ্তাহে তাঁর জীবনে বয়ে যাওয়া ঝড়ের কথা ।

    ফেসবুকে হাসপাতালের বিছানা থেকে একটি ছবি পোস্ট করেছেন পরমা । যা দেখে শিউরে উঠছেন নেটিজেনরা । পরমার এক চোখে বাঁধা ব্যান্ডেজ । ছবির নীচে পরমা লিখেছেন, ‘করোনা থেকে সাবধান হোন, হয়তো আপনি করোনামুক্ত হয়ে যাবেন, প্রাণেও বেঁচে যাবেন । কিন্তু আপনার গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গহানি হয়ে যেতে পারে ।’ বৃহস্পতিবার রাতে এই পোস্ট করে পরমা লেখেন, তাঁর বাম চোখের দৃষ্টি প্রায় চলে গিয়েছে । তিনি নিজেও জানেন না, আর কোনওদিন দেখতে পাবেন কিনা । চোখে অস্ত্রোপচার (Eye Surgery) করা হয়েছে তাঁর । অপারেশন সফল হয়েছে কিনা তা ব্যান্ডেজ খোলার পরেই জানা যাবে ।

    শিল্পী লেখেন, সামান্য জ্বর-সর্দিকাশি হয়েছিল তাঁর । জেনারেল ফিজিশিয়ান ডঃ মণীশ গঙ্গোপাধ্যায়ের পরামর্শ মতো যাবতীয় টেস্ট করান । অ্যান্টি-বায়োটিকের কোর্স শেষ করেন । টেস্টে তেমন কোনও সংক্রমণ ধরা পড়েনি । কিন্তু একদিন হঠাৎই তাঁর বাম চোখটি ঝাপসা হযে যেতে শুরু করে । চোখটা ভারী ভারী লাগছিল । হঠাৎ ৮০ শতাংশ দৃষ্টি চলে যায় তাঁর । সঙ্গে সঙ্গে তিনি যোগাযোগ করেন কলকাতার অন্যতম রেটিনা সার্জেন ড. অভিজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে। তাঁর পরামর্শে হাসপাতালে ভর্তি হন পরমা । চিকিৎসক জানান, VKH Syndrome নামের এক অসুখে ভুগছেন তিনি। ওই অসুখের জেরে চিরতরেও চলে যেতে পারে দৃষ্টি! বন্ধু স্থানীয় ওই চিকিৎসক অবাক হযে পরমাকে জিজ্ঞাসা করেন, ‘এটা কী করে বাঁধালে বলো তো!’

    চিকিৎসকদের পরামর্শে এরপর দ্রুত অপারেশনের তোড়জোড় শুরু হয়ে যায় । প্রচুর ব্লাড টেস্ট করা হয় । চোখের মণি থেকে ফ্লুইড সংগ্রহ করা হয় । তিনি লেখেন, ‘‘আমি এখনও জানিনা আদৌ কী পরিস্থিতি। আদৌ সেরে উঠব কিনা। আপনারা সাবধানে থাকুন এবং আমার জন্য প্রার্থনা করুন ।’’

    Published by:Simli Raha
    First published: