• Home
  • »
  • News
  • »
  • entertainment
  • »
  • MOUSHUMI CHATTERJEE HAS MOVED THE BOMBAY HIGH COURT OVER DETERIORATING HEALTH OF HER DAUGHTER

বিছানায় মিশে গিয়েছে মেয়ে, জামাইয়ের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ নিয়ে আদালতে মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়

২০১০ সালে ডিকি সিনহার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল পায়েলের ৷ প্রথম থেকেই রুগ্ন ছিলেন পায়েল ৷ তবে এখন প্রায় অসাড় হয়ে গিয়েছে তাঁর শরীর ৷

২০১০ সালে ডিকি সিনহার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল পায়েলের ৷ প্রথম থেকেই রুগ্ন ছিলেন পায়েল ৷ তবে এখন প্রায় অসাড় হয়ে গিয়েছে তাঁর শরীর ৷

  • Share this:

    #মুম্বই: শয্যাশায়ী মৌসুমী চট্টোপাধ্যায়ের মেয়ে ৷ কিন্তু তাঁকে ফেলে রাখা হয়েছে চরম অবহেলা আর অযত্নে ৷ এই অভিযোগ নিয়েই সম্প্রতি জামাইয়ের বিরুদ্ধে বোম্বে আদালতের দ্বারস্থ হলেন জনপ্রিয় বাঙালি অভিনেত্রী মৌসুমী চট্টোপাধ্যায় ৷ মৌসুমীর দুই মেয়ে মেঘনা আর পায়েল ৷ এর মধ্যে পায়েল ছোট থেকেই অসুস্থ ৷ তখনই তাঁর ডায়াবেটিস ধরা পড়েছিল ৷ কিন্তু দিনের পর দিন ঠিক মতো সেবা না হওয়ায় এখন সে বিছানার সঙ্গে প্রায় মিশে গিয়েছেন পায়েল ৷ মৌসুমীর আশঙ্কা, যে কোনও দিন মৃত্যু হতে পারে তাঁর মেয়ের ৷ একসময় উত্তম কুমারের সঙ্গে অভিনয় করেছেন মৌসুমী ৷ বিখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের পুত্র জয়ন্ত মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তাঁর ৷ তাঁর মেয়েরই এমন শোচনীয় অবস্থার কথা মানতে পারছেন না শিল্পীমহল ৷ ২০১০ সালে ডিকি সিনহার সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল পায়েলের ৷ প্রথম থেকেই রুগ্ন ছিলেন পায়েল ৷ তবে এখন প্রায় অসাড় হয়ে গিয়েছে তাঁর শরীর ৷ গত বছর থেকেই বারবার তাঁকে ভর্তি হতে হয়েছে হাসপাতালে ৷ চিকিৎসক তাঁকে বলেছিলেন, ফিজিওথেরাপি করাতে ৷ সে সময় পায়েলের স্বামী তাঁর দেখাশোনার ভার নিলেও পরবর্তীকালে আর ঠিক মতো তাঁর চিকিৎসা করাননি বলে অভিযোগ ৷ ফলে দ্রুত অবস্থার অবনতি হয় তাঁর ৷

    mousuni1 মৌসুমী ও তাঁর স্বামী জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় আদালতের কাছে অভিযোগ করেছেন, মাইনে না দেওয়ায় নার্স এবং ফিজিওথেরাপিস্ট কাজ ছেড়ে চলে গিয়েছেন ৷ ফলে ৪-৫ মাস ধরেই পায়েলের অবস্থা রীতিমতো সঙ্কটজনক ৷ কিন্তু বারবার বলা সত্ত্বেও মেয়ের দেখভালের দায়িত্ব তাঁদের নিতে দেননি ডিকি ৷ মেয়ের সঙ্গে দেখা করতেও দেওয়া হয়নি তাঁদের ৷ ২০ নভেম্বর জামাই ডিকির বিরুদ্ধে খার থানায় প্রথমে অভিযোগ জানান মৌসুমী ও জয়ন্ত ৷ এরপরেই বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন তাঁরা ৷ মৌসুমী জানাচ্ছেন, মেয়ে পায়েলের নূন্যতম সেবাটুকুও কেউ করে না ৷

    First published: