টলিপাড়ায় নতুন গুঞ্জন ! অনিন্দিতার সঙ্গে লিভ ইনের মধ্যেই সৌরভ ঘনিষ্ঠ মধুমিতার সঙ্গে?

মধুমিতা, সৌরভ ও অনিন্দিতা, ছবি-ফেসবুক

টালিগঞ্জে সেই তলিকায় নতুন সংযোজন মধুমিতা সরকার ও সৌরভ দাস ৷ শোনা যাচ্ছে, এ বছর লকডাউনে ঘনিষ্ঠ হয়েছেন এই দুই কুশীলব ৷

  • Share this:

    কলকাতা : অতিমারি ও লকডাউন আবহ ধূসর হলেও সাক্ষী থাকল বেশ কিছু সম্পর্ক ভাঙা ও গড়ার ৷ টালিগঞ্জে সেই তলিকায় নতুন সংযোজন মধুমিতা সরকার ও সৌরভ দাস ৷ শোনা যাচ্ছে, এ বছর লকডাউনে ঘনিষ্ঠ হয়েছেন এই দুই কুশীলব ৷

    সৌরভ অবশ্য বেশ কিছু দিন ধরেই বিতর্কিত খবরে ৷ কয়েক মাস আগে তিনি যোগ দিয়েছিলেন তৃণমূলে ৷ তার পরেই নেটমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে একটি ভিডিয়ো ৷ সেখানে জন্মদিন পালন করছিলেন তিনি ৷ অনুরাগীদের সঙ্গে সেই অনুষ্ঠানে ছিলেন সৌরভের বাবা ও বোনও ৷ নেটিজেনদের অভিযোগ, সেই ভিডিয়োয় সৌরভকে দেখা গিয়েছে তাঁর বোনকে অশ্লীল ভাবে স্পর্শ করতে ৷ এর পর নেটমাধ্যমে তীব্র সমালোচিত হন সৌরভ ও তাঁর পরিবার ৷

    সেই বিতর্কে তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছিলেন প্রেমিকা অনিন্দিতা ৷ দীর্ঘ দিন ধরে তাঁরা লিভ ইন করছেন ৷ সংবাদমাধ্যমে অনিন্দিতা জানিয়েছেন, তাঁরা একটি নতুন বাড়িও কিনেছেন ৷ এর আগে তিনি বিয়ে করেছিলেন অভিনেতা গৌরব চট্টোপাধ্যায়কে ৷ কিন্তু উত্তমকুমারের নাতির সঙ্গে তাঁর দাম্পত্য দীর্ঘস্থায়ী হয়নি ৷ সৌরভ-মধুমিতা বিতর্ককে তিনি ভিত্তিহীন বলেই মন্তব্য করেছেন সংবাদমাধ্যমে ৷

    কাজের প্রয়োজনে অনিন্দিতা সম্প্রতি বেশিরভাগ সময়েই ছিলেন মুম্বইয়ে ৷ তাঁর প্রেমিক সৌরভ কলকাতায় ৷ লকডাউন শুরুর আগে সৌরভকে নাকি পার্টি করতে দেখা গিয়েছে মধুমিতার সঙ্গে ৷ অন্যদিকে অনিন্দিতাও মুম্বইয়ে বিভোর ছিলেন তাঁর বন্ধুদের সঙ্গে ৷

    এই পরিস্থিতিতে পল্লবিত হয়েছে নতুন সম্পর্কের গুঞ্জন ৷ যা নিয়ে বিরক্ত মধুমিতাও ৷ অভিনেতা সৌরভ চক্রবর্তী তাঁর প্রাক্তন স্বামী ৷ বিচ্ছেদের পর একাই থাকেন মধুমিতা ৷ তিনি সম্প্রতি কাজ করেছেন মৈনাক ভৌমিকের ‘চিনি’ ছবিতে, সৌরভ দাসের সঙ্গে ৷ সেটা অনুঘটকের কাজ করেছে নতুন গুঞ্জনে ৷

    তবে ত্রিকোণ গুঞ্জনের তিন বিন্দু অনিন্দিতা, সৌরভ এবং মধুমিতা তিন জনেই সংবাদমাধ্যমে অস্বীকার করেছে এই নতুন রটনা ৷ প্রসঙ্গত মুম্বই থেকে ফেরার পর অনিন্দিতার পরের গন্তব্য দার্জিলিং ৷ সেখানেই হবে অঞ্জন দত্তর নতুন থ্রিলার ছবির শ্যুটিং ৷ এই ছবিতে তিনি ছাড়াও আছেন অর্জুন চক্রবর্তী ও সন্দীপ্তা সেন ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: