Kareena Kapoor : সন্তানের নাম কী হবে, ঠিক করতে পারেন শুধু তার বাবা, মা-ই, করিনার পাশে ননদিনী সাবা

করিনা ও সাবা

ব্যক্তিগত পরিসরে একাধিক সিদ্ধান্তের জন্য বিতর্কের মুখোমুখি হয়েছেন সইফ আলি খান (Saif Ali Khan) এবং করিনা কপূর (Kareena Kapoor)

  • Share this:

    মুম্বই : ব্যক্তিগত পরিসরে একাধিক সিদ্ধান্তের জন্য বিতর্কের মুখোমুখি হয়েছেন সইফ আলি খান (Saif Ali Khan) এবং করিনা কপূর (Kareena Kapoor) ৷ ২০১৬ সালে প্রথম বার মা হন করিনা ৷ ছেলের নাম রাখেন তৈমুর ৷ কেন এই নাম রেখেছেন, সে নিয়ে বিস্তর জলঘোলা ও বিতর্ক হয়েছিল ৷ নামকরণ-বিতর্ক পিছু ছাড়েনি দ্বিতীয় সন্তানের ক্ষেত্রেও ৷

    সইফ ও করিনার দ্বিতীয় সন্তানের নাম ‘জেহ’ বা জাহাঙ্গীর আলি খান ৷ নবজাতকের এই নাম নিয়েও তীব্র ট্রোলিংয়ের মুখে পড়েছেন সইফিনা ৷ সেই বিতর্ক ও ট্রোলিং জারি এখনও ৷ এ বার এই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন সইফের বোন সাবা আলি খান (Saba Ali Khan) ৷ ইনস্টাগ্রামে তিনি সমর্থন করেছেন করিনাকে ৷ সাবা মনে করেন করিনার যা ইচ্ছে, সেই নামই দিতে পারেন তাঁর সন্তানকে ৷ ইনস্টাগ্রামে করিনার একটি ছবি শেয়ার করেছেন সাবা ৷ মলদ্বীপে ছুটি কাটানোর সময় সেই ছবিতে করিনা কোলে ধরে আছেন খুদে জেহকে ৷ ছবিটি শেয়ার করে সাবা লিখেছেন সন্তানের নামকরণের অধিকার আছে শুধুমাত্র তার বাবা-মায়ের ৷

    সাবা লিখেছেন, ‘‘মা যখন তাঁর ভিতরে শিশুকে বহন করেন এবং তাঁকে জীবন দান করেন...শুধু তাঁর এবং জন্মদাতা বাবার অধিকার আছে সন্তান কীভাবে বড় হবে, তা ঠিক করার ৷’’

    বক্তব্যে আরও যোগ করেছেন সাবা ৷ লিখেছেন, ‘‘এবং সন্তানের নাম! কেউ না...কেউ নয়...শুধুমাত্র শিশুর পরিবারের সদস্য, যাঁরা খুশি হয়ে পরামর্শ দেবেন, তাঁদেরই মতামত থাকতে পারে ৷’’ সাবা মনে করেন, মায়ের হৃদয়ই শিশুকে পালন করে৷ বাবা মা-ই সন্তানের জন্য সবথেকে ভাল চিন্তাভাবনা করতে পারেন ৷ লিখেছেন, ‘‘মনে হয়, এ বার সকলে মনে রাখবেন এবং এই সিদ্ধান্তকে সম্মান করবেন...আজ-কাল এবং সব সময়ের জন্য ৷’’ দীর্ঘ বক্তব্যের শেষে ‘ভাবি’ করিনা এবং খুদে ‘জেহ’-র জন্য ভালবাসা জানিয়েছেন জেহ-র ‘বুয়াজান’ সাবা ৷

    প্রথম সন্তান তৈমুরের ক্ষেত্রে নেটিজেনরা আপত্তি তুলেছিলেন কেন চতুর্দশ শতকের আক্রমণকারী তিমুরের নামে সন্তানের নামকরণ করা হল? পারস্য-সহ মধ্য এশিয়ার বিস্তীর্ণ অংশ শাসন করা তৈমুর ১৩৯৮ খ্রিস্টাব্দে ভারত আক্রমণ করেছিলেন ৷ যদিও সইফ ও করিনা দাবি করেছিলেন, তিমুর নন, বরং তাঁরা নাম রেখেছেন ‘তৈমুর’ শব্দ অনুসরণে, যার অর্থ ‘লোহা’ ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: