Home /News /entertainment /
Prosenjit Chatterjee : ঋতুপর্ণর জন্মদিনে চিঠিতে আলুপোস্ত আর নতুন চিত্রনাট্যের খোঁজ নিলেন তাঁর দোসর

Prosenjit Chatterjee : ঋতুপর্ণর জন্মদিনে চিঠিতে আলুপোস্ত আর নতুন চিত্রনাট্যের খোঁজ নিলেন তাঁর দোসর

বন্ধুত্বের জোরেই তাঁর দাবি, ভুল হলে রাগ করতে পারবেন না ঋতুপর্ণ

বন্ধুত্বের জোরেই তাঁর দাবি, ভুল হলে রাগ করতে পারবেন না ঋতুপর্ণ

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Prosenjit Chatterjee) চিঠি লিখলেন ৷ তিনি যে তাঁর মতো ভাল লিখতে পারেন না, প্রথমেই স্বীকার করে নিলেন তাঁর দোসর ঋতুপর্ণ ঘোষের (Rituparno Ghosh) কাছে ৷

  • Share this:

    কলকাতা : যে কাজটা কোনওদিনও সেভাবে করে উঠতে পারেননি, সেটাই দোসরের জন্মদিনে করলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (Prosenjit Chatterjee) ৷ চিঠি লিখলেন ৷ তিনি যে তাঁর মতো ভাল লিখতে পারেন না, প্রথমেই স্বীকার করে নিলেন তাঁর দোসর ঋতুপর্ণ ঘোষের (Rituparno Ghosh) কাছে ৷

    সম্বোধন ‘প্রিয় ঋতু’ বলে ৷ বলেছেন, ঋতু জানেন তাঁর এই বন্ধু সেভাবে কোনওদিন কাউকে চিঠি লেখেননি ৷ তবু ‘ঋতুর’ জন্মদিনে একটু চেষ্টা করলেন ৷ বন্ধুত্বের জোরেই তাঁর দাবি, ভুল হলে রাগ করতে পারবেন না ঋতুপর্ণ ৷

    প্রসেনজিৎ লিখেছেন, ‘‘ তোর সৃজনশীলতার রঙে তুই অনন্যভাবে রাঙিয়েছিস চলচ্চিত্র জগৎকে এবং অবশ্যই তোর সমস্ত সৃষ্টিকে ৷’’ এ তো গেল সার্বিক চলচ্চিত্রের জগৎ ৷ প্রসেনজিতের জীবনে? নায়ক বলেছেন, তাঁর জীবনে ঋতুপর্ণর অবদান কয়েকটা শব্দে বোঝানো সম্ভব নয় ৷ বন্ধুর কাছে অবশ্য বোঝানর প্রয়োজনও নেই, জানেন প্রসেনজিৎ ৷ কারণ, বন্ধুও সব জানেন ৷ সবই বোঝেন ৷

    কিন্তু জন্মদিনে শুধু কাজের কথা দিয়েই চিঠি? তাও কখনও হয়? চিঠির শেষে ‘চোখের বালি’-র ‘মহেন্দ্র’ জানতে চেয়েছেন পরিচালকের কাছে, আজকের মেনু কী? থাকছে তো আলুপোস্ত?

    খাবারের পাশাপাশি প্রসেনজিৎ জিজ্ঞাসা করেছেন, নতুন চিত্রনাট্য কতদূর? সঙ্গে আর্জি, শেষ হলেই তাঁকে শোনাতে হবে কিন্তু ৷ অপেক্ষায় থাকবেন প্রসেনজিৎ ৷

    প্রয়াত পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষের জন্মদিন ছিল মঙ্গলবার ৷ ১৯৬৩ সালের ৩১ অগাস্ট জন্মগ্রহণ করেছিলেন তিনি ৷ বাংলা তথা ভারতীয় চলচ্চিত্রে তাঁর হাত ধরেই সূচিত হয়েছিল নতুন যুগ, বিশ্বাস করেন চলচ্চিত্র অনুরাগীরা ৷

    ঋতু্পর্ণর পরিচালনায় ‘উৎসব’, ‘চোখের বালি’, ‘দোসর’, ‘খেলা’-র মতো ছবির মাধ্যমেই একের পর এক নতুন রূপে ধরা দেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় ৷ তাঁর পরিচিত ভাবমূর্তি বিচূর্ণ হয়ে উত্তরণ ঘটে নতুন ঘরানায় ৷ এই রূপান্তরের জন্য বার বার ঋতুপর্ণকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন প্রসেনজিৎ ৷ তবে পরিচালকের বাকি ঘনিষ্ঠদের মতো তিনিও ডাকনামেই সম্বোধিত হতেন ৷ সেই নামটাই লিখলেন চিঠির শেষে—‘‘ভাল থাকিস৷ শুভ জন্মদিন৷ ইতি, বুম্বা৷’’

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Prosenjit Chatterjee, Rituparno ghosh

    পরবর্তী খবর