• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • SRIJIT MUKHERJI SHARES PHOTOGRAPH WITH HIS DAUGHTER WHILE WAITING BEFORE OPERATION ON HER EYES ARC

Srijit Mukherji: ‘আমার রাজকন্যার চোখে অস্ত্রোপচারের জন্য অপেক্ষা করছি’, সৃজিতের পোস্টে আর্দ্র নেটিজেন-মন

ছোট্ট আয়রা গুটিসুটি দিয়ে বসে আছে সৃজিতের কোলে হেলান দিয়ে ৷ তাকে জড়িয়ে আছেন পরিচালক (Srijit Mukherji) ৷ আয়রার চোখে অস্ত্রোপচার করা হবে ৷

ছোট্ট আয়রা গুটিসুটি দিয়ে বসে আছে সৃজিতের কোলে হেলান দিয়ে ৷ তাকে জড়িয়ে আছেন পরিচালক (Srijit Mukherji) ৷ আয়রার চোখে অস্ত্রোপচার করা হবে ৷

  • Share this:

    কলকাতা : ছোট্ট আয়রা গুটিসুটি দিয়ে বসে আছে সৃজিতের কোলে হেলান দিয়ে ৷ তাকে জড়িয়ে আছেন পরিচালক (Srijit Mukherji) ৷ আয়রার চোখে অস্ত্রোপচার করা হবে ৷ সে জন্য চিকিসকের কাছে যাওয়ার আগে অপেক্ষমাণ সৃজিত ও আয়রা ৷ সেই ছবি ফেসবুকে শেয়ার করেছেন পরিচালক ৷ ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘‘আমার রাজকন্যার চোখে অস্ত্রোপচারের জন্য অপেক্ষা করছি৷’’ সৃজিত ও আয়রা, দু’জনের মুখই মাস্কের আড়ালে ৷

    পরিচালকের শেয়ার করা ছবি ও ক্যাপশনে আর্দ্র নেটিজেনদের মন ৷ কবি শ্রীজাত-সহ অনেক নেটিজেন খুদে আয়রার সুস্থতা ও দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন ৷ পারিবারিক পরিসর মাঝে মাঝেই সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করেন সৃজিত ৷ কিছু দিন আগেই তিনি শেয়ার করেছিলেন মিথিলা ও আয়রার সঙ্গে তাঁর ছবি ৷ তিন জনে গাড়িতে কোথাও যাচ্ছিলেন ৷ সেই ছবির ক্যাপশনও মন জয় করেছে দর্শকদের ৷ ক্যাপশনে সৃজিত লিখেছিলেন ‘দ্য মিথিলা রাজ বায়োপিক’ ৷

    সম্প্রতি ওয়েবসিরিজ ‘রে’-এর দু’টি গল্প পরিচালনা করে ফের বিতর্কের কেন্দ্রে সৃজিত ৷ সত্যজিৎ রায়ের ‘বিপিন চৌধুরীর স্মৃতিভ্রম’ এবং ‘বহুরূপী’ গল্পের অনুসরণে সৃজিত করেছেন যথাক্রমে ‘ফগেট মি নট’ ও ‘বহুরূপিয়া’ ৷ মূল গল্প থেকে ছবিতে প্রচুর পরিবর্তন আনায় ইতিমধ্যেই সমালোচিত সৃজিত ৷ সত্যজিৎপ্রেমীদের বড় অংশ পরিচালকের উপর রীতিমতো খ্ড়গহস্ত ৷ তবে অন্যদিকে অনেকেই স্বাগত জানিয়েছেন পরিবর্তনকে ৷

    ওয়েবসিরিজের পাশাপাশি সিরিজ পরিচালনা করছেন ‘এক্স=প্রেম’ এবং মিতালি রাজের বায়োপিক ‘সাবাশ মিতু’৷ হাজারো ব্যস্ততা সত্ত্বেও সৃজিত অতিমারির দ্বিতীয় তরঙ্গে সামিল হয়েছিলেন জনসেবায় ৷ সামাজিক মাধ্যমে তাঁর প্রোফাইলে শেয়ার করেছিলেন গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ৷ সেইসঙ্গে অক্সিজেন পরিষেবা, সেফ হোম-সহ ত্রাণবন্টনে অন্যান্য ক্ষেত্রেও তিনি ছিলেন অগ্রণী ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: