মাথা ভর্তি সিঁদুর, বিছানায় শ্যামা ! একান্ত মুহূর্তের ভিডিওতে ভাইরাল তিয়াশা রায়

photo source Instagram

আপাতত শ্যামা বা তিয়াশা রয়েছেন নিজের শ্বশুর বাড়িতে। সেখান থেকেই নানা ভিডিও শেয়ার করছেন তিনি।

  • Share this:

    #কলকাতা: তিয়াশা রায়কে নিশ্চয় চেনেন? হ্যাঁ, তিয়াশাই ছোট পর্দার শ্যামা। 'কৃষ্ণকলি' ধারাবাহিকের প্রধান চরিত্র তিয়াশা। এই ধারাবাহিক বদলে দিয়েছে তাঁর জীবন। শ্যামলা রঙের মিষ্টি মেয়েকে দেখা মাত্রই ভালোবেসেছে বাঙালি দর্শক। থিয়েটার থেকেই সিরিয়ালে আসা তিয়াশার। তবে ছোট পর্দায় কাজ শুরুর আগেই বিয়ে করে নিয়েছেন শ্যামা। আর তাঁর স্বামীর অনুপ্রেরণাতেই অভিনয়ে এতটা সাফল্য পেয়েছেন শ্যামা। এখন ধারাবাহিকের গতি অন্যদিকে এগিয়েছে। শ্যামার বেশ কিছুটা বয়স হয়েছে, মেয়ের বিয়ে হয়ে গিয়েছে। এখন সে ও নিখিল তাঁদের হারিয়ে যাওয়া ছেলেকে খুঁজছে। বলতে গেলে প্রতিদিন ছক বদলাচ্ছে এই সিরিয়াল। কিন্তু ঘটনা গুলো ঘুরে ফিরে খানিকটা একইরকম। সে যাই হোক। এই সিরিয়ালের শ্যামা বা তিয়াশা কিন্তু বাস্তব জীবনে বেশ মিষ্টি একটি মেয়ে। তাঁর সৌন্দর্যের জাদুতে কাঁপে সোশ্যাল মিডিয়া।

    মাঝে মধ্যেই নানা মজার ভিডিও। ফটোশ্যুটের ভিডিও ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করেন শ্যামা। করোনার জন্য এখন রাজ্যে চলছে লকডাউন। এই সময় বন্ধ থাকবে সিনেমা সিরিয়ালের শ্যুটিং। মানে স্টুডিও পাড়াতেও কোভিডের জন্য এই সতর্কতা নেওয়া হয়েছে। আপাতত ১৫ দিন তো চালিয়ে দেওয়াই যাবে। কিন্তু তার বেশি লকডাউন বাড়লে, গত বছরের পুরনো এপিসোড দেখানো ছাড়া উপায় থাকবে না। তবে আপাতত শ্যামা বা তিয়াশা রয়েছেন নিজের শ্বশুর বাড়িতে। সেখান থেকেই নানা ভিডিও শেয়ার করছেন তিনি।

    এবার ভিডিও শেয়ার করে জানালেন লকডাউনে কি করছেন তিয়াশা ! নিজের ঘরে হলুদ পোশাক পরে আছেন তিনি। মাথা ভর্তি সিঁদুর। খাটে শুয়ে ভিডিও বানালেন শ্যামা ওরফে তিয়াশা। মুখে হালকা হাসি। আবার কিছুটা মন খারাপের ছাপ। ভিডিওতে কোনও শব্দ করেননি তিনি। চুপ থেকেই বোঝাতে চেয়েছেন তাঁর অবস্থা। এই ভিডিও শেয়ার হতেই বহু মানুষ বলেছেন, সুস্থ থাকুন। খুশিতে থাকুন। শ্যামাকে এমন চুপচাপ, মন খারাপে মানায় না। সে কথাও লিখতে দেখা গিয়েছে ভক্তদের। এই ভিডিও শেয়ার করে তিয়াশা লিখলেন, 'লকডাউন'। সত্যিই পরিস্থিতি এতটাই খারাপ, যে মানুষ নিজেকে ঘরে আটকে রাখতে বাধ্য হচ্ছে। করোনা থেকে বাঁচতে এটাই সব থেকে বড় হাতিয়াড়। এই নিয়মের ছাড় নেই অভিনেতা অভিনেত্রীদেরও। সকলকেই থাকতে হচ্ছে ঘরে।

    Published by:Piya Banerjee
    First published: